নিয়মিত পেঁয়াজ না খেলে কি হতে পারে জানা আছে?

Written By:
Subscribe to Boldsky

সবজিটি কাঁদায় বটে। কিন্তু সেই সঙ্গে শরীরেরও এত মাত্রায় খেয়াল রাখে যে এই বিষয়ে জানলে আপনার চোখ কপালে উঠে যাবে। তাই তো আজ এই প্রবন্ধে নিয়মিত পেঁয়াজ খেলে শরীরের অন্দরের কী কী বদল আসতে থাকে, সে বিষয়ের উপর আলোকপাত করার চেষ্টা করা হবে।

বেশ কিছু গবেষণায় দেখা গেছে মাথার চুল থেকে পায়ের নখ পর্যন্ত শরীরের প্রতিটি অঙ্গের কর্মক্ষমতা বাড়াতে পেঁয়াজের কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে। তাই তো সেই ৫০০০ বিসি থেকেই নানাভাবে এই সবজিটির ব্যবহার হয়ে আসছে। ইতিহাসের পাতা ওল্টালে জানা যায় পেঁয়াজের চাষ প্রথম শুরু হয় চিনে। তারপর ইজিপ্ট হয়ে তা বিশ্বের বাকি অংশে ছড়িয়ে পরে। আর এখন তো প্রায় সারা বিশ্বেই পেঁয়াজের রমরমা। খাবার থেকে ওষুধ, প্রতিটি ক্ষেত্রেই এই সবজিটি বিপুল জনপ্রিয়তা পয়েছে। কিন্তু পিঁয়াজের এত জনপ্রিয়তার পিছনে কারণটা কী? আসলে এই সবজিটি কাঁচা অবস্থায় হোক, কী রান্নায় দিয়ে, নিয়মিত খেলে একাধিক শারীরিক উপকার পাওয়া যায়। যেমন ধরুন...

১. হার্টের স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটে:

১. হার্টের স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটে:

পেঁয়াজে উপস্থিত ফ্লেবোনেয়েড হার্টের স্বাস্থ্যের উন্নতিতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। অন্যদিকে সবজিটির অন্দরে থাকা অর্গেনোসালফার নামক উপাদান হার্ট অ্যাটাকের মতো মারণ রোগকে দূরে রাখতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

২. স্মৃতিশক্তির উন্নতি ঘটে:

২. স্মৃতিশক্তির উন্নতি ঘটে:

সম্প্রতি প্রকাশিত একটি গবেষণাপত্র অনুসারে নিয়মিত কাঁচা পেঁয়াজ খেলে ব্রেন পাওয়ার বৃদ্ধি পেতে শুরু করে। ফলে স্মৃতিশক্তির যেমন উন্নতি ঘটে, তেমনি নার্ভাস সিস্টেমের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে একাধিক ব্রেন ডিজিজ হওয়ার আশঙ্কাও হ্রাস পায়।

৩. ডায়াবেটিসকে নিয়ন্ত্রণে রাখে:

৩. ডায়াবেটিসকে নিয়ন্ত্রণে রাখে:

একেবারে ঠিক শুনেছেন! ২১ শতকের সব থেকে ভয়ঙ্কর এই রোগকে দাবিয়ে রাখতে পেঁয়াজের কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে। আসলে এই সবজিটিতে উপস্থিত বেশ কিছু উপদান রক্তে শর্করার মাত্রাকে বাড়তে দেয় না। সেই সঙ্গে ইনসুলিনের ঘাটতি যাতে দেখা না দেয়, সেদিকেও খেয়াল রাখে। ফলে ডায়াবেটিসের প্রকোপ বৃদ্ধির সুযোগই থাকে না।

৪. ত্বক এবং চুলের স্বাস্থ্য ভাল করে:

৪. ত্বক এবং চুলের স্বাস্থ্য ভাল করে:

অতিরিক্ত চুল পরার সমস্যা দূর করার পাশাপাশি ত্বকের সৌন্দর্য বাড়াতে পেঁয়াজের কোনও বিকল্প নেই বললেই চলে। তাই যাদি চান বয়স বাড়লেও ত্বকের উপর তার প্রভাব না পরুক, তাহলে নিয়মিত পেঁয়াজ খাওয়া শুরু করুন। দেখবেন উপকার মিলবে।

৫. ক্যান্সার বিরোধী:

৫. ক্যান্সার বিরোধী:

ব্রেন, কোলোন এবং ঘারের ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা একেবারে শূন্যতে এসে দাঁড়ায় যদি প্রতিদিন পেঁয়াজ খাওয়া যায়। কারণ এই সবজিটিতে উপস্থিত বেশ কিছু উপাদান শরীরের অন্দরে ক্যান্সার কোষের জন্ম হতে দেয় না। ফলে এমন ধরনের মারণ রোগ ধারে কাছেও ঘেঁষতে পারে না।

৬. অনিদ্রা দূর করে:

৬. অনিদ্রা দূর করে:

আপনি কি রাতের তারা? ঘরির কাঁটা সকালের দিকে এগিয়ে গেলেও চোখের পাতা এক করতে পারেন না? তাহলে তো প্রতিদিনের ডায়েটে পেঁয়াজের থাকা চাইই চাই। কারণ ইনসমেনিয়ার মতো রোগের উপশমে এই সবজিটি দারুন কাজে আসে।

৭. কোলেস্টেলের মাত্রা কমায়:

৭. কোলেস্টেলের মাত্রা কমায়:

শরীরে ভাল কোলেস্টেরল বা এইচ ডি এল-এর মাত্রা বাড়িয়ে একদিকে যেমন শরীরকে চাঙ্গা রাখে, তেমনি অন্যদিকে খারাপ কোলেস্টরলের পরিমাণ কমিয়ে হার্টের কর্মক্ষমতা বাড়ায়। এই ভাবে নিজের বিশেষ ক্ষমতা বলে পেঁয়াজ আমাদের আয়ু বাড়াতে বিশেষভাবে সাহায্য করে থাকে।

৮. মুখের গন্ধ দূর করে:

৮. মুখের গন্ধ দূর করে:

কাঁচা পেঁয়াজ খেলে মুখ গহ্বরের উপস্থিত ব্যাকটেরিয়াগুলি মরতে শুরু করে। ফলে মুখের দুর্গন্ধ দূর হয়। সেই সঙ্গে মাড়িতে নানাবিধ রোগ হওয়ার আশঙ্কাও কমে।

৯. হজম ক্ষমতার উন্নতি ঘটায়:

৯. হজম ক্ষমতার উন্নতি ঘটায়:

পেঁয়াজে থাকা ইনুলিন নামক একটি উপাদান দেহের অন্দরে হজমে সহায়ক উপকারি ব্যাকটেরিয়াদের সংখ্যা বাড়ায়। ফলে হজম ক্ষমতার ব্যাপক উন্নতি ঘটে। সেই সঙ্গে গ্যাস-অম্বলের প্রকোপও হ্রাস পায়। প্রসঙ্গত, সবজিটিতে উপস্থিত ফাইবারও এক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

Read more about: রোগ, শরীর
English summary
The flavonoids in red onions can contribute to heart health. Onions are also rich in organosulfurs, which can help prevent heart disease. According to one Argentine study, intake of the organosulfur compounds found in onions can cut the risk of cardiovascular disease. Onions contain thiosulfinates that act as natural blood thinners and reduce the risk of heart attack and stroke.
Story first published: Friday, December 22, 2017, 17:39 [IST]