For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

করোনা ভাইরাস লকডাউন : নিজেকে ফিট রাখতে যোগাসনে মন দিন

|

বর্তমানে গোটা বিশ্বের কাছে ভিলেন হল নোভেল করোনা ভাইরাস। এই ভিলেনের থেকে বাঁচতে সকলেই তার সর্বোত্তম প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। বিশ্বের মানুষের কাছে এখন একটাই ব্রত, ভাইরাসটিকে প্রতিরোধ করা এবং নিজেকে সুস্থ রাখা। তাই এই করোনা আতঙ্কের দিনে সব থেকে জরুরি হল নিজেকে এবং পরিবারকে আক্রান্ত হওয়া থেকে বাঁচানো।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার রিপোর্ট অনুযায়ী, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বেশি হলেও এর মৃত্যুর হার কিন্তু খুবই কম, মাত্র ৩.৪ শতাংশ। বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, যাদের দেহের রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা বেশি তারা এই রোগের বিরুদ্ধে লড়তে খুবই সহায়ক হয়ে উঠবেন। সুতরাং এই ২১ দিনের লকডাউনে নিজের কাজের পাশাপাশি অবসর সময়ে নিজেকে সুস্থ রাখতে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ভিটামিন, প্রোটিন যুক্ত খাবারের পাশাপাশি কিছু যোগাসন ও শারীরিক ব্যায়াম করা অত্যন্ত প্রয়োজন।

করোনা ভাইরাস : লকডাউনের সময় যেসমস্ত খাদ্যগুলি মজুত রাখবেন

স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতে, টানা এতদিন কোনও কাজ ছাড়া বাড়িতে থাকার ফলে অলসতার পাশাপাশি শারীরিক কিছু সমস্যারও জন্ম নেয়। তাই এই মহামারির সময়ে নিজেকে সুস্থ রাখা অত্যন্ত প্রয়োজন। নিয়মিত যোগ ব্যায়াম শরীরের বিভিন্ন অস্থিসন্ধির নমনীয়তা বাড়াতে সাহায্য করে। পাশাপাশি মানসিক দুশ্চিন্তা, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো, শারীরিক শক্তি বৃদ্ধি এবং মনকে ভালো রাখতে সাহায্য করে।

তবে চলুন জেনে নেওয়া যাক লকডাউনে বাড়িতে থাকাকালীন নিজেকে ফিট রাখতে কী ধরনের যোগ ব্যায়াম করতে পারেন -

১) পদ্মাসন

১) পদ্মাসন

নিয়মিত পদ্মাসন করলে মানসিক একাগ্রতা, ধৈর্য বৃদ্ধি পায় এবং স্নায়ুবিক উত্তেজনা প্রশমিত হয়। পাশাপাশি ফুসফুস, হৃদপিন্ডের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।

পদ্ধতি

পা দুটি সামনে মেলে দিয়ে বসুন। এরপর ডান পা-টি বাঁ পায়ের উরুর উপর রাখুন এবং বাঁ পা-টি ডান পায়ের উরুর উপরে রাখুন। এই অবস্থায় হাঁটু দুটি মাটিতে ঠেকান এবং মেরুদণ্ড সোজা রেখে সামনের দিকে তাকান। এভাবে ১ মিনিট থাকুন। ৪ বার করুন।

২) প্রাণাসন

২) প্রাণাসন

এই আসনটি লিভারের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি করে। বদহজম, খিদে না পাওয়া, কোষ্ঠকাঠিন্যকে দূর করে।

পদ্ধতি

দু পা সামনে মেলে বসুন। এরপর বাঁ পা পদ্মাসনের মত ভাঁজ করে ডান পায়ের উরুর উপরে রাখুন। ডান পা টি ভাঁজ করে পায়ের গোড়ালিটি নিতম্বের কাছাকাছি আনুন। ডান হাঁটুর ওপর দিয়ে হাত রেখে আঙ্গুল পায়ের তলায় নিন। বাঁ হাতটি রাখুন বাঁ হাঁটুর উপর। মেরুদণ্ড সোজা রেখে ৩০ সেকেন্ডে এভাবেই বসে থাকুন। এভাবে মোট চারবার করুন।

