For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

কী কী ফুল দিয়ে শিব ঠাকুরের পুজো করলে দেব বেজায় প্রসন্ন হন জানা আছে?

|

দেবাদিদেব হলেন সর্বশক্তিমান। তাই তো শাস্ত্রে বলে তাঁকে একবার প্রসন্ন করতে পারলে সব ধরনের কষ্ট দূর হয়। সেই সঙ্গে গৃহস্থের প্রতিটি কোনে শুভ শক্তির ক্ষমতা এতটা বেড়ে যায় যে গুড লাক রোজের সঙ্গী হয়ে ওঠে। ফলে মনের ছোট থেকে ছোটতর ইচ্ছা পূরণ হতে সময় লাগে না। সেই সঙ্গে কর্মক্ষেত্র থেকে সামাজিক জীবন, সব ক্ষেত্রেই সম্মান বৃদ্ধি পায় চোখে পরার মতো। শুধু তাই নয়, অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির পথও প্রশস্ত হয়।

শিব ঠাকুরকে প্রসন্ন করতে পারলেই কিন্তু তবেই এইসব উপকার মিলবে। তাই এখন প্রশ্ন হল, দেবাদিদেবকে খুশি রাখা যায় কীভাবে? এক্ষেত্রে প্রথমে শিব ঠাকুরের ছবি বা মূর্তি বাড়ির ঠাকুর ঘরে প্রতিষ্টিত করতে হবে। তারপর প্রতিদিন সকাল সকাল উঠে স্নান সেরে "ওম নম শিবায়", এই মন্ত্রটি উচ্চারণ করে শুরু করতে হবে দেবের অরাধনা। সেই সঙ্গে আরেকটি বিষয় মাথায় রাখতে হবে। তা হল, দেবদিদেব বেশ কয়েকটি ফুল খুব পছন্দ করেন। তাই এই ফুলগুলি দিয়ে যদি সর্বশক্তিমানের আরাধনা করা যায়, তাহলে দেবদিদেব বেজায় প্রসন্ন হন। আর এমনটা হলে কী কী উপকার মিলতে পারে, তা নিশ্চয় আর বলে দিতে হবে না!

তাহলে আর অপেক্ষা কেন বন্ধু, চলুন জেনে নেওয়া যাক শিব ঠাকুরের পছন্দের ফুল কী কী সে সম্পর্কে...

১ বেল পাতা:

১ বেল পাতা:

এটি কোনও ফুল নয় ঠিকই, কিন্তু শাস্ত্রে বলে দেবাদিদেবের পুজো করার সময় যদি বেল পাতা নিবেদন করা হয়, তাহলে শিব ঠাকুর বেজায় প্রসন্ন হন। তাই তো এই পাতাটি ছাড়া দেবের পুজো কানও ভাবেই সম্ভব হয় না। প্রসঙ্গত, এমনটা বিশ্বাস করা হয় যে বেল পাতার জন্ম হয়েছে ভগবান ব্রহ্মার শরীর থেকে। তাই তো শুধু শিব ঠাকুরের পুজো নয়, যে কোনও মাঙ্গলিক কাজেই বেল পাতার ব্যবহার চোখে পরে।

২. জবা ফুল:

২. জবা ফুল:

এই ফুলটির নাম শুনে কি অবাক হয়ে গেলেন বন্ধু! তাহলে জনিয়ে রাখি বন্ধু জবা ফুল শিব ঠাকুরের খুব পছন্দের। শুধু তাই নয়, শাস্ত্র মতে জবা ফুলের মালা দিয়ে দেবের পুজো করলে কারও করা যে কানও পাপ কাজের খণ্ডন ঘটে যায়। ফলে পাপের শাস্তি পাওয়ার আশঙ্কা যায় কমে। সেই সঙ্গে স্বর্গলাভের পথও প্রশস্ত হয়। শুধু তাই নয়, এমনটা বিশ্বাস করা হয় যে প্রতি সোমবার যদি এই ফুলটি দিয়ে দেবের অরাধনা করা হয়, তাহলে আরও বেশি মাত্রায় ফল মেলে।

৩. গোলাপ ফুল:

৩. গোলাপ ফুল:

এমনটা বিশ্বাস করা হয় যে আটটি গোলাপ ফুল দিয়ে প্রতিদিন দেবের পুজো করলে জীবন পথে সামনে আসা যে কোনও বাঁধার পাহাড় সরে যেতে সময় লাগে না। সেই সঙ্গে খারাপ শক্তির প্রভাবও কমতে শুরু করে। ফলে কোনও ধরনের বিপদ ঘটার আশঙ্কা যায় কমে।

৪. ধুতুরা ফুল:

৪. ধুতুরা ফুল:

"মুন ফ্লাওয়ার" নামে পরিচিত এই ফুলটি দিয়ে শিব ঠাকুরের পুজো করলে খারাপ শক্তি ধারে কাছেও ঘেঁষতে পারে না। সেই সঙ্গে ভূত-প্রেত এবং কালো যাদুর প্রভাবও কমতে থাকে। ফলে এই সব নেগেটিভ শক্তির প্রভাবে কোনও ধরনের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা যায় কমে। সেই সঙ্গে কালো যাদুর কারণে পরিবারের কারও শারীরিক ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনাও কমে।

৫. আকন্দ ফুল:

৫. আকন্দ ফুল:

শাস্ত্রে বলে এই ফুলটি দিয়ে প্রতি সোমবার দেবাদিদেবের অরাধনা করলে অতীতে করা যে কোনও পাপ কাজের কারণে শাস্তি পাওয়ার আশঙ্কা যায় কমে। সেই সঙ্গে স্ট্রেস এবং মানসিক অবসাদের প্রকোপ কমতে শুরু করে। প্রসঙ্গত, এক্ষেত্রে জেনে রাখা ভাল যে গত কয়েক বছরে আমাদের দেশে যে যে রোগের প্রকোপ মারাত্মক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে, তারা বেশিরভাগের সঙ্গেই স্ট্রেসের যোগ রয়েছে। তাই নিশ্চয় বুঝতেই পারছেন যে সুস্থ থাকতে আকন্দ ফুল দিয়ে দেবের অরাধনা করার প্রয়োজন কতটা।

৬. পদ্ম ফুল:

৬. পদ্ম ফুল:

অল্প সময় অনেকে অনেক টাকার মালিক হতে চান নাকি? তাহলে বন্ধু নীল পদ্ম দিয়ে শিব ঠাকুরেরে আরাধনা করতে ভুলবেন না যেন! কারণ এমনটা বিশ্বাস করা হয় যে এই ফুলটি দিয়ে সর্বশক্তিমানের আরাধনা করলে দেব তো প্রসন্ন হনই, সেই সঙ্গে গৃহস্থের অন্দরে মা লক্ষ্মীর প্রবেশ ঘটে। ফলে অর্থনৈতিক উন্নতি ঘটতে সময় লাগে না। সেই সঙ্গে কোনও সময়ে টাকার সমস্যায় পরার আশঙ্কাও যায় কমে।

৭. বকুল ফুল:

৭. বকুল ফুল:

এমনটা বিশ্বাস করা হয় যে এক মনে ওম নম শিবায় মন্ত্রটি পাঠ করতে করতে যদি দেবের সামনে বকুল ফুল নিবেদন করা যায়, তাহলে মনের সব ইচ্ছা পূরণ তো হয়ই, সেই সঙ্গে মা-বাবা হওয়ার স্বপ্ন পূরণ হতেও সময় লাগে না। শুধু তাই নয়, পরিবারের অন্দরে কোনও ধরনের কলহ মাথা চাড়া দিয়ে ওঠার আশঙ্কা যায় কমে।

Read more about: ধর্ম shivratri
English summary

Favourite flowers to Lord Shiva and benefits by offering them with devotion

Lord Shiva is worshipped mainly in two forms. The first form of worshipping is that of a Shivalinga. The Linga worship of the Lord is most common and believed to be extremely sacred amongst the Hindus. Shivalinga symbolizes creation and cosmic energy. The worship of Shivalinga represents the union of Shiva and Shakti-Parvati resulting in the creation of the universe. Hence, he is worshipped in Shivalinga form.
X