ওয়াল্ড মেন্টাল হেল্থ ডে: দুশ্চিন্তা দূর করতে কাজে লাগাতে পারেন বাদামকে!

Written By:
Subscribe to Boldsky

আমরা সব রেসের মাঠের ঠুলি পরা ঘোড়া হয়ে গেছি। প্রাণপণে দৌড়াচ্ছি। লক্ষ্য একটাই, উন্নতি, অর্থনৈতিক এবং সমাজিক তো বটেই। কিন্তু এমনটা করতে গিয়ে অজান্তেই জড়িয়ে পরছি দুশ্চিন্তার জালে। আর জড়াবো নাই বা কেন বলুন! নিজের জায়গা হারিয়ে ফেলার ভয় তো সবার মনেই থাকে, তাই না! আর কখন এই ভয় যে দানবের দেহারা নেয়, তা আগে থেকে বোঝা সম্ভবই হয়ে ওঠে না।

সরকারি পরিসংখ্যানের দিকে নজর ফেরালে দেখতে পাবেন, গত কয়েক দশকে শুধু ভয়ের কারণে কত মানুষ আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছে। ভয় অনেক। কেউ ভয় পায় ফেল করতে, কেউ আবার অফিসের পোস্ট হারাতে। তবে কারণ যাই হোক না কেন, দুর্ভাগ্যটা কোথায় জানেন? আমাদের দেশ আত্মহননের পথ যারা বেছে নেয়, তাদের বেশিরভাগেরই বয়স ৩০-৪০-এর কোটায়। তাই তো আজ এই প্রবন্ধে অ্যাংজাইটি বা দুশ্চিন্তাকে বাগে আনতে পারে এমন কিছু বিষয় সম্পর্কে আলোচনা করা হল, যা এক্ষেত্রে দারুন কাজে আসতে পারে। তাই তো বলি দয়া করে এই প্রবন্ধে একবার চোখ রাখবেন। ভুলে যাবেন না, জীবন একটাই। তাই এই অমূল্য জীবনে শেষ করে দেওয়াটা মোটেও কিন্তু বুদ্ধিমানের কাজ নয়!

প্রসঙ্গত, যে যে পদ্ধতি অনুসরণ করে অ্যাংজাইটিকে বাগে আনা সম্ভব, সেগুলি হল...

১. বাদাম:

১. বাদাম:

একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে নিয়মিত এক মুঠো করে বাদাম খাওয়ার অভ্যাস করলে মস্তিষ্কের অন্দরে কর্টিজল নামক স্ট্রেস হরমোনের ক্ষরণ কমতে শুরু করে। ফলে একদিকে যেমন অ্যাংজাইটি বা দুশ্চিন্তা কমে, তেমনি অন্যদিকে মনও চাঙ্গা হয়ে ওঠে। প্রসঙ্গত, বাদাম ছাড়াও মাছ, আখরোট এবং ফ্লেক্সসিডেও প্রচুর মাত্রায় ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড থাকে, যা কর্টিজল হরমোনের ক্ষরণ কমাতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

২. মাছ-মাংস খেতে হবে বেশি করে:

২. মাছ-মাংস খেতে হবে বেশি করে:

বিশেষজ্ঞদের মতে এমন ধরনের খাবার খেলে শরীরে লে-লাইসাইন নামে এক ধরনের অ্যামাইনো অ্যাসিডের মাত্রা বৃদ্ধি পায়, যা নিউরোট্রান্সমিটারের ক্ষমতা বৃদ্ধির মধ্যে দিয়ে সার্বিকভাবে ব্রেন পাওয়া বাড়াতে সাহায্য করে। আর একবার ব্রেন পাওয়ার বেড়ে গেলে অ্যাংজাইটি কমতেও সময় লাগে না। প্রসঙ্গত, মাছ এবং মাংস ছাড়াও বিনিসেও লে-লাইসাইনের সন্ধান পাওয়া যায়।

৩. গায়ে রোদ লাগাতে হবে:

৩. গায়ে রোদ লাগাতে হবে:

