(ছবি) খাওয়া-দাওয়া কীভাবে অবসাদের কারণ হয়? জেনে নিন

By: OneIndia Bengali Digital Desk
Subscribe to Boldsky

অবসাদগ্রস্ততা আজকের দিনে এক ভয়ঙ্কর সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। জীবনযাত্রা ও আরও অনেকগুলি জিনিস অবসাদকে ডেকে আনছে। এর পাশাপাশি আমাদের খাদ্যাভ্যাসও অবসাদকে ডেকে আনায় অনুঘটকের কাজ করে। [এই খাবারগুলি মুহূর্তে মন খারাপ ভালো করে দিতে পারে]

বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, মনের অবস্থা অবশ্যই আমাদের খাদ্যাভ্যাসে প্রভাব ফেলে। আমরা কী খাচ্ছি তা আমাদের অবসাদের মাত্রাকে বাড়িতে বা কমিয়ে আনে। কারও ক্ষেত্রে নতুন করে অবসাদকে ডেকে আনে। [সর্বদা 'মুড' ভালো রাখতে খান এই খাবারগুলি]

আমাদের খাবারের অভ্যাসের ফলে শরীর মোটা-রোগা হয়। শরীরে পুষ্টি-অপুষ্টির ফারাক হয়। এইসবকিছুই অবসাদের সঙ্গে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে সম্পর্কিত। [এই কয়েকটি সহজ উপায়ে খুশি ফিরিয়ে আনুন জীবনে]

খাবারের মধ্যে এমন অনেক জিনিস থাকে যা আমাদের শরীরে বিরূপ প্রভাব ফেলে। কীভাবে আমাদের খাওয়া-দাওয়া অবসাদগ্রস্ততাকে প্রভাবিত করে তা জেনে নিন একনজরে। [সুখী হতে চান? এই অভ্যাসগুলিকে বলুন 'গুড বাই']

ওজন বাড়া

ওজন বাড়া

আইসক্রিম, কেক ইত্যাদি আরও ভালোলাগার খাবার খেলে মন ভালো হয়ে যায় ঠিকই, তবে তা ভীষণভাবে ওজন বাড়িয়ে দেয়। যার ফলে হৃদরোগ, ডায়বেটিস সহ একাধিক রোগ আমাদের শরীরে বাসা বাঁধে। এর পাশাপাশি অবসাদকেও বাড়িতে তুলতে পারে এগুলি।

মিষ্টি খাবার

মিষ্টি খাবার

মিষ্টি খেতে আমরা অনেকেই ভালোবাসি। মিষ্টি খেলে মন আনন্দে ভরে যায় ঠিকই। তবে জানেন কি, তৎক্ষণাৎ মন ভালো হলেও পরে গিয়ে অবসাদগ্রস্ত লাগতে পারে।

কৃত্তিম মিষ্টি

কৃত্তিম মিষ্টি

নানা ধরনের কৃত্তিম বাজার চলতি মিষ্টি খাবার দেখলেই খেতে মন চায়। তবে জেনে রাখা ভালো, এগুলি খেলে নিদ্রাহীনতা, মাথা যন্ত্রণার মতো সমস্য়া হয় যা অবসাদের অনুঘটক রূপে কাজ করে।

কফি জাতীয় খাবার

কফি জাতীয় খাবার

যারা স্ট্রেস ফ্রি হতে নিয়মিত অনেক বেশি কফি খান, তাদের ক্ষেত্রে উল্টোটাই হয়। এর ফলে ঘুম কম হয়, মনে উদ্বেগ বাড়ে এবং একইসঙ্গে অবসাদের মাত্রাও বাড়ে।

জাঙ্ক ফুড বা ভাজা খাবার

জাঙ্ক ফুড বা ভাজা খাবার

আমরা সকলেই বাজারের জাঙ্ক ফুড বা দোকানের কেনা ভাজা খাবার খেতে ভালোবাসি। তবে এসব স্বাস্থ্যসম্মত তো নয়ই, উল্টে অবসাদকে ইন্ধন জোগায়।

কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার

কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার

নিজের ডায়েটে কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার বেশি রাখলে রক্তে শর্করার পরিমাণ বাড়ে। পাশাপাশি অবসাদের মাত্রাও বৃদ্ধি পায়।

সোডিয়াম বেশি খাওয়া

সোডিয়াম বেশি খাওয়া

নুনে প্রচুর পরিমাণে সোডিয়াম থাকে। বেশি পরিমাণে নুন খেলে স্নায়ুতন্ত্র দুর্বল হয়ে পড়ে। এর ফলে অবসাদগ্রস্ততা চলে আসে।

প্রসেসড খাবার

প্রসেসড খাবার

এখন বিভিন্ন শপিং মলে প্রক্রিয়াজাত খাবার কিনতে পাওয়া যায়। দৈনন্দিন জীবনে সময়ের অভাবে এগুলি খাবার পরিমাণও অনেক বেড়ে গিয়েছে। আর এই খাবার মিশ্রিত নানা উপাদান অবসাদ ও অন্য বড় রোগকে ডেকে আনে।

English summary
How Eating Is Linked To Depression
Story first published: Monday, May 9, 2016, 14:20 [IST]
Please Wait while comments are loading...