For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

ম্যাট্রিমনিয়াল সাইটে কোনটি ভুয়ো প্রোফাইল তা কীভাবে বুঝবেন? সহজেই বোঝার জন্য রইল কিছু টিপস্

|

বয়স ১৮ হোক বা ২৮, প্রেম করে হোক বা বাড়ি থেকে দেখেশুনে, বিয়ে করার সুপ্তবাসনা কম-বেশি সকলেরই থাকে। আর, এই ইচ্ছাকে বাস্তবে পরিপূর্ণ করতে পরিবার এবং নিজেরাই লেগে পড়ি পুরোদমে। কখনও জীবনসঙ্গী খুঁজে পাই স্কুল, কলেজের গন্ডি থেকেই, আবার কখনও পাই বিভিন্ন সোশ্যাল মাধ্যম বা অনলাইন ম্যাট্রিমনিয়াল সাইট থেকে। বিপদটা ঘটে এখানেই। ভাবছেন তো বিপদটা আসলে কি? চলুন তবে বিস্তারিত জেনে নিন।

ভারতে অনলাইন ম্যাট্রিমনিয়াল সাইটগুলির আগমনের ফলে বিয়ের ধারণাটি অনেকাংশে পরিবর্তিত হয়েছে। প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষ ভাবে ঘটক হিসেবে কাজ করে এই সাইটগুলি। এতে নিজের প্রোফাইল খুলে একটি মাত্র ক্লিকেই পেয়ে যাবেন হাজারো পাত্র-পাত্রীর ছবি। ব্যাস পছন্দ হলেই বাঁধুন গাঁটছাড়া।

বিপদটা কিন্তু এখানেই। দেখা গেছে, বিবাহ সংক্রান্ত ওয়েবসাইটে পাওয়া বিভিন্ন আইডি দ্বারাই ঘটেছে অনেক ঘটনা। প্রতারিত হয়েছেন বহু মানুষ। বিয়ের আগে কিংবা পরে বুঝতে সক্ষম হয়ে ওঠেননি মানুষটি আসলে কে? কি তার প্রকৃত পরিচয়?

আপনিও যদি জীবনসঙ্গী সন্ধানের জন্য এই জাতীয় সাইটের উপরে নির্ভর করে থাকেন, তবে সজাগ থাকুন ভুয়ো অ্যাকাউন্ট বা ভুয়ো মানুষদের থেকে। কীভাবে বুঝবেন কোনটি ভুয়ো? তার জন্য রইল কয়েকটি টিপস্।

১) বিবরণ এবং তথ্য পরীক্ষা করুন

১) বিবরণ এবং তথ্য পরীক্ষা করুন

ম্যাট্রিমনিয়াল সাইটে প্রোফাইল খুললেই আপনার সমস্ত তথ্য দেওয়া বাধ্যতামূলক। কিন্তু, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যায় সেখানকার তথ্যগুলি সঠিক নয়। তাই, কোনও ব্যক্তির সঙ্গে পরিচয় করার আগে প্রোফাইলে থাকা সমস্ত বিবরণ এবং তথ্য, অতি সাবধানে এবং সতর্কভাবে পরীক্ষা করে দেখুন। প্রোফাইলটি পরীক্ষা না করে কোনও ভাবেই আগ্রহ প্রকাশ করবেন না।

২) প্রোফাইলে থাকা ছবিটি পরীক্ষা করুন

২) প্রোফাইলে থাকা ছবিটি পরীক্ষা করুন

কথায় আছে, একটি ছবিই হাজার শব্দের অনুরুপ। তাই, কোনও ব্যক্তির প্রোফাইল পিকচার যদি আপনি ভাল করে যাচাই করেন তবে, সেখানেই আপনি তার সম্পর্কে অনেক তথ্য পেতে পারেন। যে ব্যক্তির প্রোফাইল ছবি ছাড়া, সেই অ্যাকাউন্ট থেকে দূরে থাকুন। পরবর্তীতে দেখুন, ছবিটির সাথে ব্যক্তির বয়স মেলে কি না। এই জাতীয় পরীক্ষায় অমিল খুঁজে পেলে, সন্দেহটিকে বিশ্লেষণ করুন। বারবার তাকে বিভিন্ন প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করুন এবং তার থেকে সঠিক জবাবের দাবি করতে কখনই দ্বিধাবোধ করবেন না।

৩) ঘন ঘন তথ্য পরিবর্তন

৩) ঘন ঘন তথ্য পরিবর্তন

একটি গবেষণা অনুযায়ী, ফেক অ্যাকাউন্ট তৈরি করা ব্যক্তিরা ঘন ঘন তাদের তথ্য পরিবর্তন করার চেষ্টা করে। আপনি যদি খেয়াল করেন, ব্যক্তিটি তার পেশা, শখ, বর্ণ, ধর্ম ইত্যাদির মতো গুরুত্বপূর্ন তথ্য পরিবর্তন করে চলেছে তবে বুঝবেন সেই ব্যক্তি এবং প্রোফাইলটি ভুয়ো। মানুষ যাই ভুল করুক না কেন তার পেশা, ধর্মকে নিয়ে কখনই ভুল করতে পারে না। সুতরাং, এই জাতীয় বিষয়ের প্রতি নজর রাখুন।

