ত্বকের ভাল চান তো ভুলেও বাজার চলতি ফেসওয়াশ জেল দিয়ে মুখ ধোবেন না যেন! না হলে কিন্তু...

Subscribe to Boldsky

পরিসংখ্যান বলছে সিংহভাগ শহুরে মহিলাই রাতে শুতে যাওয়ার আগে ফেসওয়াশ জেল দিয়ে মুখ ধুয়ে থাকেন। কিন্তু আপনাদের কি জানা আছে ত্বকের ভাল হবে ভেবে যেসব ফেসওয়াশ জেল ব্যবহার করা হয়ে থাকে, তার বেশিরভাগের অন্দরেই রয়েছে এমন কিছু উপাদান, যা ত্বকের উপকারে তো লাগেই না, উল্টে স্কিনের এত মাত্রায় ক্ষতি করে দেয় যে সৌন্দর্য তো কমেই, সেই সঙ্গে নানাবিধ ত্বকের রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কাও বৃদ্ধি পায়। তাই তো বন্ধু ত্বককে যদি বাঁচাতে চান, তাহলে আজ থেকেই বাজার চলতি ফেসওয়াশ জেল ব্যবহার করা বন্ধু করুন। না হলে কিন্তু...!

একাধিক স্টাডিতে দেখে গেছে বেশিরভাগ ফেসওয়াশ জেলেই সোডিয়াম লরেল সালফেট এবং মিনারেল অয়েল থাকে। থাকে আরও বেশ কিছু কেমিকালও, যা নানাভাবে ত্বকের ক্ষতি করে থাকে। বিশেষত স্কিনের অন্দরে রাসায়নিকের মাত্রা বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে ত্বকের স্বাস্থ্যের অবনতি ঘটতে সময় লাগে না। এই কারণেই তো ফেসওয়াশ জেল ব্যবহার করতে মানা করা হয়। কিন্তু সারা দিন বাড়ির বাইরে থাকার কারণে পরিবেশ দূষণ এবং ধুলো-বালির কারণে ত্বকের অন্দরে ক্ষতিকর উপাদানের মাত্রা বাড়তে শুরু করে। তাই তো দিনের শেষে মুখ না ধুলে ত্বকের তো মারাত্মক ক্ষতি হয়ে যায়! একদম ঠিক বলেছেন। তবে একথা আপনাকে কে বললো যে মুখ ধুতে গেলে কেমিকেল ভর্তি ফেসওয়াশ জেল ছাড়া আর কোনও উপায় নেই।

আলবাৎ উপায় আছে! তাই তো এই প্রবন্ধটি লেখার সিদ্ধান্ত নেওয়া। এই লেখায় এমন কতগুলি ঘরোয়া টোটকা সম্পর্কে আলোচনা করা হল, যাদেরকে কাজে লাগিয়ে ত্বকের অন্দরে জমে থাকা ময়লাকে ধুয়ে ফেলা যেমন সম্ভব হবে, তেমনি স্কিনের সৌন্দর্য বৃদ্ধি পাবে চোখে পরার মতো। প্রসঙ্গত, যে যে উপাদানগুলিকে কাজে লাগিয়ে ত্বক পরিষ্কার করা যেতে পারে, সেগুলি হল...

১. দুধ:

১. দুধ:

মিশরীয় রানী ক্লিওপেট্রার মতো যদি সুন্দরি হয়ে উঠতে চান, তাহলে ত্বকের পরিচর্যায় দুধকে কাজে লাগাতে ভুলবেন না যেন! আসলে দুধের অন্দরে থাকা ল্যাকটিক অ্যাসিড, একদিকে যেমন ত্বকের অন্দরে লুকিয়ে থাকা ক্ষতিকর উপাদানদের টেনে বের করে দেয়, তেমনি স্কিনের উপরে জমে থাকা মৃত কোষের স্তরকেও সরিয়ে দেয়। ফলে স্বাভাবিকবাবেই ত্বক উজ্জ্বল এবং সুন্দর হয়ে উঠতে সময় লাগে না। প্রসঙ্গত, ত্বকের অন্দরে হারিয়ে যাওয়া আদ্রতা ফিরিয়ে আনতেও দুধ কিন্তু বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। এখন প্রশ্ন হল, ত্বকের পরিচর্যায় কীভাবে কাজে লাগাতে হবে দুধকে? এক্ষেত্রে হাতের তালুতে অল্প পরিমাণে দুধ নিয়ে তা মুখে লাগিয়ে ভাল করে মাসাজ করতে হবে। এইভাবে প্রতিদিন যদি ত্বকের পরিচর্যা করতে পারেন, তাহলে দেখবেন আপনার ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধি পেতে সময় লাগবে না।

২. ওটসমিল:

২. ওটসমিল:

ত্বককে পরিষ্কার রাখতে বাস্তবিকই ওটসের কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে। আসলে এই খাবারটির অন্দরে থাকা একাধিক উপকারি উপাদান একদিকে যেমন ত্বকের অন্দরে পুষ্টির ঘাটতি দূর করে, তেমনি ত্বকের উপরিঅংশে জমে থাকা মৃত কোষেদের আবরণকে সরিয়ে ফেলতেও বিশেষ ভূমিকা নেয়। ফলে ত্বকের বয়স তো কমেই, সেই সঙ্গে স্কিন পরিষ্কার এবং উজ্জ্বল হয়ে ওঠে। এক্ষেত্রে পরিমাণ মতো ওটস নিয়ে ভাল করে গুঁড়ো করে নিতে হবে। তারপর তাতে অলিভ অয়েল বা জল মিশিয়ে বানিয়ে নিতে হবে একটা পেস্ট। এই পেস্টটি মুখে লাগিয়ে কিছু সময় থাকার পর হালকা গরম জল দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে মুখটা।

৩. মধু:

৩. মধু:

এই প্রাকৃতিক উপাদানটির অন্দরে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল প্রপাটিজ এবং আরও কিছু উপকারি উপাদান, যা নানাবিধ ত্বকের রোগের প্রকোপ তো কমাই, সেই সঙ্গে ত্বকের অন্দরে আদ্রতার মাত্রা বাড়িয়ে দিয়ে স্কিন টোনের উন্নতি ঘটাতে এবং ত্বকের বয়স কমাতেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। তাই তো ত্বক পরিষ্কার করতে নিয়মিত মধুকে কাজে লগানোর পরামর্শ দেওয়া হয়ে থাকে। এক্ষেত্রে আধা চামচ মধুর সঙ্গে অল্প পরিমাণ জল মিশিয়ে তা মুখে লাগিয়ে ভাল করে মাসজ করতে হবে। ১০ মিনিট পর হালকা গরম জল দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে মুখটা।

৪. লেবু:

৪. লেবু:

আপনার ত্বক কি খুব অয়েলি? তাহলে ত্বকের পরিচর্যায় লেবুকে কাজে লাগাতে ভুলবেন না যেন! হঠাৎ লেবু কেন তাই ভাবছেন তো? আসলে ত্বক বিশেষজ্ঞদের মতে এই ফলটির অন্দরে থাকা নানাবিধ উপকারি উপাদান একদিকে যেমন ত্বক পরিষ্কার করে, তেমনি পুড়ে কালো হয়ে যাওয়া ত্বককে ফর্সাও করে তোলে। ফলে সৌন্দর্য বৃদ্ধি পেতে সময় লাগে না। তাই আল্প দিনেই যদি অপরূপ সুন্দরি হয়ে উঠতে চান, তাহলে পরিমাণ মতো লেবুর রসে অল্প করে দুধ বা দই মিশিয়ে সেটি মুখে লাগান। তাহলেই দেখবেন কেল্লা ফতে!

৫. শসা:

৫. শসা:

ত্বকের সৌন্দর্য বাড়াতে শসার ভূমিকাকে কোনও ভাবেই উপেক্ষা করা সম্ভব নয়। তবে এটা কি জানা আছে ত্বককে ভিতর থেকে পরিষ্কার করতেও এই সবজি নানাভাবে সাহায্য করে থাকে। এক্ষেত্রে নিয়মিত দিনের শেষে শসার রস দিয়ে মুখে ধুতে হবে। তাহলেই দেখবেন ত্বক তো পরিষ্কার হবেই, সেই সঙ্গে স্কিনের উজ্জ্বলতাও বৃদ্ধি পাবে চোখে পরার মতো।

৬. চিনি:

৬. চিনি:

একেবারে ঠিক শুনেছেন! ত্বকের ভিতরে এবং বাইরে জমে থাকা ময়লাদের বের করে আনতে বাস্তবিকই চিনির কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে। শুধু তাই নয়, ত্বকের উপরিভাগে জমতে থাকা মৃত কোষের স্থরকে সরিয়ে ফেলার মধ্যে দিয়ে স্কিনের সৌন্দর্য বৃদ্ধিতেও চিনি বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। এক্ষেত্রে অল্প পরিমাণে চিনি নিয়ে তার সঙ্গে জল বা তেল মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে ভাল করে মাসাজ করতে হবে। তবে বেশি জোরে মাসাজ করবেন না যেন! না হলে কিন্তু ত্বকের মারাত্মক ক্ষতি হয়ে যেতে পারে।

For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS
For Daily Alerts

    Read more about: রোগ শরীর
    English summary

    6 natural face cleansers to make your skin glow naturally

    This is where homemade beauty recipes come in handy as they are a natural alternative to cosmetic products. We have broken down these solutions to keep your skin glowing into home remedies and diet that you need to follow. So sit back, relax, and read on to discover the secret to achieve that picture perfect skin.
    Story first published: Thursday, May 3, 2018, 15:29 [IST]
    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Boldsky sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Boldsky website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more