পেঁপে দেখলেই নাক শিটকোন নাকি?

By Swaity Das
Subscribe to Boldsky

ব্রেকফাস্টে প্লেটে পাকা পেঁপে দেখলেই কেমন গা গুলিয়ে ওঠে। তার থেকে অনেক ভাল ওই মাখন, চিনি মাখা পাউরুটি। কি তাই তো? এমনটা যদি ভেবে থাকেন, তাহলে কিন্তু খুব ভুল ভাবছেন।

আচ্ছা, মায়া সভ্যতার কথা শুনেছেন? জানেন তো, তাঁরা পেঁপে এবং পেঁপে গাছকে ভীষণ পবিত্র বলে গণ্য করত। কারণ পেঁপের হাজারো গুণ শুধু তার শরীরে নয়, প্রতিটি অংশের মধ্যেই রয়েছে। স্বয়ং ক্রিস্টোফার কলম্বাস পেঁপেকে বলেছিলেন,' ফ্রউট অফ এঞ্জেলস'। পেঁপের এত গুণ থাকার কারণ হল, এর মধ্যে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে এনজাইম এবং পুষ্টিকর উপাদান, যা নানা ভাবে শরীরের উপকারে লেগে থাকে।

এখন প্রশ্ন হল, কী কী গুণ আছে পেঁপের মধ্যে? চলুন খোঁজ লাগানো যাক সে সম্পর্কে।

১. পেঁপে বাড়ায় হজম শক্তি:

১. পেঁপে বাড়ায় হজম শক্তি:

খাবার কিছুতেই হজম হয় না? সারাদিন কেমন যেন হাঁসফাঁস করতে থাকে শরীরটা? তাহলে নিয়ম করে পেঁপে খাওয়া শুরু করুন। দেখবেন ফল মিলবে। পেঁপে খাবারে থাকে থাকা প্রোটিনকে ভেঙে দেয়। ফলে যে খাবারই খুব সহজে হজম হয়ে যায়। আর যদি পেঁপের রস খেতে পারেন, তাহলে তো কথাই নেই। কারণ এক গ্লাস পেঁপের রস খেলে হজমের সমস্যা সহ অন্যান্য বহু রোগ দূরে পালায়।

২. প্রদাহ জনিত সমস্যা কমে:

২. প্রদাহ জনিত সমস্যা কমে:

হজম শক্তি বাড়ানো ছাড়াও প্রদাহ জনিত সমস্যা দূর করে পেঁপে। সেই সঙ্গে পুড়ে যাওয়ার ক্ষত সারাতেও দারুন কাজে আসে এই ফলটি।

৩. হৃদরোগ এবং ক্যান্সার রোধ করে:

৩. হৃদরোগ এবং ক্যান্সার রোধ করে:

পেঁপেতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ফাইটোনিউট্রিয়েন্টস, যা একিদকে যেমন হৃদরোগের আশঙ্কা কমায়, তেমনি শরীরে উপস্থিত টক্সিক উপাদানদের বার করে দিয়ে ক্যান্সার রোগকে দূরে রাখতেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

৪. ডায়াবেটিস রোগকে নিয়ন্ত্রণে থাকে:

৪. ডায়াবেটিস রোগকে নিয়ন্ত্রণে থাকে:

বহু পরীক্ষায় প্রমাণিত হয়েছে যে পেঁপেতে উপস্থিত হাই ফাইবার ডায়াবেটিসের মতো রোগের চিকিৎসায় দারুন কাজে আসে। কাঁচা পেঁপে খেলে রক্তে সুগারের মাত্রা তো কমেই, সেই সঙ্গে বাজে কোলেস্টেরলের মাত্রাও কমতে থাকে। প্রসঙ্গত, মরিশাস বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্টার ফর বায়ো মেডিক্যাল অ্যান্ড বায়ো মেটারিয়ালস রিসার্চ-এর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে গ্রিন টি এবং পেঁপে ডায়াবেটিস রোধে দারুণ কাজ দেয়। তাই আপনার পরিবারে যদি এই রোগের ইতিহাস থাকে, তাহলে আজ থেকেই এই ফলটি খাওয়া শুরু করুন। ইচ্ছা হলে পেঁপের ফুল তেলে ভেজে ভাতের সঙ্গেও খেতে পারেন। এমনটা করলেও দারুন উপকার পাওয়া যায়।

