For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

বন্ধুত্ব এমনই... ৫০০০ মাইল সাঁতরে ফেরে পেঙ্গুইন, মানব বন্ধুর ভালবাসার টানে

|

বন্ধুত্ব হল পারস্পরিক মনের বন্ধন, পারস্পরিক সংযোগ। শুধুমাত্র দু'জন মানুষের মধ্যেই যে বন্ধুত্ব হতে পারে তা নয়, মানুষের সঙ্গে প্রাণীরও বন্ধুত্ব হতে পারে। আর, তার জন্য দরকার প্রাণীদের প্রতি উদারতা এবং ভালবাসা। যে মুহূর্তে আপনি কোনও প্রাণীর প্রতি ভালবাসা প্রকাশ করবেন সেই মুহূর্তে সেও আপনাকে ভালবাসবে এবং সারা জীবন আপনার পাশে থাকবে। তাদের থাকে না কোনও অভিযোগ, থাকে না কোনও প্রশ্ন। শুধুমাত্র তারা আপনার কাছ থেকে ভালবাসা এবং স্নেহ আশা করবে।

Penguin Swims 5000 Miles Every Year To Meet His Friend

ঠিক এইরকমই এক বন্ধুত্ব দেখা গেছে, ব্রাজিলের বাসিন্দা ৭১ বছর বয়সী জোয়াও পেরিরা ডি'সুজা এবং ডিনডিম নামক এক পেঙ্গুইনের মধ্যে। ব্রাজিলের রিও ডি জেনেইরোর সমুদ্র সৈকতে একদিন আহত অবস্থায় এক পেঙ্গুইনকে খুঁজে পান বৃদ্ধ মৎসজীবি, জোয়াও পেরিরা ডি'সুজা। তার বাঁচার আশাও ছিল না। ছোট্ট পেঙ্গুইনটির করুণ অবস্থা দেখে বৃদ্ধ তাকে নিজের বাড়িতে নিয়ে গিয়ে সুস্থ করবেন বলে ঠিক করেন। বৃদ্ধের সেবা, ভালবাসাতেই সুস্থ হয়ে ওঠে ডিনডিম নামক এই পেঙ্গুইনটি।

ব্রাজিলের বাসিন্দা জোয়াও পেরিরা ডি'সুজা পেশায় রাজমিস্ত্রি ছিলেন। কাজ থেকে অবসর নেওয়ার পর মাছ ধরেই সময় কাটান তিনি। রোজকার মতোই একদিন মাছ ধরতে গিয়ে সমুদ্রের পাড়ে পড়ে থাকতে দেখেন একটি ম্যাজেলানীয় পেঙ্গুইনকে। দুর্বল সেই পেঙ্গুইনের সারা শরীর তৈলাক্ত, গায়ের পালক উঠে গিয়েছে। দেখে মায়া হয় জোয়াও-এর। তাকে নিজের বাড়িতে নিয়ে এসে সেবা, শুশ্রূষার মাধ্যমে সুস্থ করে তোলে জোয়াও। প্রায় এগারো মাস জোয়াও-এর কাছেই থেকে যায় ছোট পেঙ্গুইনটি। ডি'সুজা আদর করে নাম পেঙ্গুইনটির নাম রেখেছিলেন ডিনডিম।

'কহো না পেঁয়াজ হ্যায়', পেঁয়াজের ঝাঁঝে গান জুড়ল আমূল গার্ল

ডিনডিমের জন্য স্পেশাল রান্না, তাকে দেখভাল করা সবই নিজে হাতে করতেন জোয়াও। কালো পিঠ আর সাদা বুকের এই পেঙ্গুইনের সঙ্গে মনের টান তৈরি হয়ে গিয়েছিল ডি'সুজা-র। স্নেহ, ভালবাসায় পুরোপুরি সুস্থ হয়ে গিয়েছিল ডিনডিম। তার গায়ে পালকও গজিয়ে উঠেছিল। এরপর একদিন ডিনডিম নিজে থেকেই তার গন্তব্যে চলে যায়। তবে, নিজের জায়গায় ফিরে গেলেও ডি'সুজাকে ভোলেনি ডিনডিম। হয়তো মনের টানেই প্রতিবছর ৫০০০ মাইল সাঁতরে রিও ডি জেনেইরোয় পৌঁছয় ডিনডিম, তার প্রিয় বন্ধুর সঙ্গে দেখা করতে।

ডি'সুজার বলেন, ''আমি কখনও ভাবিনি ও ফিরে আসতে পারে। সবাই বলেছিল ও আর কখনও আসবে না। কিন্তু, ঠিক চার মাস পরে, ও এখানে ফিরে এসেছিল।'' প্রতি বার রিও ডি জেনেইরোয় ফিরে ডি'সুজাকে দেখেই আনন্দে দৌড়ে আসে ডিনডিম। ঠিক যেন পুরনো বন্ধুর সঙ্গে দেখা। ডি'সুজা ও ডিনডিমের এই এক মিষ্টি সম্পর্কের ভিডিয়ো ভাইরাল হয়েছে। এই ভিডিয়ো দেখে আপনিও অবাক হবেন।

বড়দিনে আপনার প্রিয়জনকে কী উপহার দেবেন ভাবছেন? রইল সেরা ১০টি উপহার

এটি উল্লেখ করার মতো বিষয় যে, পেঙ্গুইনটি প্রতি বছর ৫০০০ মাইল সাঁতরে আসে, যে ব্যক্তি তাকে বাঁচিয়েছিল তার সঙ্গে দেখা করতে এবং সেই বৃদ্ধটিও তাঁর বন্ধুর অপেক্ষায় থাকে। কিছু ভালবাসা এমনই হয়, যা কখনই ব্যাখ্যা করা যায় না।

English summary

Penguin Swims 5000 Miles Every Year To Meet His Friend

Penguin travels 5000 Miles every year to meet the man who saved him. The man too looks forward to the days when he could see Dindim.
X