গবেষণা বলছে শরীরে ভিটামিন ডি-এর মাত্রা বৃদ্ধি পেলে দুশ্চিন্তা কমে। তাই তো দেহে কোনওভাবেই যাতে এই ভিটামিনটির ঘাটতি দেখা না যায়, সেদিকে খেয়াল রাখা একান্ত প্রয়োজন। প্রসঙ্গত, ভিটামিন ডি-এর সবথেকে ভাল সোর্স হল সূর্যালোক। তাই সকাল বেলা, এই ধরুন ৭-৯ টার মধ্যে প্রতিদিন গায়ে রোদ লাগানোর চেষ্টা করবেন, এমনটা করলে দেখবেন চিন্তা আর মগজ ধোলাই করতে পারবে না।

খরচ করতে হবে ঠিক ২১ মিনিট:

খরচ করতে হবে ঠিক ২১ মিনিট:

একাধিক কেস স্টাডি করে বিশেষজ্ঞরা জানতে পেরেছেন নিয়মিত মাত্র ২১ মিনিট শরীরচর্চা করলে এন্ডোরফিন নামক একটি হরমোনের ক্ষরণ বেড়ে যেতে শুরু করে। এই হরমোনটি মনকে চাঙ্গা করে তুলতে বিশেষ ভূমিকা নেয়। তাই তো এন্ডোরফিনের ক্ষরণ যত বৃদ্ধি পায়, তত চিন্তা কমতে থাকে, বাড়তে থাকে আনন্দ।

৫. দু-কাপের বেশি কফি নয়:

৫. দু-কাপের বেশি কফি নয়:

ভুলেও দিনে দু কাপের বেশি কফি খাবেন না যেন! আসলে শরীরে ক্যাফিনের মাত্রা বাড়তে থাকলে এনার্জির ঘাটতি দূর হয় ঠিকই, কিন্তু সেই সঙ্গে অ্যাংজাইটি লেভেলও বাড়তে শুরু করে, যা শরীরের জন্য একেবারেই ভাল নয়। তাই এবার থেকে কফির মাত্রা কমিয়ে গ্রিন টি খাওয়া শুরু করতে পারেন। এমনটা করলে শরীরের উপকার তো হবেই, সেই সঙ্গে অ্যাংজাইটি লেভেল বাড়ার আশঙ্কাও থাকবে না।

৬. ম্যাগনেসিয়াম, ভিটামিন এবং জিঙ্কের ঘাটতি যেন না হয়:

৬. ম্যাগনেসিয়াম, ভিটামিন এবং জিঙ্কের ঘাটতি যেন না হয়:

এই তিনটি উপাদান ব্রেন এবং শরীরের কর্মক্ষমতা বাড়াতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। তাই ভুলেও যেন এদের ঘাটতি না হয়, বিশেষত ভিটামিন বি১২-এর। এক্ষেত্রে ডায়াটের দিকে নজর দিতে হবে। যে যে খাবারে এই উপাদানগুলি বেশ মাত্রায় রয়েছে, সেগুলি খেলেই দেখবেন আর কোনও চিন্তা থাকবে না। প্রসঙ্গত, ভিটামিন বি১২ প্রচুর মাত্রায় থাকে মাছ, মাংস, ডাল, ডায়াটারি প্রডাক্ট এবং ডিমে।

For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS
For Daily Alerts

    Read more about: রোগ শরীর
    English summary

    এই প্রবন্ধে অ্যাংজাইটি বা দুশ্চিন্তাকে বাগে আনতে পারে এমন কিছু বিষয় সম্পর্কে আলোচনা করা হল, যা এক্ষেত্রে দারুন কাজে আসতে পারে। তাই তো বলি দয়া করে এই প্রবন্ধে একবার চোখ রাখবেন। ভুলে যাবেন না, জীবন একটাই।

    It happens so quietly that you cannot prepare for it, and before you know, you are enveloped in its grip so tight that escape seems impossible. So what does one do? Does one sit in a corner with the head bowed, eyes shut, and arms tightly wrapped, waiting for it to leave, or does one stand up and fight?Battling with anxiety, stress, and depression can be hard, but it is not impossible. With a little care, awareness, and self-love, you can manage, if not overcome, the constant feeling of despair.
    Story first published: Tuesday, October 10, 2017, 12:08 [IST]
    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Boldsky sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Boldsky website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more