৫. রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার উন্নতি ঘটায়:

৫. রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার উন্নতি ঘটায়:

পেঁপের মধ্যে থাকা ভিটামিন এ, বি, সি এবং কে আমাদের শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে শক্তিশালী তকে তোলে। ফলে সংক্রমখ রোগ থাবা বসাতেপারে না। শুধু তাই নয়, চুলের সৌন্দর্য বৃদ্ধিতেও পেঁপে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা গ্রহণ করে থাকে।

৬. ত্বকের যত্নে কাজে দেয়:

৬. ত্বকের যত্নে কাজে দেয়:

স্কিন বিশেষজ্ঞরা প্রায়শই ত্বকে পেঁপে লাগানোর উপদেশ দিয়ে থাকেন। কেন এমনটা বলেন জানেন? আসলে পেঁপের মধ্যে থাকা এনজাইম ত্বকের বিভিন্ন সমস্যা কমাতে বিশেষ ভূমিকা নিয়ে থাকে।

৭. বাতের সমস্যা কমায়:

৭. বাতের সমস্যা কমায়:

পেঁপের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম, পটাশিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম এবং কপার থাকায় এটি বাতের সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে। তাই তো প্রতিদিন পেঁপে খেলে বাত হওয়ার সম্ভাবনা অনেক কমে যায়।

৮. ডেঙ্গু রোগের চিকিৎসা করে:

৮. ডেঙ্গু রোগের চিকিৎসা করে:

ডেঙ্গু সারাতে পেঁপের জুড়ি মেলা ভার। চিকিৎসকেদের মতে, ডেঙ্গুর কারণে প্লেটলেট দারুণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এই সময়ে পেঁপের কচি পাতা সামান্য জল দিয়ে বেঁটে, তারপর ছেঁকে নিয়ে যদি পান করা যায়, তাহলে রক্তের প্লেটলেট বাড়েত শুরু করে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই রোগের প্রকোপ কমতে থাকে।

৯. ওজন কমাতে সাহায্য করে:

৯. ওজন কমাতে সাহায্য করে:

ক্যালরির মাত্রা কম থাকায় ব্রেকফাস্টে পেঁপে খেলে পেটও ভরে। এদিকে ওজন বাড়ার চিন্তাও থাকে না। প্রসঙ্গত, ১৪০ গ্রাম পেঁপেতে মাত্র ৬০ ক্যালরি, ০.৪ গ্রাম ফ্যাট, ১৫.৭ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট এবং ২.৫ গ্রাম ফাইবার থাকে। আরে কোলেস্টেরলের কথা বলতে ভুলে গেলাম কি? ওটা ভুলে গেলেও অসুবিধা নেই। কারণ পেঁপেতে একেবারেই কোলেস্টেরল নেই। এই কারণেই তো অতিরিক্ত ওজন কমাতে এতটা সাহায্য করতে পারে পেঁপে।

For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS
For Daily Alerts

    English summary

    মায়া সভ্যতার কথা শুনেছেন? জানেন তো, তাঁরা পেঁপে এবং পেঁপে গাছকে ভীষণ পবিত্র বলে গণ্য করত। কেন জানেন?

    The enzyme papain present in papaya is known to aid digestion by breaking down proteins. Therefore, a glass of papaya juice is often recommended as a home remedy for digestion-related problems or constipation.
    Story first published: Saturday, August 26, 2017, 16:05 [IST]
    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Boldsky sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Boldsky website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more