For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

নিয়মিত ১০০ গ্রাম কাঁচা পনির খেলে কী কী উপকার মিলতে পারে জানা আছে?

|

আধুনিক চিকিৎসার পাশাপাশি প্রাকৃতিক চিকিৎসার দিকেও যে ভারতীয়দের নজর ফিরছে সে বিষয়ে আর কোনও সন্দেহ নেই! তাই তো গত কয়েক বছরে শরীরকে চাঙ্গা রাখতে নানাবিধ ঘরোয়া টোটকার উপর ভরসা রাখছেন এ দেশের যুবসমাজ। আর ঠিক এই কারণেই আজ এই প্রবন্ধটি পড়া সবারই একান্ত প্রয়োজন। কেন জানেন?

আসলে পনির সহযোগে নানা মুখরোচক পদের জনপ্রিয়তা আকাশ ছোঁয়া হলেও কাঁচা পনির খাওয়ার উপকারিতা সম্পর্কে অনেকেই হয়তো জানেন না। তাই তো এই প্রবন্ধে কাঁচা পনিরের নানা উপকারিতা সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে, যে সম্পর্কে পড়তে পড়তে আপনার চোখ যে কপালে উঠে যাবেই যাবে, সে বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই। প্রসঙ্গত, পনিরে উপস্থিত সোডিয়াম, পটাশিয়াম, কার্বোহাইড্রেড, ভিটামিন এ, সি, ক্যালসিয়াম, আয়রন এবং উপকারি ফ্যাট, শরীরে প্রবেশ করার পর এমন খেল দেখায় যে মাথার চুল থেকে পায়ের নখ পর্যন্ত শরীরের প্রতিটি অংশের ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। ফলে একাধিক শারীরিক উপকার পাওয়ার সম্ভাবনা যায় বেড়ে। যেমন ধরুন...

১. এনার্জির ঘাটতি মেটে:

১. এনার্জির ঘাটতি মেটে:

আজকাল কি অল্পতেই ক্লান্ত হয়ে পরছেন? তাহলে তো বন্ধু রোজের ডায়েটে পনিরের অন্তর্ভুক্তি মাস্ট! কারণ পনিরে উপস্থিত নানাবিধ উপকারি উপাদান শরীরে প্রবেশ করার পর তৎক্ষণাৎ শরীরকে চাঙ্গা করে তোলে। ফলে ক্লান্তি দূর হতে সময় লাগে না।

২. নিমেষে যন্ত্রণা কমে যায়:

২. নিমেষে যন্ত্রণা কমে যায়:

একেবারে ঠিক শুনেছেন বন্ধু! আসলে কাঁচা পনিরে উপস্থিত ওমেগা ৩ এবং ৬ ফ্যাটি অ্যাসিড শরীরে প্রবেশ করার পর এমন খেল দেখায় যে বডি পেন, পিঠের যন্ত্রণা এবং জয়েন্ট পেন কমে যেতে সময় লাগে না। সেই সঙ্গে রিউমাটয়েড আথ্রাইটিসের মতো রোগর প্রকোপ কমতেও সময় লাগে না। তাই তো বলি বন্ধু, যারা এমন ধরনের সমস্যায় প্রায়শই ভুগে থাকেন, তারা পনিরের সঙ্গে বন্ধুত্ব পাতাতে দেরি করবেন না যেন!

৩. প্রোটিনের ঘাটতি মেটে:

৩. প্রোটিনের ঘাটতি মেটে:

পেশীর উন্নতিতে যেমন কাজে লাগে, তেমনি শরীরের অন্দরে প্রতিনিয়ত ঘটে চলা নানা গুরুত্বপূর্ণ কাজ যাতে ঠিক মতো হয় সেদিকে খেয়াল রাখে প্রোটিন। তাই তো দেহে যাতে এই উপাদানটি ঘাটতি কোনও ভাবেই না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখা একান্ত প্রয়োজন। আর এই কাজটিতে আপনাকে সাহায্য করতে পারে পনির। তাই যাদের মাছ-মাংস খাওয়ার সেভাবে সুযোগ নেই, তারা পনির খাওয়া শুরু করতে পারেন। দেখবেন উপকার মিলবে।

৪. ওজন নিয়ন্ত্রণে চলে আসে:

৪. ওজন নিয়ন্ত্রণে চলে আসে:

অতিরিক্ত ওজনের কারণে কি চিন্তায় রয়েছেন? তাহলে রোজের ডায়েটে পনিরের অন্তর্ভুক্তি মাস্ট! কারণ প্রটিন সমৃদ্ধ এই খাবারটি খেলে বহুক্ষণ পেট ভরা থাকে। ফলে বারে বারে খাবার খাওয়ার প্রবণতা কমে। ফে ওজন নিয়ন্ত্রণে চলে আসতে সময় লাগে না। প্রসঙ্গত, পনিরে লাইনোলেইক অ্যাসিড নামে একটি উপাদানও রয়েছে, যা শরীরের ইতি-উতি জমে থাকা মেদকে দ্রুত গলিয়ে ফেলতে বিশেষ ভাবে সাহায্য করে। ফলে দেহের ওজন নিয়ন্ত্রণের বাইরে যাওয়া কোনও আশঙ্কাই থাকে না।

৫. হার্টের ক্ষমতা বাড়ে:

৫. হার্টের ক্ষমতা বাড়ে:

শুনতে অবাক লাগলেও একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে পনিরে উপস্থিত পটাশিয়াম, হার্টের কর্মক্ষমতা বাড়াতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। সেই সঙ্গে রক্তচাপকে স্বাভাবিক রাখতেও এই ডেয়ারি প্রডাক্টের কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে। তাই দীর্ঘদিন যদি হার্টকে চাঙ্গা রাখতে হয়, তাহলে নিয়মিত পনির খেতে ভুলবেন না যেন!

