গড়পরতা মানুষের থেকে বেশি বুদ্ধিমান হয়ে উঠতে চান নাকি?

Posted By:
Subscribe to Boldsky

আচ্ছা কেই তার মস্তিষ্কের কতটা ব্যবহার করতে পারবেন, তা কিসের উপর নির্ভর করে? এমনটা অনেক কিছুর উপরে নির্ভর করে থাকে। কিন্তু একথা প্রায় প্রমাণিত হয়ে গেছে যে একমাত্র আইনস্টাইন ছাড়া এখনও পর্যন্ত কেউই সেভাবে তার ব্রেনের ১০ শতাংশের বেশি কাজে লাগাতে পারেননি। কিন্তু মজার বিষয় কি জানেন আপনি যদি চান, তাহলে খুব সহজেই আইনস্টাইনকে হারাতে পারেন! কীভাবে এমনটা সম্ভব তাই ভাবছেন নিশ্চয়?

একাধিক গবেষণার পর এ বিষয়ে আর কোনও সন্দেহ নেই যে বেশ কয়েকটি খাবার রয়েছে, যা নিয়মিত খাওয়া শুরু করলে মস্তিষ্কের অ্যাকটিভ জোন ১০ শতাংশ থেকে ক্রমাগত বাড়তে শুরু করে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই ব্রেন পাওয়ার বেড়ে যাওয়ার কারণে বুদ্ধির জোরও বাড়তে থাকে। শুধু তাই নয়, সেই সঙ্গে স্মৃতিশক্তি এবং মনোযোগ ক্ষমতারও উন্নতি ঘটে। তাহলে কী সিদ্ধান্ত নিলেন বন্ধু? এই প্রবন্ধে আলোচিত খাবারগুলি খেয়ে আইনস্টাইনের মতো না হলেও বাকিদের থেকে বেশি বুদ্ধিমান হয়ে উঠতে চান, নাকি বোকা হয়েই সারা জীবনটা থেকে যাওয়ার ইচ্ছা রয়েছে?

প্রসঙ্গত, সাধারণত যে যে খাবারগুলি ব্রেন পাওয়ার বাড়াতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে, সেগুলি হল...

১. কফি:

১. কফি:

শুনতে আজব লাগলেও একথার মধ্যে কোনও ভুল নেই যে নিয়মিত দুকাপ করে খাওয়া শুরু করলে শর্ট টার্ম মেমরির উন্নতি ঘটে, সেই সঙ্গে অ্যালঝেইমার্স, পার্কিনসন এবং আরও সব মস্তিষ্ক ঘটিত রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা যায় কমে। সেই সঙ্গে বুদ্ধির ধারও বাড়তে শুরু করে। তবে এক্ষেত্রে একটি বিষয় মাথায় রাখতে হবে, তা হল দিনে কিন্তু ভুলেও ২ কাপের বেশি কফি খাওয়া চলবে না। কারণ বেশি মাত্রায় কফি খেলে শরীরের মারাত্মক ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা থেকে যায়।

২. আখরোট:

২. আখরোট:

এতে রয়েছে প্রচুর মাত্রা ভিটামিন, ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড, কপার, ম্যাগনেসিয়াম এবং ফাইবার নানাভাবে মস্তিষ্কের ক্ষমতা বাড়াতে কাজে লাগে। সেই সঙ্গে দেহে উপকারি ব্যাকটেরিয়ার সংখ্যাও বাড়ায়। ফলে সবদিক থেকে মস্তিষ্কের উপকার হয়।

৩. জাম:

৩. জাম:

এই ফলটিতে উপস্থতি শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, ব্রেন সেল যাতে শুকিয়ে না যায় সেদিকে খেয়াল রাখে। সেই সঙ্গে ব্রেনের অন্দরে প্রদাহ কমানোর মধ্যে দিয়ে নানাবিধ ব্রেন ডিজিজকে দূরে রাখতেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। প্রসঙ্গত, যাদের পরিবারে অ্যালঝাইমারস বা ডিমেনশিয়ার মতো মস্তিষ্কের রোগের ইতিহাস রয়েছে, তারা যদি প্রতিদিন জাম খেতে পারেন, তাহলে দারুন উপকার মেলে।

৪. অলিভ অয়েল:

৪. অলিভ অয়েল:

দক্ষিন এশিয়ায় সাধারণত রান্না করতে অলিভ ওয়েল ব্যবহার করা হয় না। কিন্তু যদি করা হয়, তাহলে দারুন উপকার মিলতে পারে। আসলে এই তেলটিতে রয়েছে পলিফনল নামে একটি উপাদান, যা ব্রেন পাওয়ার বাড়াতে দারুন কাজে আসে। প্রসঙ্গত, একাধিক কেস স্টাডি চলাকালীন বিজ্ঞানীরা লক্ষ করেছেন পলিফেনল নামক উপাদানটি নার্ভ সেলের কর্মক্ষমতা বাড়য়ে দেয়। ফলে মস্তিষ্কের ক্ষমতা বাড়তে শুরু করে।

৫. ব্রকলি:

৫. ব্রকলি:

সালফারাফেন নামক একটি উপাদানে ভরপুর এই সবজিটি খাওয়া মাত্র শরীরে উপস্থিত ক্ষতিকর উপাদান বেরিয়ে যেতে শুরু করে। ফলে ব্রেন সেলের কোনও ধরনের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা একেবারে কমে যায়।

