For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

একটুতেই রেগে যাচ্ছেন? জেনে নিন ক্রোধ নিয়ন্ত্রণের কিছু সহজ উপায়

|

ক্রোধ বা রাগ হল এক প্রকার স্বাভাবিক অনুভূতি। তবে অনিয়ন্ত্রিত ক্রোধ মানসিক, শারীরিক এবং সামাজিক দিক থেকে অত্যন্ত ক্ষতিকর। অনিয়ন্ত্রিত ক্রোধ হাই ব্লাড প্রেসার, হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি বৃদ্ধি করতে পারে। এছাড়া, কেবল রাগের কারণে খুব ভাল সম্পর্কও অনেক সময় নষ্ট হয়ে যায়। তাই এই সমস্ত ঝামেলা এড়াতে সর্তক থাকা প্রয়োজন।

যেকোনও পরিস্থিতিতে রাগ হলেও, রাগের বহিঃপ্রকাশ না করে তা নিয়ন্ত্রণ করা উচিত। তাহলেই অনেক সমস্যার সমাধান হতে পারে। কিন্তু ক্রোধ নিয়ন্ত্রণ করবেন কীভাবে? আসুন জেনে নেওয়া যাক, ক্রোধ নিয়ন্ত্রণের কিছু সহজ উপায় সম্পর্কে।

১) ভেবেচিন্তে কথা বলুন

১) ভেবেচিন্তে কথা বলুন

ক্রোধের বশে এমন কিছু কখনই বলবেন না, যার জন্য আপনাকে পরবর্তী সময়ে অনুশোচনা করতে হয়। কিছু বলার আগে অন্ততপক্ষে একবার, বিপরীত পক্ষের স্থানে নিজেকে রেখে ভেবে দেখুন। অনিয়ন্ত্রিত ক্রোধের বহিঃপ্রকাশ, সম্পর্কে ভাঙন ধরাতে পারে।

২) এক্সারসাইজ করুন

২) এক্সারসাইজ করুন

শারীরিক ক্রিয়াকলাপ স্ট্রেস কমাতে সহায়তা করে, যা পরোক্ষভাবে ক্রোধ নিয়ন্ত্রণে সহায়ক। রাগের অনুভূতি হলেই দ্রুত হাঁটুন কিংবা দৌড়ান অথবা অন্যান্য শারীরিক ক্রিয়াকলাপ করুন।

৩) ক্ষমা করতে শিখুন

৩) ক্ষমা করতে শিখুন

ক্ষমা হল এক ধরনের শক্তিশালী অস্ত্র, যা আপনার নেতিবাচক অনুভূতিকে, ইতিবাচক অনুভূতিতে রূপান্তরিত করতে পারে। ক্রোধের কারণে অনেক সময়ই সুসম্পর্কে ভাঙ্গন ধরে, তবে ক্ষমা সম্পর্ককে দৃঢ় করে তুলতে সহায়তা করে।

৪) কিছুক্ষণ কথা না বলে, চুপ করে থাকুন

৪) কিছুক্ষণ কথা না বলে, চুপ করে থাকুন

অতিরিক্ত ক্রোধের সময় অনেক ক্ষেত্রেই না চাইতেও অপশব্দের বহিঃপ্রকাশ হতে পারে। যার ফলে পরিস্থিতি আরও খারাপের দিকে গিয়ে, সম্পর্কের মধ্যে ভাঙন পর্যন্ত ঘটাতে পারে। তাই অত্যাধিক ক্রোধের অনুভূতি হওয়া মাত্রই, কোনও কথা না বলে কিছুক্ষণ চুপ করে থাকুন এবং পরিস্থিতি কীভাবে সামলানো যায়, সেই বিষয়ে ভাবনা-চিন্তা করুন।

৫) হাসুন

৫) হাসুন

"Munna Bhai M.B.B.S" এর ডক্টর আস্তানার হাসির কথা মনে পড়ে? হ্যাঁ, সেটি ছিল তার ক্রোধ নিয়ন্ত্রণের উপায়। তবে বাস্তব জীবনের ক্ষেত্রেও মনকে শান্ত করা এবং খারাপ মেজাজকে ভাল মেজাজে রূপান্তরিত করা, ক্রোধ প্রশমিত করার একটি সহজ পদ্ধতি হল হাসি। ক্রোধের অনুভূতি হলেই হাসার উপায় খুঁজুন এবং জোরে জোরে হাসুন। যেমন - বাচ্চাদের সঙ্গে খেলা, স্ট্যান্ড-আপ কমেডি দেখা, হাসির ভিডিয়ো দেখা, জোকস শোনা বা পড়া কিংবা হাসির কোনও স্মৃতি মনে করা, প্রভৃতি।

৬) এক মন্ত্রের পুনরাবৃত্তি করুন

৬) এক মন্ত্রের পুনরাবৃত্তি করুন

একটি শব্দ বা বাক্যাংশ খুঁজে নিন, যা আপনার মনকে শান্ত করতে সক্ষম এবং পুনরায় মনোনিবেশ করতেও সহায়তা করবে। আপনার যদি মন খারাপ কিংবা ক্রোধের অনুভূতি হয়, তখন ওই শব্দ কিংবা বাক্যাংশটি, বারবার পুনরাবৃত্তি করুন, যেমন - 'ওম', 'সব ঠিক হয়ে যাবে', 'রিল্যাক্স', 'All is well', প্রভৃতি। দেখবেন রাগ নিয়ন্ত্রণে থাকবে।

৭) বিশ্বস্ত বন্ধুর সঙ্গে কথা বলুন

৭) বিশ্বস্ত বন্ধুর সঙ্গে কথা বলুন

আপনার যদি কোনও বিশ্বস্ত বন্ধু থাকে, তাহলে তার কাছে আপনি আপনার তাৎক্ষণিক অনুভূতি প্রকাশ করতে পারেন। আপনার অনুভূতি সম্পর্কে কারুর সঙ্গে কথা বললে, মন হালকা হবে। এটি ক্রোধ নিয়ন্ত্রণে রাখতে সহায়তা করে। আর সময় বিশেষে, বিশ্বস্ত বন্ধুর কাছ থেকে পরিস্থিতি অনুসারে উপযুক্ত পরামর্শও পাওয়া সম্ভব।

৮) হাঁটাহাঁটি করুন

৮) হাঁটাহাঁটি করুন

হাঁটা, ক্রোধ নিয়ন্ত্রণে রাখতে সহায়তা করে। এটি শরীরের সমস্ত পেশীকে রিল্যাক্স করে এবং আপনাকে শান্ত করতেও সহায়তা করে। এছাড়াও, কীভাবে রাগের পরিস্থিতিতে প্রতিক্রিয়া করা উচিত, তা নিয়ে ভাবনা-চিন্তা করতেও সময় দেয়।

৯) গান শুনুন

৯) গান শুনুন

গানের মাধ্যমে নিজেকে শান্ত করা এবং ক্রোধ নিয়ন্ত্রণ করা, একটি অন্যতম জনপ্রিয় উপায়। পছন্দের সুর এবং গান মেজাজ ভাল করে, মনকে রিল্যাক্স করতে সক্ষম। অনেক সময় মনোবিদরা ক্রোধ নিয়ন্ত্রণের ক্ষেত্রে, গান শোনার পরামর্শ দিয়ে থাকেন।

English summary

Tips to control your anger and ways to stay calm

Anger management: Tips to control your anger and ways to stay calm in bengali. Read on.
X