৬. রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে চলে আসে:

৬. রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে চলে আসে:

পনির রয়েছে প্রচুর মাত্রায় ম্যাগনেসিয়াম। এই খনিজটি শরীরের অন্দরে বিশেষ কিছু এনজাইমের ক্ষরণ বাড়িয়ে দেয়, যা একদিকে যেমন হাড়ের গঠনে সাহায্য করে, তেমনি ব্রেন ফাংশনে উন্নতি ঘটায় এবং রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতেও বিশেষ ভূমিকা নেয়। প্রসঙ্গত, একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে ম্যাগনেসিয়ামের কারণে শরীরে ক্ষরিত হওয়া এনাজইমগুলি রোগ প্রতিরোধ ক্ষণতার উন্নতিতেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

৭. ফলেটের ঘাটতি মেটে:

৭. ফলেটের ঘাটতি মেটে:

গর্ভাবস্থায় ভাবী মায়েদের শরীরের গঠনে এই উপাদানটি বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। শুধু তাই নয়, দেহের অন্দরে লোহিত রক্ত কণিকার ঘাটতি দূর করতেও ফলেট বিশেষ ভূমিকা নেয়। তাই তো শরীরকে সুস্থ রাখতে এই উপাদানটির কোনও সময় যাতে ঘাটতি না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখা উচিত। আর এই কাজে আপনাকে সাহায্য করতে পারে পনির। কীভাবে? বেশ কিছু গবেষণা অনুসারে এই দুগ্ধজাত খাবারটির শরীরে মজুত রয়েছে প্রচুর মাত্রায় ফলেট, যা দেহের অন্দরে এই উপকারি উপাদানটির চাহিদা মেটাতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

৮. ব্রেন স্ট্রোকের আশঙ্কা কমে:

৮. ব্রেন স্ট্রোকের আশঙ্কা কমে:

সাধারণত যে যে খনিজগুলির দেখা মেলে পনিরের শরীরে, তার মধ্যে অন্যতম হল পটাশিয়াম। এই খনিজটি ব্লাড প্রেসারকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে। আর একবার রক্তচাপ যদি নিয়ন্ত্রণে চলে আসে, তাহলে হার্ট অ্যাটাক এবং স্ট্রোকের আশঙ্কা অনেকাংশে হ্রাস পায়। প্রসঙ্গত, স্ট্রেস এবং অ্যাংজাইটি কমাতেও এই খনিজটি বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

৯. ক্যান্সারের মতো রোগকে দূরে রাখে:

৯. ক্যান্সারের মতো রোগকে দূরে রাখে:

পনিরে উপস্থিত ক্যালসিয়াম এবং ভিটামিন ডি শরীরের অন্দরে এমন খেল দেখায় যে ব্রেস্টে ক্যান্সার সেল জন্ম নেওয়ার সুযোগই পায় না। প্রসঙ্গত, হাওয়ার্ড স্কুল অব পাবলিক হেলথের একদল গবেষক টানা ১৬ বছর ধরে এই বিষয়ে গবেষণা চালিয়েছিলেন। পরীক্ষাটি চলাকালীন তারা লক্ষ করেছিলেন ব্রেস্ট ক্যান্সার প্রতিরোধে ক্যালসিয়াম এবং ভিটামিন ডি বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। আর এই দুটি উপাদান প্রচুর মাত্রায় রয়েছে পনিরে। তাই এই দুগ্ধজাত খাবারটি সপ্তাহে বার দুয়েক খেলে কী উপকার মিলতে পারে, তা নিশ্চয় আর বলে দিতে হবে না।

১০. হাড় শক্তপোক্ত হয়:

১০. হাড় শক্তপোক্ত হয়:

শরীরে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি দেখা দিলে একদিকে যেমন হাড় দুর্বল হতে শুরু করে, সেই সঙ্গে কোলন ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনও বৃদ্ধি পায়। তাই তো প্রতিদিন এক গ্লাস করে দুধ খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন চিকিৎসকেরা। কারণ দুধে এই খনিজটি রয়েছে প্রচুর মাত্রায়, যা হাড়ের পুষ্টিতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। কিন্তু সমস্যাটা হল আপনি তো দুধ খেতে পছন্দ করেন না। তাহলে করবেন কী? সেক্ষেত্রে নিয়মিত পনির খাওয়া মাস্ট! কারণ দুধের মতো অত পরিমাণে না হলেও পনিরেও রয়েছে প্রচুর মাত্রায় ক্যালসিয়াম, যা শরীরে এই খনিজটির ঘাটতি মেটাতে দারুনভাবে সাহায্য করে থাকে।

১১. দাঁতের ক্ষমতা বাড়ে:

১১. দাঁতের ক্ষমতা বাড়ে:

যেমনটা আগেও আলোচনা করা হয়েছে যে পনিরে রয়েছে প্রচুর মাত্রায় ক্যালসিয়াম, যা শরীরে প্রবেশ করার পর হাঁড়কে যেমন শক্তপোক্ত করে, তেমনি দাঁতের স্বাস্থ্যের উন্নতিতেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। সেই সঙ্গে মুখ গহ্বর সংক্রান্ত একাধিক রোগকে দূরে রাখতেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

Read more about: শরীর রোগ
English summary

What Are The Health Benefits Associated With Raw Paneer?

Paneer is all time favorite food of everyone. If it called the most famous vegetable then there will be no exaggeration. Paneer used in many vegetables and in many tasty recipes as well. Almost all people eat paneer, but very few people know about the benefits of regular consumption. Today, we will tell you about the benefits of eating raw paneer, knowing that you will also start consuming paneer.
X