For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

করোনা ভাইরাসকে সঙ্গে নিয়ে বাঁচবেন কীভাবে, দেখে নিন

|

সময়ের সাথে সাথে সব ঠিক হয়ে যাবে, করোনা মুক্ত হবে পৃথিবী। ছন্দে ফিরবে মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা। এই আশা নিয়ে করোনাকে প্রতিরোধ করতে ৫০ দিনেরও বেশি সময় ধরে গৃহবন্দি অবস্থায় আছেন মানুষেরা। হয়তো অনেকেই ভেবেছিল ঠিকঠাক স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললে রোধ করা যাবে মারণ করোনা ভাইরাসকে। কিন্তু কই? দিন দিন বেড়েই চলেছে সংক্রমণের সংখ্যা। প্রাণ কেড়ে নিচ্ছে বহু মানুষের। মাথায় হাত পড়েছে গবেষকমহলে।

How to co-exist with coronavirus

বিশ্বের মানুষ তাকিয়ে আছে ভাইরাস রোধ করার জন্য ঔষধ বা টিকা আবিষ্কারের দিকে। কিন্তু এখনও অবধি সেরকম কোনও সুখবর পাওয়া যায়নি। দিনের পর দিন উপসর্গের চরিত্র বদলের ফলে চিন্তিত হয়ে পড়েছেন বিজ্ঞানী থেকে চিকিৎসকেরা, বাধা পড়ছে ঔষধ বা টিকা আবিষ্কারে। শেষমেষ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO) জানিয়েই দিল, পৃথিবী ছেড়ে যাচ্ছে না নোভেল করোনা ভাইরাস। যতদিন টিকা আবিষ্কার না হচ্ছে, ততদিন ডেঙ্গি ও এইডস (HIV) এর মতোই করোনা ভাইরাসকে সঙ্গে নিয়ে বাঁচতে হবে আমাদের। ধীরে ধীরে বসবাসের কৌশল শিখে নিতে হবে সকলকে।

করোনা ভাইরাস : সামাজিক দূরত্ব কী? জেনে নিন কোভিড-১৯ প্রতিরোধে এর গুরুত্ব

হয়তো অনেকেই ভেবেছেন সরকারের তরফ থেকে লকডাউন খুললেই শুরু হবে স্বাভাবিক জীবনযাত্রা। আড্ডা, পার্টি, ঘুরতে যাওয়া ইত্যাদি ফিরে আসবে জীবনে। যদি এরকম কিছু ভেবে থাকেন তবে ভুল ভাবছেন। টিকা আবিষ্কৃত না হওয়া পর্যন্ত চিকিৎসকদের পরামর্শ অনুযায়ী সর্বদা সজাগ থাকতে হবে সকলকে। মেনে চলতে হবে বিশেষজ্ঞদের নির্দেশিকা। চলুন, দেখে নিন নিজেকে এবং পরিবারকে সুস্থ রাখতে কী ধরনের নিয়মগুলি সবসময় মেনে চলা আবশ্যক।

How to co-exist with coronavirus

১) বাড়ির বাইরে পা রাখলেই মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক। অফিসে থাকাকালীন, বাচ্চারা স্কুলে থাকাকালীন, দোকান, হাট-বাজার সর্বক্ষেত্রে মাস্ক পরতেই হবে।

২) শুধু মাস্ক পরলে হবে না, সঠিক নিয়ম মেনে এবং ট্রিপল লেয়ার বা ডাবল লেয়ার মাস্ক পরতে হবে। রোজদিন বাড়ি ফেরার পর সঠিক নিয়ম মেনে মাস্ক ধুতে হবে। সেক্ষেত্রে একের অধিক মাস্ক কিনে রাখুন।

৩) মাস্ক না পরে আপনি নিজে কোনও ব্যক্তির সামনে যাবেন না এবং অন্য ব্যক্তি মাস্ক না পরা অবস্থায় যাতে আপনার ২ মিটার বা ছয় ফুটের মধ্যে না আসেন সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

৪) বিশেষজ্ঞদের মতে, এই রোগ ঠেকানোর ক্ষেত্রে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ চাবিকাঠি হল হাত ধোয়া। তাই বাইরে থেকে ফিরলে বা জীবাণু থাকতে পারে এমন জায়গায় হাত দিলে নাকে, মুখে, চোখে ও শরীরের অন্যান্য জায়গায় স্পর্শ করার আগে হাত ধুয়ে ফেলুন।

How to co-exist with coronavirus

৫) হাত ধোয়া মাস্ক ব্যবহারের পাশাপাশি চশমা ব্যবহার করুন। যারা চশমা ব্যবহার করেন না তারা সাধারণ সানগ্লাস পরে বেরোন, কারণ বিশেষজ্ঞদের মতে চোখ দ্বারাও জীবাণু প্রবেশ করতে পারে শরীরে।

৬) নিয়মিত ধোয়া যায় এমন জুতো ব্যবহার করুন। একটি নয়, পারলে দুই জোড়া জুতো বাড়িতে রাখুন। আজকে একজোড়া পড়লে বাড়িতে এসে তা ভালো করে সাবান জল দিয়ে ধুয়ে পরিষ্কার করুন। পরেরদিন অন্য এক জোড়া জুতো পরুন। এভাবে পরিবর্তন করে ব্যবহার করুন।

৭) বাইরে থেকে বাড়িতে এলে সঙ্গে সঙ্গে সাবান দিয়ে হাত, পা, মুখ ধুয়ে নিন। পরিবর্তন করে ফেলুন পরনের কাপড় এবং সাবান জলে কেচে নিন। পারলে আপনি নিজেও স্নান করে নেবেন।

৮) অফিসে থাকাকালীন বাইরের খাবার খাওয়া এড়িয়ে চলুন। বাড়ি থেকেই খাবার নিয়ে যান। খাওয়ার আগে ভালো করে হাত ধুয়ে কিংবা অ্যালকোহল বেসড হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে হাত পরিষ্কার করুন।

How to co-exist with coronavirus

৯) ভিড়ের মধ্যে যাওয়া এড়িয়ে চলুন। সোশ্যাল ডিস্ট্যান্স বা সামাজিক দূরত্ব মেনে চলুন।

১০) রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে ঠিক রাখতে রোজ পুষ্টিকর খাবার খান এবং এর সঙ্গে অল্প শরীরচর্চা বা ব্যায়াম করুন। পাশাপাশি সকালের ব্রেকফাস্ট এবং ডিনারের সঠিক সময় মেনে চলুন ও সঠিক সময়ে ঘুমোতে যান।

১১) জিম, বিউটি পার্লার, নাইট ক্লাব, শপিং মল ইত্যাদি জায়গায় যাওয়া থেকে বিরত রাখুন।

১২) শরীরের চাহিদা অনুযায়ী জল গ্রহণ করুন।

English summary

How to co-exist with coronavirus?

How to co-exist with coronavirus?
X