হাঁটতে হাঁটতে নিমেষে কমান ওজন!

By: Swaity Das
Subscribe to Boldsky

ওজন কমানোর কথা ভাবছেন? কিন্তু হাজারো ব্যায়ামের কথা ভেবেই ক্লান্তি আসছে? তাহলে বলব, বায়্যাম না করতে চাইলে করবেন না। তবে, হাঁটুন, যত পারবেন হাঁটুন। সত্যি বলতে কী, শুধুমাত্র হেঁটেই কিন্তু আপনি অনেকটা ওজন কমিয়ে ফেলতে পারেন। তাহলে আর পক্ষে করছেন কেন? হাঁটা শুরু করে দিন। আরে আসল কথাই তো বলা হয়নি। হাঁটতে হলেও বেশ কয়েকটি বিষয় কিন্তু মাথায় রাখতেই হবে। কি সেই সব বিষয়? তাহলে পড়ে নিন বোল্ডস্কাইয়ের এই বিশেষ প্রতিবেদন।

১. প্রতিদিন ১৫,০০০ পদক্ষেপ মাস্ট!

১. প্রতিদিন ১৫,০০০ পদক্ষেপ মাস্ট!

শুনেই ভয় করছে নাকি? একদিনে ১৫,০০০ পদক্ষেপ! একটু ভয় তো হবেই। তবে বিশ্বাস করুন। এইভাবে প্রতিদিন হাঁটতে থাকলে আপনার ওজন কমবেই কমবে। তাই একবার চেষ্টা করেই দেখুনই না বন্ধু!

২. দিনে তিনবার ২০ মিনিট করে হাঁটুন:

২. দিনে তিনবার ২০ মিনিট করে হাঁটুন:

দিনের তিনবার আমরা বেশি মাত্রায় খাবার খেয়ে থাকি। প্রথমবার সকালবেলা, দ্বিতীয়বার দুপুরবেলা এবং রাতের বেলা। চিকিৎসকদের মতে, একইভাবে আমাদের তিনবার হাঁটাও উচিত। প্রতিবার খাওয়ার পরে ১৫-২০ মিনিট। এই নিয়ম মেনে হাঁটলে শরীরের জন্য খুবই ভাল। এতে রক্তে শর্করার পরিমাণ বাড়ার সুযোগ পায় না। প্রসঙ্গত, অনেকেই আছেন, যারা দিনে একবারেই ৪৫ মিনিট থেকে ১ ঘণ্টা হাঁটেন। কিন্তু কী জানেন, সেইসব মানুষ অনেক বেসি সুস্থ থাকেন, যাকা একবারে এতটা সময় না হেঁটে প্রতিবার খাোয়ার পর অল্প সময়ের জন্য হেঁটে থাকেন। তাই দ্রুত ওজন কমাতে নিয়মিত তিন সময়ে হাঁটাহাঁটি শুরু করুন। দেখবেন উপকার মিলবে।

৩. সিঁড়ি ব্যবহার করুন:

৩. সিঁড়ি ব্যবহার করুন:

যখন আমরা সিঁড়ি ভেঙে উঠি, তখন খেয়াল করে দেখবেন আমরা খুবই ক্লান্ত হয়ে পরি এবং আমাদের হৃদস্পন্দন অনেকটাই বেড়ে যায়। আসলে সিঁড়ি বেয়ে উপরে ওঠার সময়ে আমাদের মাংসপেশির ওপর বেশি মাত্রায় চাপ পরে। তাই এমনটা হয়ে থাকে। কিন্তু সেই সঙ্গে আরেকটা ভাল কাজও হয়। কী? শরীরের সচলতা বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে ওজন কমার পথ প্রশস্ত হয়। প্রসহ্গত, ইচ্ছা হলে ধীর গতিতেও সিঁড়ি বেয়ে ওটা-নামা করতে পারেন। এতে মাংসপেশির ওপর বেশি পরিমাণে চাপ তো পড়বেই না, উল্টে শরীরের কসরত হবে অনেকটা। ফলে ওজন কমতে সময় লাগবে না।

৪. হাঁটার আগে নিয়ম করে গ্রিন টি পান করুন:

৪. হাঁটার আগে নিয়ম করে গ্রিন টি পান করুন:

আমাদের শরীরে উৎসেচকের মাত্রা যত বৃদ্ধি পাবে, ততই আমাদের ওজন সঠিক থাকবে এবং অতিরিক্ত ওজন ঝরে যাবে। গ্রিন টি ঠিক এই কাজটাই করে। তার কারণ, গ্রিন টি- এর মধ্যে প্রচুর পরিমাণে ক্যাফেইন এবং ক্যাটেচিন্স থাকে, যা অতিরিক্ত ফ্যাট গলিয়ে দিতে সাহায্য করে। তাই প্রতিবার হাঁটার আগে গ্রিন টি অবশ্যই পান করবেন।

