For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

রমজান মাস ২০২০ : শুরু হচ্ছে রমজান, দেখে নিন রমজানের জন্য WHO এর নির্দেশিকা

|

মুসলিম সম্প্রদায়ের কাছে রমজান মাসটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং পবিত্র মাস। এই বছর রমজান মাস শুরু হবে ২৩ এপ্রিল থেকে এবং চলবে ২৩ মে পর্যন্ত। চাঁদ দেখা দেওয়ার পর শেষ হবে রমজান মাস এবং তার পরের দিন পালিত হবে পবিত্র ঈদ। দেশব্যাপী লকডাউনের কারণে এইবছর রমজানের সেই আভা দেখা যাবে না, হয়তো সবাইকে নিজের নিজের বাড়িতে থেকেই রমজান পালন করতে হবে। তবে এটি পালনের পাশাপাশি অবশ্যই নিজেকে এবং অপরকে সুরক্ষিত রাখার জন্য কয়েকটি সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে যাতে করোনা সংক্রমণ এড়ানো যায়।

তাহলে আসুন জেনে নিন, রমজান মাসে মুসলিমদের কী ধরনের সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা দ্বারা জারি করা নির্দেশিকায় কী বর্ণিত আছে।

রমজান মাস

রমজান মাস

মুসলিম ধর্মাবলম্বীরা বিশ্বাস করেন, তাদের জন্য রমজান মাস অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ইসলামিক ক্যালেন্ডারের নবম মাস হল রমজান। চাঁদ দেখার উপর নির্ভর করে ২৯ থেকে ৩০ দিন পর্যন্ত চলে রমজান মাস। এই একমাস সূর্যোদয় থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত উপবাস বা রোজা রাখেন মুসলিমরা। এই মাসে, জীবনে পাওয়া সবকিছুর জন্য তারা ঈশ্বরকে ধন্যবাদ জানায় এবং দান-ধ্যানও করা হয়। অভাবী ও দরিদ্রদের সহায়তা করা হয়। এই মাসে মুসলিমরা মদ্যপান, ধূমপান, শারীরিক মিলন এবং যেকোনও পাপকার্য থেকে বিরত থাকেন। এই কারণে এই মাসটিকে সৎ ও উপাসনার মাস বলা হয়।

লকডাউনের মধ্যে রমজান মাস

লকডাউনের মধ্যে রমজান মাস

মুসলিম সম্প্রদায়ের লোকেরা এই পুরো মাসে রোজা রাখে এবং আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করে। মসজিদে নামাজ পড়া হয়। বন্ধুবান্ধব, আত্মীয়স্বজন এবং পরিবারের সদস্যদের নিয়ে সন্ধ্যেয় ইফতারের ব্যবস্থা করা হয়। তবে ২০২০ সালের রমজান মাস অন্যান্য বছরের চেয়ে আলাদা হতে চলেছে। করোনা ভাইরাসের কারণে সারা দেশে লকডাউন চলছে। এই অবস্থা কেবল ভারতে নয় অন্যান্য দেশেও একই অবস্থা। করোনা মহামারীর কারণে ধর্মীয় স্থান এবং মার্কেটে ভিড় না করার আদেশ দেওয়া হয়েছে। নামাজ পড়ার সময়েও সামাজিক দূরত্ব অনুসরণ করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা রমজান সম্পর্কিত নির্দেশিকা জারি করেছে

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা রমজান সম্পর্কিত নির্দেশিকা জারি করেছে

করোনা ভাইরাস মহামারির কারণে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা রমজান সম্পর্কিত কিছু নির্দেশিকা জারি করেছে। করোনা ভয়ের কারণে, এই বছর বাড়িতে থেকেই আল্লাহর কাছে প্রার্থনা এবং ইফতারের ব্যবস্থা করা নিরাপদ হবে।

হস্তরেখা বিদ্যা : শুধু হাতের রেখাই নয়, আঙুলের মধ্যে থাকা দূরত্বও অনেক গোপনীয়তা উন্মুক্ত করে

১) যদি রমজানের জন্য অনেক মানুষকে এক জায়গায় একত্রিত হওয়ার অনুমতি দেওয়া হয় তবে কোভিড -১৯ এর ঝুঁকি হ্রাস করার সম্পূর্ণ ব্যবস্থা করা উচিত।

২) রমজানের সময় একে অপরকে শুভেচ্ছা জানাতে নিজের বুকে হাত রাখুন বা মাথা নত করে শুভেচ্ছা জানান।

৩) যদি কোনও ব্যক্তির কোভিড -১৯ এর লক্ষণ থাকে তবে তার রমজান মাসে বের হওয়া এবং সবার সঙ্গে দেখা করা এড়ানো উচিত।

৪) প্রবীণ ব্যক্তি এবং কোনও গুরুতর অসুস্থতায় আক্রান্ত ব্যক্তির বাড়িতে থাকা উচিত।

৫) যদি কোনও কারণে মানুষ রমজানের নামাজের জন্য সমবেত হয়, তবে সামাজিক দূরত্ব মেনে চলা উচিত।

৬) এমনকি যদি মসজিদেও জমায়েত হয় তবে একে অপরের থেকে দূরত্ব বজায় রাখুন।

৭) রমজানে করোনার বিস্তার রোধে সরকারের সকল ব্যবস্থা নিশ্চিত করা উচিত।

৮) রমজানের সামাজিক ও ধর্মীয় উদযাপন সম্পর্কিত প্রতিটি তথ্য পরিষ্কার এবং স্পষ্ট হওয়া উচিত।

English summary

Ramadan: Who Issues COVID-19 Guidelines for Religious Practices

World Health Organization (WHO) issued interim guidelines for religious practices during the month of Ramadan.
X