শরীরচর্চায় পটু কুকুরের চাকরি জিমে! ভাইরাল ভিডিয়ো

৪) অর্থ সাহায্য চাওয়া

৪) অর্থ সাহায্য চাওয়া

বর্তমান দিনে এই জাতীয় প্রতারণার ঘটনা প্রচুর শোনা যায়। সোশ্যাল মাধ্যম বা কোনও ম্যাট্রিমনিয়াল সাইটের মাধ্যমে পরিচয় হওয়ার পর বিভিন্ন কৌশলে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার মত প্রতারনার শিকার হয়েছেন বহু মানুষ।

বিভিন্ন সোশ্যাল সাইটের মাধ্যমে আপনি যে ব্যক্তির সঙ্গে দেখা করছেন সেই ব্যক্তি যদি ঘন ঘন অর্থ চাইতে থাকে, তবে যত দ্রুত সম্ভব ওই ব্যক্তির সংস্পর্শে আসা বন্ধ করুন। কারণ, আপনি প্রতারিত হতে পারেন।

এই বিষয়ে বোল্ডস্কাইকে ভুবনেশ্বরের বাসিন্দা প্রতিমা জেনা(২৫) বলেছেন, "আমার সঙ্গে এক ব্যক্তির ম্যাট্রিমনিয়াল সাইট থেকে পরিচয় হয়। তিনি থাকতেন ইংল্যান্ডে। পেশায় ইঞ্জিনিয়ার, কিন্তু ভারতীয়। দীর্ঘ ৭ থেকে ৮ মাস কেটে যাওয়ার পর আমার সঙ্গে দেখা করতে ভুবনেশ্বর আসার জন্য পাড়ি দেন তিনি। হঠাৎই, মুম্বাই এয়ারপোর্ট থেকে এক মহিলা আমাকে ফোন করেন, যিনি নিজেকে পুলিশ হিসেবে পরিচয় দিয়েছিলেন। তিনি জানান, ওই ব্যক্তির পাসপোর্ট ও টাকার কিছু সমস্যা হয়েছে। সেই সমস্যা মেটাতে প্রায় ২৫ হাজার টাকার প্রয়োজন। বিশ্বাস করে আমি ওই ব্যক্তির অ্যাকাউন্টে টাকা ট্রান্সফার করি। টাকা পাওয়া মাত্রই ওই ব্যক্তি আমার সঙ্গে সমস্ত যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়।"

৫) ব্যক্তি যদি আপনার উপর কোনও চাপ সৃষ্টি করে

৫) ব্যক্তি যদি আপনার উপর কোনও চাপ সৃষ্টি করে

অনেকেই কিছু খারাপ উদ্দেশ্য নিয়ে প্রোফাইল খুলে থাকেন এবং উদ্দেশ্যগুলি পূরণ হওয়ার পরেই তারা এই প্ল্যাটফর্ম থেকে দূরে সরে যান। এই জাতীয় ব্যক্তিরা তাদের কাজের সুবিধার্থে দেখা করার জন্য অন্যের উপর চাপ দেওয়াও শুরু করে। বিভিন্ন কৌশলে রাজি করিয়ে নেয় তারা। সজাগ থাকুন এদের থেকে। অন্যথায় বিপদে পড়তে পারেন।

বোল্ডস্কাই-এর সাথে কথা বলার সময়, দক্ষিণ কলকাতার বাসিন্দা সায়ন্তনী দাস (৩০) বলেন, "আমার বাবা-মা আমার জন্য যোগ্য পাত্র খুঁজছিলেন। তাই আমি ম্যাট্রিমনিয়াল সাইটে অ্যাকাউন্ট খুলি এবং আমার এক ব্যক্তির সাথে পরিচয় হয়। কিন্তু, আমি যখন সেই ব্যক্তির সঙ্গে কথা বলা শুরু করি তখন আমার মনে হয়, তিনি পরিবারের সদস্যদের নিয়ে কথা বলতে কম আগ্রহী এবং আমার সঙ্গে দেখা করার জন্য প্রবল উৎসাহী। আমার সন্দেহ হতেই একটু খোঁজাখুঁজি করার পর আমি জানতে পারি, সে ইতিমধ্যেই অন্য আরেকটি সম্পর্কে আছে এবং তাদের বিয়েও হতে চলেছে। এগুলি আজকাল সাইবার-ক্রাইমের সাধারণ ঘটনা হয়ে উঠেছে। শুধুমাত্র মেয়েরাই নয়, পুরুষরাও এখন একইভাবে প্রতারণার শিকার হন। আমি অনেক ভাগ্যবান যে, সে আমার খুব বেশি ক্ষতি করতে পারেননি। সকলকে আমার অনুরোধ, আপনারা এই বিষয়ে সজাগ থাকুন।"

৬) দ্রুত প্রতিক্রিয়া পাওয়া

৬) দ্রুত প্রতিক্রিয়া পাওয়া

বেশিরভাগ সময়ই দেখা যায়, যে প্রোফাইলটি ভুয়ো সেটির থেকে খুব দ্রুত প্রতিক্রিয়া আসে। যেমন - একে অপরকে বুঝে ওঠার আগেই অতিরিক্ত ভালবাসা, কেয়ার প্রকাশ করা। সবসময় দেখা করতে বলা। কিন্তু, যে প্রোফাইলটি আসল, সাধারণত তার থেকে প্রতিক্রিয়া আসতে সময় লাগে।

English summary

How to Identify fake person or profile on a matrimonial site

Here we talking about some points which will tell you how to identify fake profile or person on a matrimonial sites. Read on.
We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Boldsky sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Boldsky website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more
X