৫. হাঁটার গতিতে পরিবর্তন আনুন:

৫. হাঁটার গতিতে পরিবর্তন আনুন:

একঘেয়ে কারোরই কোনও কাজ করতে ভাল লাগে না। ঠিক একইভাবে আমাদেরও প্রতিদিন একভাবে হাঁটতে নিশ্চয় ভাল লাগবে না। তাই হাঁটার গতি বদল করুন। এতে একঘেয়েমি যেমন কাটবে, তেমনই ক্যালরি ঝরার পরিমাণ আরও ২০ শতাংশ হারে বৃদ্ধি পাবে। তবে এই পরিবর্তন মাঝে মধ্যে করুন। প্রতিদিন নয়।

৬. হাঁটার সঙ্গে করুন ওজন কমানোর ব্যায়াম:

৬. হাঁটার সঙ্গে করুন ওজন কমানোর ব্যায়াম:

ওজন কমানোর জন্য হাঁটা অবশ্যই একটি উপকারি পন্থা। যদিও আরও ভাল ফল পেতে হলে নিয়ম করে হাঁটার সঙ্গে ওজন কমানোর ব্যায়ামও অনুশীলন করুন। এতে হৃদস্পন্দন বৃদ্ধি পাবে এবং ক্যালরি দ্রুত ঝরবে।

৭. মিষ্টি জাতীয় পানীয় বর্জন করুন:

৭. মিষ্টি জাতীয় পানীয় বর্জন করুন:

ওজন কমাতে হাঁটছেন ঠিকই। সেই সঙ্গে নানারকম ঠাণ্ডা পানীয়ও খেয়ে চলেছেন? এতে কিন্তু কোনও উপকারই হবে না। কারণ এমনটা করলে শরীরে ব্যাপক হারে ক্যালরি প্রবেশ করবে। ফলে ওজন বৃদ্ধি পাবে। তাই শরীর সুস্থ রাখতে হলে এবং ওজন আয়ত্তের মধ্যে রাখতে সবার আগে মিষ্টি জাতীয় পানীয় বর্জন করুন। দেখবেন উপকার পাবেন।

৮. যখনই সুযোগ পাবেন হাঁটুন:

৮. যখনই সুযোগ পাবেন হাঁটুন:

হাঁটার কোনও বিকল্প নেই। তাই গাড়ি আর লিফ্টকে মাঝে মাঝে বিদায় জানান এবং বেশ কিছুটা হাঁটুন। এই পদ্ধতি অনুসরণ করলে ওজন কমবে চোখে পারার মতো।

৯. সঠিক পরিমাণে জল পান করুন:

৯. সঠিক পরিমাণে জল পান করুন:

একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে সঠিক পরিমাণে জল পান করলে ব্যাপক হারে ওজন কমে। গবেষণায় দেখা গেছে প্রতিদিন দেড় লিটার জল পান করলে বছরে প্রায় ১৭, ৪০০ ক্যালরি ঝরে যায়। তাই ওজন কমাতে দিনে ৩-৪ লিটার জল খাওয়া জরুরি।

১০. হাঁটুন গান শুনতে শুনতে:

১০. হাঁটুন গান শুনতে শুনতে:

হাঁটতে হাঁটতে পথটা কি খুব লম্বা মনে হচ্ছে? শরীর যত না ক্লান্ত হয়েছে, তার থেকে ঢের বেশি ক্লান্ত হয়ে পড়েছে আপনার মন? তাহলে চেষ্টা করুন কানে হেডফোন গুঁজে হাঁটতে। কানে বাজতে থাকুক মনের মতো গান। আর আপনিও নিজের অজান্তেই গানের তালে তালে পেরিয়ে যান বাকি পথ। এতে মন যেমন ভাল থাকবে, তেমনি ওজনও কমবে।

Read more about: রোগ, শরীর
English summary
Walking helps to improve your heart health. Irish scientists have reported that walking is the best exercise for sedentary individuals, especially adults, to reduce the risk of heart and cardiovascular diseases (2). In another study published in the Journal of American Geriatrics Society, scientists confirmed that men and women of 65 years of age or older, who walked for at least 4 hours every week, were at less risk of cardiovascular disease (3). So, make sure to walk for 4 hours a week to keep heart disease, cardiovascular disease, and stroke at bay.
Story first published: Tuesday, October 17, 2017, 11:00 [IST]
Please Wait while comments are loading...