ছবি সৌজন্যে

৩) ময়ূরাসন

৩) ময়ূরাসন

যোগ বিশেষজ্ঞদের মতে, ডায়াবেটিসে আক্রান্তদের জন্য এই আসনটি অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। এই আসনটি অভ্যাস করলে হজম ক্ষমতা বহুগুণ বাড়ে এবং শরীরে রক্তের প্রবাহ স্বাভাবিক থাকে। হৃদপিণ্ড ও ফুসফুসের কর্মক্ষমতাও বাড়ে।

পদ্ধতি

হাঁটু গেড়ে বসে দুই হাতের চেটো সামনের মাটিতে রাখুন। এরপর হাতের উপর ভর দিয়ে শরীরকে সোজা রেখে পা তুলে দেহ ভূমির সমান্তরালে আনুন। মাথা তুলে সামনের দিকে তাকান। স্বাভাবিকভাবে শ্বাস নেওয়া ও ছাড়ার মাধ্যমে ৩০ থেকে ৪০ সেকেন্ড স্থায়ী থাকুন। এভাবে চার থেকে পাঁচবার করুন।

৪) ধনুরাসন

৪) ধনুরাসন

এই আসনটি সারা শরীরকে রিল্যাক্স করে। মেরুদন্ড সংলগ্ন স্নায়ুর পেশী শক্তিশালী হয়। মেরুদন্ডের নমনীয়তা বৃদ্ধি পায়। পেট ও কোমরের চর্বি কমে এবং পরিপাকতন্ত্র সক্রিয় হয়। দেহে রক্ত সঞ্চালনের মাত্রা ঠিক থাকে।

পদ্ধতি

উপুড় হয়ে শুয়ে হাঁটু ভেঙে দুই হাতের সাহায্যে গোড়ালির কাছে চেপে ধরুন। ধীরে ধীরে মাথা, বুক ও পা মাটি থেকে তুলুন। মাথা যতটা সম্ভব পিছন দিকে নিন। হাঁটু এবং পা টি জোড়া রাখবেন। এভাবে তিন থেকে চার বার করুন। প্রতিবার ৩০ থেকে ৪০ সেকেন্ড স্থায়ী থাকুন।

৫) পশ্চিমোত্তানাসন

৫) পশ্চিমোত্তানাসন

এই কঠিন আসনটি করলে পিঠের ও পায়ের পেশী সতেজ হয় এবং মেরুদন্ডের নমনীয়তা বৃদ্ধি পায়। পেটের সমস্যা দূর করে। পাকস্থলী, লিভার, প্লীহা প্রভৃতির কাজ ভাল হয়। সায়াটিক নার্ভের ব্যথা দূর হয়।

পদ্ধতি

পা সামনের দিকে সোজা করে বসুন। সামনের দিকে ঝুঁকে দুই হাত দিয়ে দু পায়ের বুড়ো আঙুল ধরুন। মাথা হাঁটুতে ও কনুই মাটিতে ঠেকাবার চেষ্টা করুন। এই ব্যায়ামের ক্ষেত্রে পেট ও বুক উরুর সঙ্গে ঠেকিয়ে থাকবে। যতটা পারা যায় সামনের দিকে ঝুঁকে এই অবস্থায় ৩০ থেকে ৪০ সেকেন্ড স্থায়ী থাকুন। এভাবে চার থেকে পাঁচ বার করুন।

English summary

Coronavirus Lockdown : Yoga Poses To Practice At Home

Here are some yoga tips that you can practice in your home amid coronavirus lockdown.
We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Boldsky sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Boldsky website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more
X