ওয়াল্ড অ্যালঝাইমার ডে: ম্যাগনেসিয়ামের অভাবে ফুঁটো হয়ে যেতে পারে স্মৃতির ভান্ডার!

Written By:
Subscribe to Boldsky

জল রয়েছে এমন একটি টিনের কৌটো যদি ফুঁটো হয়ে যায়, তাহলে কী হবে? কী হবে আবার! ভেতরে থাকা জল সেই ফুঁটো দিয়ে বেরিয়ে যাবে।

একেবারেই! একদম ঠিক বলেছেন। আচ্ছা এই কৌটোটা যদি মস্তিষ্ক হয়, আর জলটা যদি হয় স্মৃতির ভান্ডার, তাহলে! সেক্ষেত্রে ফুঁটো দিয়ে স্মৃতি তো হারিয়ে যাবেই। সেই সঙ্গে জীবন হয়ে উঠবে একটা ফাঁকা স্লেটের মতো। ফলে প্রাণ তো থাকবে। কিন্তু বেঁচে তাকা হয়ে উঠবে মারাত্মক কষ্টকর!

আপনিও কি চান এমন ভযঙ্কর জীবন? না, একেবারেই না! তাহলে তো মশাই শরীরে ম্যাগনেসিয়ামের ঘাটতি হচ্ছে কিনা সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। কারণ সম্প্রতি নেদারল্যান্ডের একদল গবেষক একটি পরীক্ষা চালিয়ে জেনেছেন, দেহে এই খনিজটির অভাব দেখা দিলে স্মৃতিলোপের আশঙ্কা মারাত্মক বৃদ্ধি পায়।

প্রসঙ্গত, এখনও পর্যন্ত ডিমেনশিয়া রোগ সারিয়ে তোলার কোনও ওষুধ আবিষ্কার হয়নি। তাই এমন কোনও ভুল করা উচিত নয়, যা থেকে মস্তিষ্কের মারাত্মক ক্ষতি হয়ে যেতে পারে। সেই কারণেই তো নিয়মিত ম্যাগনেসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার খাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকেরা। আসলে শরীরে এই খনিজটি ঠিক পরিমাণে থাকলে মস্তিষ্কের কোনও ধরনের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা কমে যায়। শুধু তাই নয়, ব্রেন পাওয়ার এতটা বৃদ্ধি পায় যে বুদ্ধি এবং মনোযোগের উন্নতি ঘটে।

এখন প্রশ্ন হল কোন কোন খাবারে রয়েছে পর্যাপ্ত পরিমাণে ম্যাগনেসিয়াম?

১. পালং শাক:

১. পালং শাক:

বাঙালির প্রিয় এই শাকটির অন্দের মজুত রয়েছে প্রায় ১৫৭ মিলিগ্রাম ম্যাগনেসিয়াম, যা আমাদের দিনের চাহিদার প্রায় ৪০ শতাংশ। তাই তো সপ্তাহে ২-৩ বার পালং শাক দিয়ে বানানো যে কোনও পদ খেতে ভুলবেন না যেন!

২. কুমড়োর বীজ:

২. কুমড়োর বীজ:

প্রায় ১ কাপ কুমড়োর বীজে দিনের চাহিদার প্রায় ২৩ শতাংশ ম্যাগনেসিয়াম মজুত থাকে, যা শরীরে অন্দরে প্রবেশ করার পর মস্তিষ্কের দেখভাল তো করেই, সেই সঙ্গে সার্বিকভাবে শরীরের সচলতা বজায় রাখতেও বিশেষ ভূমিকা নেয়।

৩. দই:

৩. দই:

স্বাস্থ্য গুণের দিক থেকে এই দুগ্ধজাত খাবারটির কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে। কারণ দই শুধু শরীরে ম্যাগনেসিয়ামের ঘাটতি মেটায় না, এর পাশাপাশি হজম ক্ষমতার উন্নতিতে, রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থাকে মজবুত করতে এবং হার্টের স্বাস্থ্যের উন্নতিতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। তাই তো নিয়মিত দই খাওয়ার পরামর্শ দেন চিকিৎসকেরা।

৪. বাদাম:

৪. বাদাম:

শরীরে ম্যাগনেসিয়ামের ঘাটতি দূর করতে বাদামের কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে। কারণ মাত্র এক আউন্স বাদাম খেলেই শরীরে প্রায় ৮০ মিলিগ্রাম ম্যাগনেসিয়ামের প্রবেশ ঘটে, যা দিনের চাহিদার প্রায় ২০ শতাংশ।

৫. কলা:

৫. কলা:

শরীরে পটাশিয়ামের ঘাটতি মেটানোর পাশাপাশি ম্যাগনেসিয়ামের চাহিদা পূরণেও এই ফলটি বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। প্রসঙ্গত, ১টা কলায় প্রায় কম-বেশি ৩২ মিলিগ্রাম ম্যাগনেসিয়াম থাকে, যা দিনের চাহিদার প্রায় ৮ শতাংশ।

৬. ডার্ক চকোলেট:

৬. ডার্ক চকোলেট:

শরীরকে নানাবিধ রোগের হাত থেকে রক্ষা করতে এই বিশেষ ধরনের চকোলেটটি দারুন উপাকারে লাগে। সেই সঙ্গে শরীরে ম্যাগনেসিয়ামের ঘাটতি মেটাতেও বিশেষ ভূমিকা নেয়। প্রসঙ্গত, এক আউন্স ডার্ক চকোলেটে প্রায় ৯৫ মিলিগ্রাম ম্যাগনেসিয়াম থাকে, যা দৈনিক চাহিদার প্রায় ২৪ শতাংশ পূরণ করে।

Read more about: রোগ, শরীর
English summary
People with both high and low levels of magnesium - an important electrolyte needed for proper muscle and nerve function - in their blood may have a greater risk of developing dementia, according to a study done by Erasmus University in the Netherlands. Magnesium is needed for the heart to function normally, regulate blood pressure and blood sugar level and helps support the body's immune system. However, people with both a low and high level of magnesium were found to be about 30 per cent more likely to develop dementia.
Story first published: Friday, September 22, 2017, 17:20 [IST]
Please Wait while comments are loading...