গরম কালে নিয়মিত আখের রস খাওয়া উচিত কেন জানেন?

Subscribe to Boldsky

এবার গরম কালে নাকি পারদ উঠবে রেকর্ড ভাঙা উচ্চাতায়। সত্যিই যদি এমনটা হয়, তাহলে এমন তাপ প্রবাহের মাঝে শরীরকে সুস্থ রাখতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা না নিলে কিন্তু বেজায় বিপদ!

এখন প্রশ্ন হল এমন পরিস্থিতিতে সুস্থ থাকার উপায় কী? উত্তর হল আখের রস। একেবারেই ঠিক শুনেছেন! একাধিক গবেষণায় একথা প্রমাণিত হয়ে গেছে যে এই প্রকৃতিক উপাদানটির অন্দরে থাকা একাধিক উপাকারি উপাদান একদিকে যেমন শরীরের তাপমাত্রা কমিয়ে সানস্ট্রোকের হাত থেকে রক্ষা করে, তেমনি শরীরের গঠনেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

প্রসঙ্গত, সারা বিশ্বের মধ্যে আখের উৎপাদেন আমাদের দেশের স্থান একেবারে উপরের দিকে হলেও আমরা ভঙ্গুর স্বাস্থ্যের আধিকারি। কারণ সিংহভাগই জানেন না আখের রসের উপকারিতা সম্পর্কে। শুধু তাই নয়, আজকের ডেটে যে যে রোগ আমাদের ঘিরে ধরেছে, তার প্রায় সবকটির প্রকোপ কমাতেই আখ যে বিশেষ ভূমিকা নিতে পারে, সে বিষয়েও জানা নেই বেশিরভাগের। আসলে আখের রসে উপস্থিত অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, ম্যাগনেসিয়াম, ক্যালসিয়াম সহ আরও সব উপকারি উপাদান নানাভাবে শরীরের উপকারে লেগে থাকে। যেমন ধরুন...

১. ত্বকের বয়স কমায়:

১. ত্বকের বয়স কমায়:

শরীরের বয়স বাড়লে ত্বকের বয়স তো বাড়বেই! কিন্তু আপনি যদি চান, তাহলে কিন্তু এমনটা আপনার সঙ্গে নাও হতে পারে। কীভাবে এমনটা সম্ভব? একাধিক স্টাডিতে দেখা গেছে নিয়মিত আখের রস খেলে দেহের অন্দরে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ফ্লেবোনয়েডের পরিমাণ বাড়তে শুরু করে। এই দুটি উপাদান ত্বক এবং শরীরের ভিতরে উপস্থিত ক্ষতিকর টক্সিক উপাদানদের বের করে দেয়। ফলে শরীরের পাশাপাশি ত্বকের বয়স বাড়ার আশঙ্কা হ্রাস পায়।

২. কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়:

২. কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়:

হাই কোলেস্টেরলের কারণে কি চিন্তায় রয়েছেন? তাহলে আজ থেকেই আখের রস খাওয়া শুরু করুন। দেখবেন উপকার মিলবে। কারণ এই প্রকৃতিক উপাদানটিতে থাকা বেশ কিছু উপাদান খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। সেই সঙ্গে হার্টের স্বাস্থ্যের উন্নতিতেও সাহায্য করে।

৩. দাঁতের স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটায়:

৩. দাঁতের স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটায়:

প্রচুর মাত্রায় ক্যালসিয়াম থাকার কারণে নিয়মিত আখের রস খেলে হাড় শক্তপোক্ত তো হয়ই, সেই সঙ্গে দাঁতের স্বাস্থ্যেরও উন্নতি ঘটে। সেই সঙ্গে ক্যাভিটি এবং ব্যাকটেরিয়াল ইনফেকশন হওয়ার আশঙ্কাও দূর হয়।

৪. কনস্টিপেশনের মতো সমস্যা দূর করে:

৪. কনস্টিপেশনের মতো সমস্যা দূর করে:

আয়ুর্বেদ শাস্ত্র মতে আখের রসে উপস্থিত ল্যাক্সেটিভ প্রপাটিজ বাওয়েল মুভমেন্টের উন্নতি ঘটায়। ফলে কোষ্ঠকাঠিন্যের মতো সমস্যা কমতে সময়ই লাগে না। সেই সঙ্গে আখে থাকা অ্যালকেলাইন প্রপাটিজ গ্যাস-অম্বলের প্রকোপ কমাতেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

৫. রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার উন্নতি ঘটায়:

৫. রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার উন্নতি ঘটায়:

আখের শরীরে উপস্থিত অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আমাদের শরীরের অন্দরে প্রবেশ করার পর ক্ষতিকর টক্সিক উপাদানদের বের করে দেয়। ফলে দেহের রোগ প্রতিরোধী ব্যবস্থা এতটা শক্তিশালী হয়ে ওঠে যে ছোট-বড় কোনও রোগই ধারে কাছে ঘেঁষতে পারে না। সেই সঙ্গে সংক্রমণে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনাও কমে। প্রসঙ্গত, ক্যান্সার রোগকে দূরে রাখতেও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। এবার বুঝেছেন তো আখের রস খাওয়াটা কতটা জরুরি।

৬. মুখের দুর্গন্ধ দূর করে:

৬. মুখের দুর্গন্ধ দূর করে:

