For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

Guru Gobind Singh Jayanti : জেনে নিন এই বিশেষ দিনটির ইতিহাস ও তাৎপর্য

|

শিখ ধর্মের দশম এবং শেষ গুরু, গুরু গোবিন্দ সিং-এর জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে প্রতিবছর বিশ্বজুড়ে গুরু গোবিন্দ সিং জয়ন্তী উদযাপিত হয়। এটি প্রকাশ পর্ব নামেও পরিচিত। সাধারণত ডিসেম্বর বা জানুয়ারিতে শিখ ধর্মের এই উৎসব পালন করা হয়। শিখ সম্প্রদায়ের মানুষ প্রচুর উদ্দীপনা সহকারে এই দিনটি পালন করেন। এই দিনে শিখরা একে অপরকে শুভেচ্ছা জানায় এবং গুরু গোবিন্দ সিং-এর শিক্ষা ও পথ অনুসরণ করার শপথ নেয়।

আসুন জেনে নেওয়া যাক, ২০২২ সালে কবে পড়েছে গুরু গোবিন্দ সিং জয়ন্তী এবং এই উৎসবের ইতিহাস ও তাৎপর্য সম্পর্কে।

২০২২ সালে গুরু গোবিন্দ সিং জয়ন্তীর দিনক্ষণ

২০২২ সালে গুরু গোবিন্দ সিং জয়ন্তীর দিনক্ষণ

এই বছর গুরু গোবিন্দ সিং জয়ন্তী পড়েছে ৯ জানুয়ারি, রবিবার। গুরু গোবিন্দ সিংহ ছিলেন একজন যোদ্ধা, কবি, আধ্যাত্মিক শিক্ষক এবং দার্শনিক। তিনি ছিলেন শিখধর্মের দশম গুরু, তাঁর জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যেই এই দিনটি উদযাপিত হয়। দৃক পাঞ্চাং অনুসারে, পৌষ শুক্লা সপ্তমীতে জন্মগ্রহণ করেছিলেন গুরু গোবিন্দ সিং জী।

২০২২ সালে সপ্তমী তিথি শুরু হবে ০৮ জানুয়ারি, সকাল ১০টা ৪২ মিনিটে এবং সপ্তমী তিথি শেষ হবে ০৯ জানুয়ারি, বেলা ১১টা ০৮ মিনিটে।

গুরু গোবিন্দ সিং জয়ন্তীর ইতিহাস

গুরু গোবিন্দ সিং জয়ন্তীর ইতিহাস

১৬৬৬ সালে বিহারের পাটনায় জন্মগ্রহণ করেন গুরু গোবিন্দ সিং। গুরু গোবিন্দ সিং জী ছিলেন শিখধর্মের দশম গুরু, একজন আধ্যাত্মিক নেতা, যোদ্ধা, কবি এবং দার্শনিক। শিখদের নবম গুরু তেগ বাহাদুর ও মাতা গুজরির একমাত্র সন্তান ছিলেন গোবিন্দ সিং। প্রথম জীবনে তাঁর নাম ছিল গোবিন্দ রাই। মুঘল সম্রাট ঔরঙ্গজেবের আদেশে গুরু গোবিন্দ সিং-এর পিতা অর্থাৎ শিখদের নবম গুরু, গুরু তেগ বাহাদুরের মৃত্যুদন্ডের পর, মাত্র নয় বছর বয়সে গুরু গোবিন্দ সিং-কে শিখ সম্প্রদায়ের দশম গুরু করা হয়।

বাবার মৃত্যুর পর গোবিন্দ সিং জী শিখদের নেতৃত্ব দিতে এগিয়ে আসেন এবং মুঘলদের অত্যাচারের হাত থেকে রক্ষাকর্তার ভূমিকায় অবতীর্ণ হন। গুরু গোবিন্দ সিংজির উপদেশ এবং দর্শন শিখ সম্প্রদায়ের জীবনে ঐতিহাসিক গুরুত্ব অর্জন করে। গুরু গোবিন্দ জী তাঁর শিক্ষা ও দর্শনের মাধ্যমে শিখ সম্প্রদায়ের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। মুঘল আক্রমণের হাত থেকে শিখদের রক্ষা করার জন্য লড়াই করে গিয়েছেন গুরু গোবিন্দ সিং। ১৬৯৯ সালে তিনি খালসা সম্প্রদায় প্রতিষ্ঠা করেন। এরপরেই তিনি তাঁর সমস্ত অনুসারীদের নাম দিয়েছিলেন 'সিং'। খালসার প্রথম পাঁচ সদস্যকে তিনি নাম দেন পাঁচ প্যায়ারে। ১৭০৮ সালের ৭ অক্টোবর গুরু গোবিন্দ সিং-এর মৃত্যু হয়। তিনি তাঁর মৃত্যুর আগে গুরু গ্রন্থ সাহেব-কে শিখ ধর্মের পবিত্র ধর্মগ্রন্থ হিসেবে ঘোষণা করেছিলেন।

আরও পড়ুন :গুরু গোবিন্দ সিং জয়ন্তী : জেনে নিন দশম শিখ গুরু সম্পর্কে কিছু অজানা তথ্য

গুরু গোবিন্দ সিং জয়ন্তীর তাৎপর্য এবং উদযাপন

গুরু গোবিন্দ সিং জয়ন্তীর তাৎপর্য এবং উদযাপন

গুরু গোবিন্দ সিং জী ছিলেন একজন মহান যোদ্ধা ও আধ্যাত্মিক গুরু, যাঁর বীরত্ব সম্পর্কে গোটা বিশ্ব অবগত। তিনি শিল্পকলা প্রেমিক ছিলেন, অনেকগুলি কবিতাও রচনা করেছিলেন। গোটা খালসা ও শিখ সম্প্রদায়কে নিজের সন্তান হিসেবে বিবেচনা করতেন গুরু গোবিন্দ সিং জী। তাঁর দর্শন, লেখা এবং কবিতা আজও মানুষকে অনুপ্রাণিত করে।

তিনি তাঁর জ্ঞানের মধ্যে দিয়ে তাঁর সম্প্রদায়ের মানুষদের কাছে পৌঁছেছিলেন। তাঁকে স্মরণে রাখতে, প্রতি বছর শিখ সম্প্রদায়ের মানুষরা তাঁর জন্মবার্ষিকী অত্যন্ত উদ্দীপনার সহিত উদযাপন করে।

গুরু গোবিন্দ সিং জয়ন্তীর দিন শিখ সম্প্রদায়ের মানুষরা গুরুদ্বারে যান। সেখানে গুরু গোবিন্দ সিং জী-র স্মরণে প্রার্থনা সভা হয়। গুরুদ্বার থেকে শোভাযাত্রার আয়োজন করা হয় ও কীর্তন হয়। এই দিন দরিদ্রদের সেবা করার রীতিও প্রচলিত আছে শিখ সম্প্রদায়ের মধ্যে।


English summary

Guru Gobind Singh Jayanti 2022: date, history and significance of Prakash Parv in Bengali

Guru Gobind Singh Jayanti 2022: Know all about the date, history and significance of Prakash Parv in Bengali.
X