সময়ের আগে যমরাজের খপ্পরে পরতে না চাইলে এই ভুল কাজগুলি করবেন না যেন!

Written By:
Subscribe to Boldsky

বাস্তু বিশেষজ্ঞদের মতে বাড়ির প্রতিটি কোণার একটা গুরুত্ব রয়েছে। কোনও কোনায় জমের দূতেরা ঘর বাঁধে, তো কোনও স্থানে কুবের দেব নিজের আসন পাতে। তাই তো বাড়ির কিছু নির্দিষ্ট কোনাকে ঠিক ঠিক নিয়ম মেনে যদি সাজিয়ে তুলতে না পারেন, তাহলে কিন্তু বেজায় বিপদ! কারণ সেক্ষেত্রে অর্থনৈতিক ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা যেমন বৃদ্ধি পায়, তেমনি সময়ের আগে মারা যাওয়ার সম্ভাবনাও থাকে। তাই তো বলি বন্ধু পকেট ভর্তি টাকার সঙ্গে সুখ-শান্তিতে যদি বাঁচতে চান, তাহলে এই প্রবন্ধে চোখ রাখতে ভুলবেন না যেন!

এখন প্রশ্ন হল, বাড়ির কোন কোনার কেমন গুরুত্ব?

১. টাকার স্থান:

১. টাকার স্থান:

বাস্তু বিশেষজ্ঞদের মতে বাড়ির উত্তর-পশ্চিম কোন দিয়ে কুবের দেবতার প্রবেশ ঘটে। শুধু তাই নয়, সারা বাড়িতে এই জায়গাটিই হল সেই জায়গা, যেখানে সবথেকে বেশি মাত্রায় পজেটিভ শক্তি অবস্থান করে। তাই তো এই কোনাটিকে কখনও অন্ধকার করে রাখবেন না। সেই সঙ্গে আরেকটি বিষয় মাথায় রাখতে হবে। কী বিষয়? উত্তর-পশ্চিম কোণে বড় বড় আসবাব পত্র রাখবেন না। কারণ এমনটা বিশ্বাস করা হয় যে এমনটা করলে কুবের দেব গৃহস্থের অন্দরে প্রবেশ করতে পারে না। ফলে অর্থৈতিক উন্নতি ঘটার সম্ভাবনা একেবারে কমে যায়।

২. বাড়ির উত্তর কোন:

২. বাড়ির উত্তর কোন:

এমনটা বিশ্বাস করা হয় যে গৃহস্থের উত্তর দিকে যমরাজ অবস্থান করেন। তাই তো এই স্থানে ভুলেও দরজা তৈরি করবে না। কারণ এমনটা করলে বাড়িতে মৃত্যুর প্রবেশ ঘটে। ফলে মারাত্মক ক্ষতি হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা বৃদ্ধি পায়। প্রসঙ্গত, উত্তর কোনে রাখবেন না টাকার আলমারিও। কারণ এমনটা করলে মারাত্মক অর্থনৈতিক ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পায়। শুধু তাই নয়, এই ভুল কাজটি করলে পরিবারে অশান্তি বাড়তে থাকে। ফলে জীবন দুর্বিসহ হয়ে উঠতে সময় লাগে না।

৩. দক্ষিণ-পূর্ব কোন:

৩. দক্ষিণ-পূর্ব কোন:

শুনতে অবাক লাগলেও বাস্তুশাস্ত্রের উপর লেখা একাধিক বইয়ে এমনটা দাবি করা হয়েছে যে বাড়ির দক্ষিণ-পূর্ব কোণে ভুলেও পরিবারের বয়স্ক মানুষদের ঘর তৈরি করা উচিত নয়। কারণ এমনটা করলে পরিবারের প্রতিটি সদস্য়ের শরীর খারাপ হওয়ার আশঙ্কা যেমন থাকে, তেমনি গৃহস্থের অন্দরে নেগেটিভ শক্তির প্রভাব এতটা বেড়ে যায় যা একের পর এক খারাপ ঘটনা ঘটার আশঙ্কা যায় বেড়ে। প্রসঙ্গত, এক্ষেত্রে আরেকটি বিষয় মাথায় রাখতে হবে। কী বিষয়? বাড়ির এই নির্দিষ্ট কোনাটি একেবারেই ভাল নয়। তাই যতটা সম্ভব এই দক্ষিণ-পূর্ব কোনাটিকে এড়িয়ে চলার চেষ্টা করবেন। এমনটা করলে দেখবেন কোনও ধরনের ক্ষতি হবে না।

৪. উত্তর-পূর্ব কোন:

৪. উত্তর-পূর্ব কোন:

সমস্ত সঞ্চয় খরচ হয়ে যাক। সেই সঙ্গে মারাত্মক অর্থনৈতিক ক্ষতি হোক, এমনটা যদি না চান, তাহলে ভুলেও বাড়ির এই কোনায় রান্নাঘর বানাবেন না যেন! কারণ এমনটা করলে গৃহস্থ ত্যাগ করেন মা লক্ষ্মী। ফলে অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি লাভের সম্ভাবনা তো কমেই। সেই সঙ্গে পকেট খালি হয়ে যেতেও দেখবেন সময় লাগে না।

৫. আরও কিছু বিষয় মাথায় রাখতে হবে:

৫. আরও কিছু বিষয় মাথায় রাখতে হবে:

অর্থনৈতিক উন্নতির পাশাপাশি গুড লাক রোজের সঙ্গী হোক, এমনটা যদি চান, তাহলে আরও কতগুলি বিষয় মাথায় রাখতে হবে। তার মধ্যে অন্যতম হল ভুলেও কোনও দিন বাথরুম অপরিষ্কার করে রাখবেন না যেন! কারণ বাস্তু বিশেষজ্ঞদের মতে এমনটা করলে বাড়ির বাস্তু খারাপ হয়ে যায়। ফলে নেগেটিভ শক্তির মাত্রা এতটা বৃদ্ধি পায় যে খারাপ ঘটনা ঘটার আশঙ্কা যায় বেড়ে। এক্ষেত্রে আরও যে যে বিষয়গুলি খেয়াল রাখতে হবে, সেগুলি হল স্নান করার পর ভাল করে বাথরুম পরিষ্কার করে নিতে ভুলবেন না। সেই সঙ্গে খেয়াল রাখবেন বাছরুমের কোনও কোনায় যেন জল জমে না থাকে। এই নিয়মগুলি মেনে চললে দেখবেন উপকার পেতে সময় লাগবে না।

৬. জল নষ্ট করবেন না:

৬. জল নষ্ট করবেন না:

এমনটা বিশ্বাস করা হয় যে জল নষ্ট করার অভ্যাস পরিবারে অশান্তি ডেকে আনে। শুধু তাই নয়, বাস্তু বিশেষজ্ঞদের মতে বাড়ির কোনও কল থেকে জল লিক করলে মারাত্মক অর্থনৈতিক ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা বৃদ্ধি পায়। তাই যদি বড়লোক হওয়ার স্বপ্ন দেখেন, তাহলে এই বিষয়টি মাথায় রাখতে ভুলবেন না যেন!

Read more about: ধর্ম
English summary

Don't do certain things in these corners of the house

According to Vastu Shastra, each direction of the house holds a certain kind of significance --- it is said that if we follow specific directions for each corner of the house, then not only will our house remain happy and prosperous, but we will attain mental peace as well. Read on to know more about the importance of direction in the house.
Story first published: Saturday, May 5, 2018, 11:19 [IST]
We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Boldsky sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Boldsky website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more