অফিসে এই জিনিসগুলি করলে আপনার সম্মান কমবে!

Posted By:
Subscribe to Boldsky

অফিস মানেই শুধু কাজ নয়, আরও অনেক কিছু। আর এই বিষয়টা নিশ্চয় কাউকে বলে দিতে হবে না। আমরা আমাদের কর্মজীবনে শুধু ভালো কাজ করেই সামনে এগতে পারি না। এক্ষেত্রে আমাদের স্বভাব, কোড অব কনডাক্ট এবং অবশ্য়ই ওয়ার্ক এথিক্স গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। তাই তো কিছু অভ্য়াস বা স্বভাব কর্মজীবনে এড়িয়ে চলাই ভালো। না হলে তা সম্মানহানীর কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে।

তাহলে চলুন জেনে ফেলা যাক সেই সব বিষয় সম্পর্কে যেগুলি অফিসে থাকাকালীন না করাই শ্রেয়। আর এমনটা করলে দেখবেন আপনার কেরিয়ারের চাকা সব সময় সামনের দিকেই এগিয়ে যাবে, কখনও থামার নামই নেবে না।

১. অপ্রয়োজনীয় কথা না বলাই ভালো:

১. অপ্রয়োজনীয় কথা না বলাই ভালো:

যা মনে আসছে তা বলে ফেলার স্বভাব ত্য়াগ করুন। পরিবর্তে সেই সব বিষয়েই নিজের মতামত দিন যেগুলির সঙ্গে অপনার কাজের সরাসরি সম্পর্ক রয়েছে।

২. সব সময় সবার মনোযোগ আকর্ষণ করার চেষ্টা করবেন না:

২. সব সময় সবার মনোযোগ আকর্ষণ করার চেষ্টা করবেন না:

প্রতিদিন আপনি ঠিক মতো কাজ করবেন, এমনটা হয় না। কোনও কোনও দিন কিছু ভুল করার জন্য় আপনাকে দু-চার কথা শুনতে হতেই পারে। এর মধ্য়ে কোনও অস্বাভাবিকতা নেই। কিন্তু তাই বলে এমন কিছু করবেন না, যাতে সবাই আপনাকে নিয়ে অকারণ সমালোচনা করে। এতে আপনার সম্মান বাড়বে না, বরং কমবে।

৩. সব কিছু নিয়ে অভিযোগ করবেন না:

৩. সব কিছু নিয়ে অভিযোগ করবেন না:

ভুলের সমালোচনা করা ভালো। কিন্তু তাই বলে সব কিছু নিয়ে গলা ফাটাবেন না। এমনটা করলে দেখবেন আপনার সহকর্মিরাই অপনাকে নিয়ে হাসাহাসি শুরু করছে। এমনটা হওয়া কিন্তু ভালো না।

৪. কারও সঙ্গে অভদ্র ব্য়বহার করবেন না:

৪. কারও সঙ্গে অভদ্র ব্য়বহার করবেন না:

আমই সবকিছু জানি, এমনটা ভেবে নিয়ে সবার সঙ্গে খারাপ ব্য়বহার করাটা একেবারেই উচিত নয়। পরিবর্তে সকলের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রাখাই শ্রেয়।

৫.চুরি করা:

৫.চুরি করা:

আপনার প্রতি সবার যে বিশ্বাস তা ভেঙে ফলবেন না। তাই তো অকারণে চুরি করার স্বভাব ভুলতে হবে। একবার ভাবুন তো, চুরি করতে গিয়ে যদি ধরা পরে যান তাহলে আপনার সম্মান থাকবে কি?

৬. দেরি করে অফিস ঢুকবেন না:

৬. দেরি করে অফিস ঢুকবেন না:

রোজ রোজ দেরি করে অফিস ঢোকার অভ্য়াস ছাড়ুন। এমনটা করলে বাকিদের মনে হতে পারে আপনি খুব স্বার্থপর এবং অপুটু।

English summary
When it is about work, there are a few rules set for our behaviour, code of conduct and work ethics that need to be followed.
Story first published: Thursday, January 19, 2017, 12:30 [IST]
Please Wait while comments are loading...