For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

আপনার প্রিয় বন্ধুই হতে পারে সেরা জীবনসঙ্গী, দেখে নিন কারণগুলি

|

প্রায় প্রত্যেকের জীবনেই একটা সময় আসে যখন মানুষ বিয়ে করে। কেউ বিয়ে করে তাদের পছন্দের ব্যক্তির সঙ্গে, আবার কেউ কেউ করে তাদের বাবা-মায়ের পছন্দের ব্যক্তিকে। বিয়ে যেভাবেই হোক না কেন, নিঃসন্দেহে বলা যায়, বিবাহ যেকোনও ব্যক্তির জীবনেই একটি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ পর্যায়।

আপনি যখন কোনও ব্যক্তির সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন, তখন পরিবার, সমাজ আশা করে যে আপনি আপনার গোটা জীবন সেই নির্দিষ্ট ব্যক্তির সঙ্গেই কাটাবেন। কিন্তু, অনেক ক্ষেত্রে পরিস্থিতিই মানুষকে বাধ্য করে সময়ের সাথে পাল্টে যেতে।

সম্ভবত, বিবাহিত জীবনে বিভিন্ন সমস্যার কথা ভেবেই অনেকে বিয়ের ক্ষেত্রে পিছিয়ে আসে। বিশেষত, যখন অ্যারেঞ্জ ম্যারেজ হয় তখন দুজন ব্যক্তির একে অপরের সম্পর্কে কোনও ধারণাই থাকে না যে অপর জন তার জন্য সঠিক হবে কি না। আর, অচেনা কারুও সঙ্গে গোটা জীবন ব্যয় করা অত সহজ ব্যাপার নয়।

সঙ্গীর জন্য এত খরচার পরেও তার মন রাখতে পারছেন না? রইল ৯টি বাজেট-বান্ধব ডেটিং টিপস্

কিন্তু, আপনি কি কখনও আপনার বেস্ট ফ্রেন্ডকে বিয়ে করার কথা ভেবেছেন?যে আপনার দুর্বলতা, ক্ষমতা, অক্ষমতা, পছন্দ এবং অপছন্দ সম্পর্কে সবকিছু জানে এমন কারও সঙ্গে আপনার জীবনযাপন করা কেমন হবে, এই ভাবনা কি কখনও আপনার মনে এসেছে? আপনার মনে যদি এরকম কোনও সন্দেহ থাকে যে, আপনার বেস্ট ফ্রেন্ড আপনার জীবনসঙ্গী হতে পারবে কি পারবে না তাহলে, আরও জানতে এই আর্টিকেলটি পড়ুন।

১) আপনারা একে অপরকে বেশ ভালভাবে জানেন

১) আপনারা একে অপরকে বেশ ভালভাবে জানেন

আপনার বেস্ট ফ্রেন্ড আপনার সম্পর্কে খুঁটিনাটি সবকিছু জানে, যেমন - 'আপনি পরীক্ষায় কত নম্বর পান', 'কী করলে আপনি রেগে যান', 'আপনি কী খাবার খেতে পছন্দ করেন' ইত্যাদি। এছাড়া, আপনারা একে অপরের পছন্দ, অপছন্দ সম্পর্কেও জানেন। আপনার যেকোনও কুকাজে কোনওরকম সন্দেহ, সংকোচ ছাড়াই আপনার বেস্ট ফ্রেন্ড আপনার সঙ্গী হতে পারে। সুতরাং, আপনি যদি আপনার বেস্ট ফ্রেন্ডকে বিয়ে করেন, তবে একে অপরকে আলাদাভাবে চেনার, জানার কোনও ব্যাপার থাকবে না।