আখের রসের অন্দরে থাকা ক্যালসিয়াম এবং ফসফরাস মুখ গহ্বরে উপস্থিত ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়ার মেরে ফেলে। ফলে মুখের দুর্গন্ধ দূর হতে সময় লাগে না। প্রসঙ্গত, শরীরে পুষ্টির ঘাটতি দেখা দিলেও অনেক সময় মুখ থেকে বাজে গন্ধ বেরতে শুরু করে। এক্ষেত্রেও আখের রস বিশেষ ভূমিকা নেয়। কারণ এই প্রকৃতিক উপাদানটিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে খনিজ এবং মিনারেল, যা দেহের অন্দরে পুষ্টির ঘাটতি দূর করতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

৭. কিডনির কর্মক্ষমতা বাড়ায়:

৭. কিডনির কর্মক্ষমতা বাড়ায়:

বেশ কিছু গবেষণায় দেখা গেছে আখের রসে উপস্থিত একাধিক উপকারি উপাদান ইউরিনারি ট্রাক্ট ইনফেকশন সারাতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। সেই সঙ্গে কিডনি স্টোনের মতো সমস্যা দূর করতেও সাহায্য় করে। প্রসঙ্গত, কিডনি ফাংশনকে ঠিক রাখতেও আখের রসের কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে।

৮. ব্রণর প্রকোপ কমায়:

৮. ব্রণর প্রকোপ কমায়:

আখের রসে উপস্থিত আলফা হাইড্রক্সি অ্যাসিড স্কিন সেলের উৎপাদন বাড়ায়ে ব্রণর প্রকাপ কমাতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। সেই সঙ্গে ব্রণর দাগ কমাতেও সাহায্য করে থাকে। এক্ষেত্রে পরিমাণ মতো আখের রস নিয়ে মুলতানি মাটির সঙ্গে মিশিয়ে একটি পেস্ট বানিয়ে নিতে হবে। তারপর সেই পেস্ট ভাল করে মুখে লাগিয়ে ২০ মিনিট অপেক্ষা করতে হবে। সময় হয়ে গেলে ভেজা তোয়ালের সাহায্যে ভাল করে মুখটা পরিষ্কার করে নিতে হবে।

৯. লিভারের খেয়াল রাখে:

৯. লিভারের খেয়াল রাখে:

আয়ুর্বেদ শাস্ত্র সম্পর্কিত একাধিক বইয়ে এমন উল্লেখ পাওয়া যায় যে লিভারকে সুস্থ রাখতে আখের রস দারুন কাজে আসে। সেই কারণেই তো জন্ডিসের প্রকোপ কমাতে রোগীকে আখের রস খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন চিকিৎসকেরা। শুধু তাই নয়, শরীরের পুষ্টির ঘাটতি দূর করার পাশাপাশি প্রোটিনের চাহিদা মেটাতেও আখ বিশেষ ভূমিকা নেয়।

১০. এনার্জির ঘাটতি দূর করে:

১০. এনার্জির ঘাটতি দূর করে:

সারা দিন অফিস করে কি বেজায় ক্লান্ত হয়ে পরেছেন? তাহলে ঝটপট এক গ্লাস আখের রস খেয়ে ফেলুন। দেখবেন একেবারে চাঙ্গা হয়ে উঠবেন। আসলে আখের অন্দরে থাকা কার্বোহাইড্রেট, প্রোটিন, আয়রন, পটাশিয়াম এবং অন্য়ান্য় উপকারি উপাদান শরীরে প্রবেশ করার পর এনার্জির ঘাটতি দূর করে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই মন এবং শরীর, দুইই চনমনে হয়ে ওঠে। প্রসঙ্গত, আখের রস শরীরের অন্দের প্লাজমা এবং বডি ফ্লইডের ঘাটতি মেটায়। এই ভাবেও এই প্রকৃতিক উপাদানটি শরীরের কর্মক্ষমতা বাড়য়ে তোলে।

১১. রক্তে শর্করার মাত্রাকে নিয়ন্ত্রণে রাখে:

১১. রক্তে শর্করার মাত্রাকে নিয়ন্ত্রণে রাখে:

গ্লাইসেমিক ইনডেক্সে একেবারে তলার দিকে থাকার কারণে আখের রস খেলে রক্তে শর্করার মাত্রা হঠাৎ করে বেড়ে যাওয়ার কোনও আশঙ্কা থাকে না। বরং এই প্রকৃতিক উপাদানটি গ্রহণ করলে সুগার লেভেল নিয়ন্ত্রণে থাকে। তাই তো ডায়াবেটিস রোগীদের নিয়ম খরে আখের রস খাওয়া পরামর্শ দেওয়া হয়। তবে ডায়াবেটিকদের একবার চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করে আখের রস খাওয়া উচিত। কারণ জেনে নেওয়া উচিত এই রসটি খেলে তাদের শরীরে অন্য় কোনও সমস্যা হওয়ার আশঙ্কা থাকে কিনা!

For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS
For Daily Alerts

    Read more about: শরীর রোগ
    English summary

    একাধিক গবেষণায় একথা প্রমাণিত হয়ে গেছে যে এই প্রকৃতিক উপাদানটির অন্দরে থাকা একাধিক উপাকারি উপাদান একদিকে যেমন শরীরের তাপমাত্রা কমিয়ে সানস্ট্রোকের হাত থেকে রক্ষা করে, তেমনি শরীরের গঠনেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

    A glass of chilled sugarcane juice not only quenches our thirst but also invigorates us. Given its popularity to beat the heat, it is no surprise that India is one of the leading producers of sugarcane. It is called by many different names depending on the local language, but the humble sugarcane brings peace to every parched soul. Loaded with abundant carbohydrates, proteins, minerals like calcium, phosphorus, iron, zinc, and potassium, and vitamins A, B-complex, and C, sugarcane juice also keeps you in good shape.
    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Boldsky sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Boldsky website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more