For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

এশিয়ার সেরা মহিলা ক্রীড়াবিদ হিসেবে নির্বাচিত হলেন ভারতীয় বক্সিং কুইন মেরি কম

|

ভারতীয় বক্সিং দুনিয়ায় যার নাম একবাক্যে মানুষের মুখে আসে সেই বক্সিং কুইন মেরি কম আবারও আন্তর্জাতিক ক্রীড়া ক্ষেত্রে ভারতের মুখ উজ্জ্বল করলেন। আন্তর্জাতিক ক্রীড়া ক্ষেত্রে এর আগেও তিনি ভারতের নাম উজ্জ্বল করেছেন, এনে দিয়েছেন বহু পুরস্কারও। এবার, এশিয়ার সেরা মহিলা ক্রীড়াবিদ হিসেবে নির্বাচিত হলেন মেরি কম। মালয়েশিয়ায় অনুষ্ঠিত এশীয় ক্রীড়া সাংবাদিক সম্মেলনে (AIPS) তাঁকে মহাদেশের সেরা মহিলা ক্রীড়াবিদ হিসেবে নির্বাচিত করা হল। নির্বাচিত হলেও এই সম্মেলনে উপস্থিত থাকতে পারেননি ছয়বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন মেরি কম।

 Mary Kom

বুধবার মালয়েশিয়ার সেলানগোরে অনুষ্ঠিত এই সম্মেলনে অংশগ্রহণ করেন ৩০টি দেশের প্রতিনিধিরা। সেখানে এশিয়ার সেরা পুরুষ ও মহিলা ক্রীড়াবিদ নির্বাচন প্রক্রিয়া চলছিল। পাশাপাশি, এই সম্মেলনে এশিয়ার সেরা পুরুষ ও মহিলা ক্রীড়াদলকেও বাছাই করা হয়।

সম্প্রতি, বিশ্ব মহিলা বক্সিং চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন মেরি কম। বর্তমানে সেই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের জন্য কঠোর অনুশীলনে ব্যস্ত রয়েছেন তিনি। তাই মালয়েশিয়ায় অনুষ্ঠিত এই সম্মেলনে হাজির থাকতে পারেননি তিনি। চলতি বছরে এর মধ্যেই দু'টি স্বর্ণপদক জিতেছেন। বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে তাঁকে ৫১ কেজি বিভাগে নির্বাচন করা হয়েছে।

মেরি কম সম্পর্কে কিছু তথ্য :

১) তাঁর পুরো নাম এম সি মেরি কম। মণিপুরের চুরচাঁদপুর জেলার মৈরাং লামখাই, কঙ্গাথী গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন তিনি।

২) বক্সিংয়ের প্রতি তাঁর অত্যাধিক ভালোবাসা এবং সেটি ভালোভাবে চালিয়ে যাওয়ার জন্য তিনি সপ্তম শ্রেণিতে থাকাকালীন পড়াশুনা ছেড়ে দেন। পরে, তিনি অবশ্য পড়াশোনা সম্পূর্ণ করেন এবং স্নাতক সম্পন্ন করেন।

৩) স্বর্ণপদক প্রাপ্ত ভারতীয় বক্সার ডিঙ্গকো সিংয়ের সাফল্যতা তাঁকে বক্সিং-এর প্রতি অনুপ্রাণিত করেছিল।

৪) শুরুর দিকে তাঁর পরিবার তাঁর বক্সিং-কে মেনে নেননি।

৫) মাত্র ১৮ বছর বয়সে, ২০০১ সালে ওয়ার্ল্ড অ্যামেচার বক্সিং চ্যাম্পিয়নশিপে (USA ) তিনি রৌপ্য পদক অর্জন করেছিলেন।

৬) প্রায় পাঁচ বছর ধরে তিনি সঠিক এবং স্বাস্থ্যকর খাবার ছাড়াই বক্সিং চর্চা চালিয়ে যান।

৭) বক্সিং-এ তাঁর দুর্দান্ত অবদানের কারণে, আন্তর্জাতিক অ্যামেচার বক্সিং অ্যাসোশিয়েশন তাঁর নাম রেখেছিল 'ম্যাগনিফিকেন্ট মেরি'। প্রথমবার কোনও ক্রীড়াবিদকে একটি বিখ্যাত ক্রীড়া সংস্থা ডাকনাম দিয়েছিল।

৮) মাতৃত্বতা কখনোই তাঁর কেরিয়ারের পথে বাধা হয়ে দাঁড়ায়নি। প্রথমবার তিনি যমজ সন্তানের মা হওয়ার পরেও বক্সিং চালিয়ে যান।

৯) তিনি হলেন প্রথম ভারতীয় মহিলা বক্সার যিনি ২০১২ সালে AIBA চ্যাম্পিয়নশিপে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করার পর ২০১২ সালে অলিম্পিকে অংশগ্রহণ করতে পেরেছিলেন।

১০) ২০০৭ সাল থেকে তাঁর নিজের শহরে তিনি একটি বক্সিং অ্যাকাডেমি চালান, যেখানে তিনি দুঃস্থ মেয়েদের বিনামূল্যে বক্সিং প্রশিক্ষণ দেন।

১১) ২০০৩ সালে 'অর্জুন পুরষ্কার', 2006২০০৬ সালে 'পদ্মশ্রী' এবং ২০১৩ সালে 'পদ্মভূষণ' এর মতো বেশ কয়েকটি মর্যাদাপূর্ণ পুরষ্কার পেয়েছেন তিনি।

১২) ২০১৪ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত তাঁর জীবনী ভিত্তিক ছবি 'মেরি কম', যেখানে মেরি কমের চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়া।

English summary

Mary Kom Honoured As The Best Asian Female Athlete By Asian Sportswriters Union

Boxing Queen Mary Kom honoured as the Best Asian Female Athlete By Asian Sportswriters Union (AIPS) in Malaysia.
X