অমৃত্তি বানানোর সহজ রেসিপি

Posted By:
Subscribe to Boldsky

বাঙালির হেঁসেলে মিষ্টির প্রবেশ অবাধ। আজ ধুতি-পাঞ্জাবি ভুলে বাঙালি যতই সাহেব সাজুক না কেন, পেটের প্রশ্নে আজও মোরা প্রাচীন পন্থী। তাই তো এই পেস্ট্রির যুগেও বঙ্গ মিষ্টান্ন রাজ করে চলেছে। আর যেহেতু উইক এন্ড শুরু হয়ে গেছে, তাই এই ছুটির দিনগুলোকে আরও একটু স্মৃতি মধুর করতে এই লেখাটা লেখা। এই প্রবন্ধের মাধ্য়মে আজ আমি আপনাদের এমন একটি পদ বানানো শেখাবো, যা যুগ যুগ ধরে বাঙালির পছন্দের তালিকায় একেবারে উপরের দিকে রয়েছে। আর সবথেকে আনন্দের বিষয় কী জানেন, এই পদটি বানানো যেমন সোজা, খেতেও তেমনি ভাল!

দোকান থেকে অমৃত্তি কিনে তো অনেক খেয়েছেন, খাইয়েছেনও। একবার বাড়িতে বানিয়ে আত্মীয়-বন্ধুদের খাওয়ান না এই মিষ্টিটি। দেখবেন দোকান থেকে কিনে তারা আর কোনও দিন অমৃত্তি খাবে না। তাহলে অপেক্ষা কিসের! চলুন শুরু করা যাক রসে স্নাত অমৃত্তি বানানোর প্রস্থুতি।

অমৃত্তি বানানোর সহজ রেসিপি

পরিবেশন করবেন- ৪ পিস

উপকরণ জোগার করতে সময় লাগবে- ৪৫ মিনিট

বানাতে সময় লাগবে- ১৫ মিনিট

উপকরণ:

১. ডাল- ২ কাপ

২. কনফ্লাওয়ার- হাফ কাপ

৩. চিনি- ৩ কাপ

৪. লাল রং- ১-২ ড্রপ (খাবারের রং)

৫. ময়দা- হাফ কাপ

৬. এলাচ- ১-২ টো

৭. পিপিং ব্য়াগ

বানানোর পদ্ধতি:

১. ডালটাকে ৪-৫ ঘন্টা জলে ভিজিয়ে রাখুন।

২. সময়ের পরে জলটা ফেলে দিয়ে মিক্সিতে ডালটা ভালো করে পিষে নিয়ে একটা পেস্ট বানিয়ে ফেলুন।

৩. যখন পেস্টটা বানচ্ছেন তখন হাফ কাপ জল তাতে দিয়ে দিন।

৪. এবার একটা কড়াই নিয়ে তাতে অল্প করে জল দিন।

৫. কড়াইয়ের জলে এবার চিনি মেশান।

৬. চিনিটা জলের মধ্য়ে ভালো করে মিশিয়ে রস তৈরি করে নিন।

৭. রসে এবার পরিমাণ মতো এলাচ মেশান।

৮. অল্প আঁচে রসটা তৈরি করে নিন। যখন দেখবেন রসটা ঘন হয়ে গেছে তখন আলাদা করে সরিয়ে রাখুন।

৯. এবার একটা বাটিতে ডালটা সংগ্রহ করুন।

১০. সেই বাটিতে ডালের সঙ্গে একে একে কনফ্লাওয়ার, ময়দা এবং লাল রং মেশান।

১১. সবকটি উপকরণ ভালো করে মাখুন।

১২. এবার একটা পিপিং ব্য়াগ নিয়ে তাতে ডালের এই মিশ্রনটা ঢেলে নিন।

১৩. কড়াইয়ে পরিমাণ মতো তেল নিয়ে গরম করুন।

১৪ যখন দেখবেন তেলটা ভালো মতন গরম হয়ে গেছে, তখন পিপিং ব্য়াগের সাহায্য়ে ডালের মিশ্রনটি কড়াইয়ে ছাড়তে থাকুন। এমনভাবে মিশ্রনটা দেবেন যাতে আমৃত্তির মতো দেখতে লাগে।

১৫. ভালো করে অমৃত্তিগুলো ভাজুন।

১৬. যখন দেখবেন অমৃত্তিগুলো ভালো করে ভাজা হয়ে গেছে, তখন সেগুলিকে রসে চোবান।

১৭. রসে ভালো করে চুবিয়ে একটা প্লেটে অমৃত্তিগুলি নিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।

English summary
The Shravana masa or the festive season has began, and the first thing that comes to our mind are the sweets! Yes, that's right. Festivals are just incomplete without having your share of the sweets, isn't it? During festivals, sometimes, the puja may consume a lot of time and energy, and you may find it difficult to prepare special sweets, as most of the time preparing sweets really does take a lot of time.
Story first published: Saturday, February 11, 2017, 16:42 [IST]
Please Wait while comments are loading...