প্রতিদিন মাউথ ওয়াশ ব্যবহার করলেই আক্রান্ত হবেন ডায়াবেটিসে!

Subscribe to Boldsky

বলেন কী মশাই! দাঁতকে সুস্থ রাখতে গিয়ে তো শরীর বেকায়দায় পরে যাবে। একেবারেই! সম্প্রতি একটি গবেষণা পত্র প্রকাশিত হয়েছে, তাতে এমনটা দাবী করা হয়েছে যে নিয়মিত মাউথ ওয়াশ ব্যবহার করলে ডায়াবেটিসের মতো মারণ রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা প্রায় ৫৫ শতাংশ বেড়ে যায়।

হাওয়ার্ড স্কুল অব পাবলিক হেল্থের গবেষকদের মতে মাউথ ওয়াশে উপস্থিত অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল প্রপাটিজ মুখ গহ্বরে উপস্থিত খারাপ ব্যাকটেরিয়ার মেরে ফেলার পাশাপাশি ডায়াবেটিস বিরোধী উপকারি ব্যাকটেরিয়াদের খাতম করে দেয়, যে কারণে ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা এত মাত্রায় বেড়ে যায়।

এখন প্রশ্ন হল মাউথ ওয়াশ ব্যবহার না করলে দাঁতের স্বাস্থ্যের অবস্থা খারাপ হতে কেউ আটকাতে পারবে না। কিন্তু এমন সলিউশন ব্যবহার করলে হবে অন্য বিপদ! এমন পরিস্থিতিতে কিছু কী করা যায় না, যাতে দাঁতও বাঁচবে এবং ডায়াবেটিসও দূরে থাকবে! অবশ্যই করা সম্ভব। আর সেই বিষয়েই তো এই প্রবন্ধে আলোচনা করা হল।

এমন কিছু প্রকৃতিক উপাদান আছে, যা মুখ গহ্বরে উপস্থিত ক্ষতিকারক ব্যাকটেরিয়ার মেরে ফলতে বিশেষ ভূমিকা নেয়। সেই সঙ্গে উপকারি ব্যাকটেরিয়াদের সংখ্যাও বাড়ায়। ফলে স্বাভাবিকভাবে ডায়াবেটিসের মতো ভয়ঙ্কর রোগ ধারে কাছেও ঘেঁষতে পারে না। এক্ষেত্রে যে যে প্রকৃতিক উপাদগুলি বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে, সেগুলি হল...

১. আপেল:

১. আপেল:

একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে মুখ গহ্বরের স্বাস্থ্য রক্ষার্থে বাস্তবিকই আপেলের কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে। আসলে এই ফলটির শরীরে থাকা জল, ফাইবার এবং ম্যালিক অ্যাসিড, স্যালাইভার উৎপাদন এত মাত্রায় বাড়িয়ে দেয় যে একটাও খারাপ ব্যাকটেরিয়া মুখের ভিতর থাকতে পারে না, সব ব্যাটা ধুয়ে চলে যায়। তাই মুখ পরিষ্কারের পাশাপাশি শরীরকে নানাবিধ রোগের খপ্পর থেকে বাঁচাতে প্রতিদিন একটা করে আপেল খেতে ভুলবেন না যেন!

২. চিজ:

২. চিজ:

এতে উপস্থিত ক্যালসিয়াম, ফসফরাস এবং প্রোটিন দাঁতকে এত মাত্রায় শক্তিশালী করে তোলে যে ক্যাভিটির পক্ষে দাঁতের কোনও ধরনের ক্ষতি করার সুযোগই থাকে না। তাই তো এবার থেকে মাউথ ওয়াশ নয়, ব্রেকফাস্টে চিজ স্যান্ডউইচ বানিয়ে খাওয়া শুরু করুন। দেখবেন কেমন উপকার মেলে!

৩. পালং শাক:

৩. পালং শাক:

বাঙালি খাদ্যরসিকেদর প্রিয় এই শাকটির অন্দরে থাকা ম্যাগনেসিয়াম সহ একাধিক ভিটামিন এবং মিনারেল দাঁতের একেবারে উপরের অংশ, এনামেলকে এত মাত্রায় শক্তিশালী করে তোলে যে খারাপ ব্যাকটেরিয়াদের পক্ষে কোনও ধরনের ক্ষতি করার সুযোগই থাকে না। প্রসঙ্গত, কেবল মাত্র পালং শাক নয়, যে কোনও ধরনের সুবজি সাক-সবজি খেলেই এমন উপকার মেলে। তাই পালং শাক খেতে ইচ্ছা না হলে, অন্য সবজি খেতেই পারেন।

৪. কিশমিশ:

৪. কিশমিশ:

বেশ কিছু গবেষণায় দেখা গেছে নিয়মিত এক মুঠো করে কিশিমিশ খেলে একাধিক মারণ রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা যেমন কমে, তেমনি দাঁতে পোকা হওয়া বা ওই ধরনের কোনও সমস্যা হওয়ার আশঙ্কাও একেবারে কমে যায়। আসলে কিশমিশের অন্দরে থাকা বেশ কিছু উপকারি উপাদান মুখ গহ্বরের অন্দরে স্যালাইভার উৎপাদন বাড়িয়ে দেয়। ফলে ক্যাভিটি, প্লাক সহ নানাবিধ দাঁতের সমস্যায় আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা কমে।

For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS
For Daily Alerts

    Read more about: শরীর রোগ
    English summary

    সম্প্রতি একটি গবেষণা পত্র প্রকাশিত হয়েছে, তাতে এমনটা দাবী করা হয়েছে যে নিয়মিত মাউথ ওয়াশ ব্যবহার করলে ডায়াবেটিসের মতো মারণ রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা প্রায় ৫৫ শতাংশ বেড়ে যায়।

    Have you been using mouthwash on a daily basis? May it is time to stop as it may raise the risk of developing diabetes. According to a study, using mouthwash twice a day significantly raises the risk of developing type-2 diabetes. US researchers from the Harvard School of Public Health claim that washing with the anti-bacterial fluid could be killing beneficial microbes which live in the mouth and protect against the conditions. According to the research, people who used the product twice a day were around 55 percent more likely to develop diabetes or dangerous blood sugar spikes, known as pre-diabetes, within three years.
    Story first published: Friday, November 24, 2017, 12:03 [IST]
    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Boldsky sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Boldsky website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more