৬. নারকেল তেল:

৬. নারকেল তেল:

চুলের পরিচর্যায় কাজে লাগানো হলেও দক্ষিণ ভারতীয় ছাড়া আর কেউ সাধারণত নারকেলে তেলকে রান্নার কাজে লাগান না। কিন্তু যদি লাগাতে পারেন, তাহলে কেল্লাফতে! কারণ নারকেল তেলে উপস্থিত নিউরনের ক্ষমতা বাড়য়ে তোলে। সেই সঙ্গে শরীরে উপস্থিত নানাবিধ ক্ষতিকারক উপাদান যাতে মস্তিষ্কের অন্দরে কোনও ক্ষতি সাধন করতে না পারে, সেদিকেও খেয়াল রাখে। প্রসঙ্গত, নিউরনের ক্ষমতা বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে মস্তিষ্কের মধ্যে তথ্যের আদান-প্রদান আরও দ্রুত গতিতে হতে থাকে। ফলে যে কোনও কাজ নিমেষে সম্পন্ন করতে কোনও কষ্টই করতে হয় না।

৭. পালং শাক:

৭. পালং শাক:

আগা-গোড়াই বাঙালিদের এই শাকটির প্রতি একটু আলাদা রকমের একটা দুর্বলতা রয়েছে। যে কারণে দেখবেন বুদ্ধির গোড়ায় ধোঁয়া দেওয়ার প্রয়োজন পরে এমন কাজে বাঙালিরা সবসমই এগিয়ে। আর কেন থাকবে নাই বা বলুন! পালং শাকে উপস্থিত অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, ভিটামিন কে, ফলেট এবং লুটেইন ব্রেনের কর্মক্ষমতা বাড়াতে দারুন কাজে আসে। ফলে নিয়মিত এই শাকটি খেলে স্বাভাবিক ভাবেই ব্রেন পাওয়ার চোখ পরার মতো বৃদ্ধি পায়।

৮.ডিম:

৮.ডিম:

এতে রয়েছে প্রচুর মাত্রায় কোলিন এবং উপকারি কোলেস্টেরল, যা নিউরনের ক্ষমতা বৃদ্ধির মধ্যে দিয়ে সার্বিকভাবে ব্রেন পাওয়া বাড়াতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। এখানেই শেষ নয়, একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে প্রতিদিন ডিম খেলে দেহে বিশেষ এক ধরনের অ্যান্টি-অক্সিডেন্টের মাত্রা বৃদ্ধি পেতে শুরু করে, যা ব্রেন সেলের যাতে কোনও ভাবে ক্ষতি না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখে। ফলে নানাবিধ ব্রেন ডিজিজে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা অনেকাংশে হ্রাস পায়।

৯. মাছ:

৯. মাছ:

বেশি তেল রয়েছে এমন মাছে ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড নামে একটি উপাদান থাকে, যা মস্তিষ্কের ক্ষমতা বৃদ্ধিতে দারুন কাজে আসে। আসলে এই উপাদনটি ব্রেন সেলের ক্ষমতা বাড়ানোর পাশাপাশি মস্তিষ্কের যে অংশটা স্মৃতিশক্তির আঁধার, সেই অংশের ক্ষমতা বাড়াতেও সাহায্য করে।

১০. হলুদ:

১০. হলুদ:

একেবারেই ঠিক শুনেছেন! এই প্রকৃতিক উপাদানটি ব্রেন পাওয়ার বাড়াতে দারুন কাজে আসে। আসলে হলুদে উপস্থিত বেশি কিছু কার্যকরি উপাদান একদিকে যেমন মস্তিষ্কের অন্দরে প্রদাহ কমায়, তেমনি অন্যদিকে বুদ্ধির বিকাশেও সাহায্য করে। প্রসঙ্গত, সম্প্রতি প্রায় ৩০০০ বছর পুরানো একটি আয়ুর্বেদিক পুঁথির খোঁজ মিলেছে, তাতেও ব্রেন পাওয়ার বাড়াতে হলুদ কিভাবে কাজে আসে, সে বিষয়টির উল্লেখ রয়েছে।

১১. শতমূলী:

১১. শতমূলী:

এই প্রকৃতিক উপাদনটিতে রয়েছে প্রচুর মাত্রায় ফাইবার এবং এমন কিছু উপাদান, যা শরীরে মস্তিষ্কের উপকারি লাগে এমন ব্য়াকটেরিয়ার মাত্রা বৃদ্ধি করে। সেই সঙ্গে এতে উপস্থিত ফলেট এবং অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটারি উপাদানও এক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS
For Daily Alerts

    Read more about: শরীর রোগ
    English summary

    Eat for a Sharper Mind: The 11 Healthiest Brain Foods You Should Be Eating

    Most people choose their food depending on taste, convenience or their waistline but eating for a healthy brain is really a lot smarter. Research has shown that certain foods can improve brain function, protect against age-associated cognitive decline and encourage focus and clarity. Choosing the right foods can make a really important difference to the health, vitality, and functionality of this all-important organ. So if you want to nurture your think-tank, here are 11 nutrient-dense brain foods you can start incorporating into your diet today.
    Story first published: Monday, July 9, 2018, 13:00 [IST]
    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Boldsky sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Boldsky website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more