২) একে অপরকে অত্যন্ত বিশ্বাস করেন

২) একে অপরকে অত্যন্ত বিশ্বাস করেন

বেস্ট ফ্রেন্ড সেই হয়, যাকে আমরা চোখ বন্ধ করে বিশ্বাস করতে পারি এবং যে পরিস্থিতিই আসুক না কেন সে সর্বদা আপনার পাশে থাকবে ও প্রতিটি পরিস্থিতিতে সে আপনাকে সাপোর্ট করবে। এছাড়াও, আপনি নিশ্চিত যে, আপনার প্রিয় বন্ধু কখনোই আপনাকে আঘাত করা বা আপনার সুবিধা নেওয়ার কথা ভাববে না। উভয়ই একে অপরের মতামত, পছন্দ ও পরামর্শকে শ্রদ্ধা করে এবং যত্ন নেয়।

৩) একে অপরের দুর্বলতা সম্পর্কে ভালরকম সচেতন

৩) একে অপরের দুর্বলতা সম্পর্কে ভালরকম সচেতন

এটা ঠিক যে, আপনারা একে অপরের দুর্বলতা এবং ক্ষমতা সম্পর্কে ভালরকম অবগত। আপনার মন খারাপ, চোখের জল এই সবকিছু আপনার প্রিয় বন্ধু জানে এবং সে এটাও জানে যে, কোন সময় আপনার মুড কেমন থাকে এবং আপনার দুর্বলতা সম্পর্কে।

প্রোফাইল পিকচারই বলে দেবে আপনার ব্যক্তিত্বের ধরন!

৪) কখনোই নিজেকে বদলাতে হবে না

৪) কখনোই নিজেকে বদলাতে হবে না

প্রিয় বন্ধুর সামনে, আপনি যেমন তেমনই থাকতে পারেন, অদ্ভুত ব্যবহার বা পাগলামিও করতে পারেন কারণ আপনি জানেন যে, সে কখনই আপনার দোষ, গুণ বিচার করবে না। তার জন্য নিজেকে পাল্টাতেও হবে না বা তার পছন্দ অনুযায়ী কোনও কিছু করতে হবে না। আপনি নিজের মতো থাকতে পারবেন। আপনি তার সঙ্গে আপনার ভয়, বাসনা, আশা এবং আরও অনেক কিছু সম্পর্কে শেয়ার করতে পারবেন।

৫) আপনারা একে অপরের অত্যন্ত গোপন বিষয়গুলি জানেন

৫) আপনারা একে অপরের অত্যন্ত গোপন বিষয়গুলি জানেন

যখন তখন যে কারুর সঙ্গে গভীর অনুভূতি শেয়ার করা অনেকেই পছন্দ করে না। সেরকমই, হয়তো আপনিও আপনার অনুভূতি এবং গোপনীয়তা আপনার শুধুমাত্র প্রিয় বন্ধুর সঙ্গেই ভাগ করতে পছন্দ করেন। সে আপনার অতীত, স্কুলের ক্রাশ, কলেজের প্রেম এবং প্রত্যেকটি ভাল, খারাপ দিক সম্পর্কে জানে। কিন্তু, সে কখনোই আপনার দোষ, গুণ দিয়ে আপনাকে বিচার করবে না। আর, এটিই তাদের অনন্য করে তোলে।

৬) একে অপরের লক্ষ্য বা উদ্দেশ্য জানেন

৬) একে অপরের লক্ষ্য বা উদ্দেশ্য জানেন

আপনি এবং আপনার প্রিয় বন্ধু, একে অপরের আবেগ এবং লক্ষ্য সম্পর্কে অবগত। তাই, আপনারা একে অপরের স্বপ্ন পূরণ করতেও প্রস্তুত। এছাড়াও, আপনাদের দুজনেরই কিছু একই লক্ষ্য থাকতে পারে যা, আপনাদের আরও কাছাকাছি নিয়ে আসতে পারে।

ম্যাট্রিমনিয়াল সাইটে কোনটি ভুয়ো প্রোফাইল তা কীভাবে বুঝবেন? সহজেই বোঝার জন্য রইল কিছু টিপস্

৭) আলাদা করে একে অপরকে আকর্ষিত করতে হবে না

৭) আলাদা করে একে অপরকে আকর্ষিত করতে হবে না

অনেকেই তাদের ভালবাসার মানুষের কাছে নিজেকে আকর্ষণীয় দেখাতে চায়। কিন্তু, আপনি যদি আপনার প্রিয় বন্ধুকে বিয়ে করেন তবে, এসব নিয়ে আপনার চিন্তা করার কোনও দরকার নেই। আপনি নিজের মতো যেমন খুশি থাকতে পারবেন, নিজের মতো যা ইচ্ছা পরতে পারবেন। আপনার সঙ্গীও এ নিয়ে কোনও অভিযোগ করবে না।

৮) আপনার অনুভূতিগুলি ভাগ করার জন্য আপনার কাছে সবসময় কেউ আছে

৮) আপনার অনুভূতিগুলি ভাগ করার জন্য আপনার কাছে সবসময় কেউ আছে

বেশিরভাগ মানুষই নিজের জীবন, লক্ষ্য এবং স্বপ্ন নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়ে। এতে, অপর ব্যক্তিটির মনে হতেই পারে যে, তার অনুভূতি এবং চিন্তাগুলি শেয়ার করার মতো তার কাছে কেউ নেই। কিন্তু, আপনি যদি আপনার প্রিয় বন্ধুকে বিয়ে করেন, সেক্ষেত্রে আপনাকে আলাদা করে কাউকে হারাতে হবে না কারণ, আপনার প্রিয় বন্ধু সবসময় আপনার জন্য থাকবে। আপনারা একে অপরের উত্থান-পতনে একসঙ্গে থাকবেন। নিজের চিন্তাভাবনা, মতামত এবং অনুভূতিগুলি কোনও প্রকার দ্বিধা ছাড়াই তার সঙ্গে শেয়ার করে নিতে পারবেন।

৯) সর্বদা যেকোনও কিছু নিয়ে কথা বলতে পারবেন

৯) সর্বদা যেকোনও কিছু নিয়ে কথা বলতে পারবেন

আপনি যদি আপনার প্রিয় বন্ধুকে বিয়ে করেন তবে, আপনি কখনোই বিরক্ত হতে পারবেন না এবং আপনার কখনোই কোনও কিছু একঘেয়ে লাগবে না। আপনি তার সঙ্গে ঘণ্টার পর ঘণ্টা বিভিন্ন বিষয়ে অবিরাম কথা বলে যেতে পারেন। এক্ষেত্রে, আপনার শখ, আগ্রহ, গসিপ এবং আরও অনেক কিছুই হতে পারে।

১০) সুখী হবেন

১০) সুখী হবেন

নতুন কোনও ব্যক্তির সঙ্গে খুব সহজ বা স্বাচ্ছন্দ্য হতে বেশ কয়েক মাস সময় লাগতে পারে। কিন্তু, আপনার প্রিয় বন্ধুর সামনে আপনি সর্বদা নিজের মতো থাকতে পারবেন, যা ইচ্ছা তাই করতে পারবেন। আলাদা করে তাকে মুগ্ধ করার কোনও দরকার পড়বে না। সুখী থাকবেন।

নব দম্পতিরা যৌথ পরিবারে থেকে কীভাবে একে অপরকে সময় দেবেন? আপনাদের জন্য রইল কিছু টিপস্

এটা অস্বীকার করা যায় না যে, আপনার প্রিয় বন্ধু আপনার জীবনকে আশ্চর্যজনক এবং সুন্দর করে তুলতে পারে। প্রত্যেকে আপনার বিরুদ্ধে গেলেও সে আপনার সঙ্গেই থাকবে। সম্ভবত, সেইজন্যই প্রিয় বন্ধু সবচেয়ে ভাল জীবনসঙ্গী হতে পারে।

English summary

Reasons Why Marrying Your Best Friend Is A Wise Decision

Marrying your best friend may sound a little weird. If you are feeling strange about the idea of marrying your best buddy, then read on for the benefits of marrying your best friend.
Story first published: Thursday, January 30, 2020, 15:46 [IST]
X