অকারণে যদি বিপদে পরতে না চান তাহলে এই নিয়মগুলি মেনে চলতে ভুলবেন না যেন!

Subscribe to Boldsky

রাস্তা দিয়ে যাচ্ছেন, ধার দিয়েই যাচ্ছিলেন। কিন্তু হঠাৎ করে একটা বাইক এসে মেরে দিল। আর অমনি কোনও ভুল না করেই আপনার জায়গা হল হাসাপাতেল। আবার ধরুন ঠিক মতো খাচ্ছেন, ঘুমচ্ছেন, তবু যেন ক্লান্তি দূর হচ্ছে না। এমন ধরনের ঘটনা অনেকে সময়ই অনেকের সঙ্গে ঘটে থাকে। আর যখন ঘটে, তখন সিংহভাগই কখনও ভাগ্যকে দোষ দেন, নয়তো বুঝে উঠতে পারেন না কী কারণে এমন সব ঘটনা ঘটছে। তাই তো আপনাদের জানিয়ে রাখি যে আমাদের জীবনে ভাল-মন্দ যা কিছুই ঘটুক না কেন, তার সব কিছুই সঙ্গেই কিন্তু আমাদের কিছু ভুল কাজের যোগ থাকে, যে সম্পর্কে আমরা জেনে উঠতেই পারি না। তাই তো প্রতিক্ষেত্রে ভাগ্যকে দোষ দিয়ে থাকি।

যদি প্রশ্ন করেন কী ভুল কাজের জন্য এমন খারাপ সব ঘটনা ঘটে থাকে? তাহলে উত্তরে বলবো বন্ধু, এই প্রবন্ধটিতে একবার চোখ রাখুন, তাহলেই বুঝে যাবেন কীভাবে আমাদের বেশ কিছু অভ্যাস কীভাবে আমাদের ভাগ্য়কে প্রভাবিত করে থাকে।

তাহলে আর অপেক্ষা কেন চলুন শুরু করা যাক অজানাকে জেনে ফেলার যাত্রা। প্রসঙ্গত, যে যে ভুল কাজগুলির কারণে আমাদের গুড লাক, ব্যাড লাকে বদলে যায়, সেগুলি হল...

১. পাহাড়ের ছবি:

১. পাহাড়ের ছবি:

এমনটা বিশ্বাস করা হয় যে বাড়ির ড্রয়িং রুমে যদি পাহাড়ের একটা ছবি ঝোলানো হয়, তাহলে আত্মবিশ্বাস বাড়তে শুরু করে। সেই সঙ্গে মনের জোরও বৃদ্ধি পায় চোখে পরার মতো। আসলে বাস্তু বিশেষজ্ঞদের মতে এমন ধরনের ছবি সকাল-বিকাল দেখতে থাকলে আমাদের ভাবনা-চিন্তায় পরিবর্তন আসতে শুরু করে। ফলে জীবনের ছবিটা বদলে যেতে সময় লাগে না।

২. জানলাকে পিছনে রেখে বসবেন না:

২. জানলাকে পিছনে রেখে বসবেন না:

খেয়াল করে দেখবেন অনেকেই জানলার সামনে সিটিং অ্যারেঞ্জমেন্ট করে থাকেন। কিন্তু জানেন কি বাস্তুশাস্ত্র অনুসারে ভুলেও জানলাকে পিছনে রেখে বসা উচিত নয়। কারণ এমনটা করলে এনার্জির ঘাটতি দেখা দিতে শুরু করে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই কার্জকর্ম করতে মন চায় না। আর এমনটা হলে কর্মক্ষেত্রে পিছিয়ে পরার আশঙ্কাও যায় বেড়ে। সেই সঙ্গে আত্মবিশ্বাস যেমন কমে, তেমনি টেনশানের মাত্রাও বাড়তে থাকে। ফলে সুখ-শান্তি দূরে পালায়।

৩. ফাঁকা দেওয়ালের দিকে মুখ করে বসবেন না:

৩. ফাঁকা দেওয়ালের দিকে মুখ করে বসবেন না:

বাস্তু বিশেষজ্ঞদের মতে ফাঁকা দেওয়ালের সামনে মুখ করে বসলে বেজায় খারাপ প্রভাব পরে আমাদের মস্তিষ্কের উপর। ফলে একদিকে যেমন দূরদর্শিতা কমতে শুরু করে, তেমনি একাকিত্বের মাত্রা বাড়ে। ফলে মানসিক অবসাদে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা যায় কমে। তাই তো বলি বন্ধু, সুখে-শান্তিতে যদি থাকতে হয়, তাহলে ভুলেও এই ভুল কাজটি করবেন না যেন!

৪. ঘোড়ার খুরের নাল:

৪. ঘোড়ার খুরের নাল:

বাস্তুশাস্ত্র অনুসারে বাড়ির সদর দরজার সামনে ঘোড়ার খুরের নাল লাগিয়ে রাখলে গৃহস্থের অন্দরে খারাপ শক্তির প্রবেশ আটকে যায়। ফলে কোনও ধরনের খারাপ ঘটনা ঘটার আশঙ্কা যায় কমে। সেই সঙ্গে শুভ শক্তির প্রভাবে অর্থনৈতিক উন্নতি লাভের পথ যেমন প্রশস্ত হয়, তেমনি জীবনে সুখ-সমৃদ্ধির ছোঁয়া লাগতেও সময় লাগে না। প্রসঙ্গত, এক্ষেত্রে আরও একটি বিষয় মাথায় রাখতে হবে, তা হল বাড়ির পূর্ব এবং দক্ষিণ-পূর্ব দিকে ভুলেও ঘোড়ার খুরের নাল লাগাবেন না যেন! কারণ এমনটা করলে কোনও উপকার তো পাবেনই না, উল্টে নানাবিধ ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা যাবে বেড়ে।

৫. তামার কচ্ছপ:

৫. তামার কচ্ছপ:

এমনটা বিশ্বাস করা হয় যে বাড়ির উত্তর দিকে একটি জল ভর্তি পাত্রে একটি তামার কচ্ছপ রাখা শুরু করলে বাস্তু দোষ কেটে যায়। সেই সঙ্গে গৃহস্থের অন্দরে উপস্থিত খারাপ শক্তির মাত্রাও কমতে শুরু করে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই অনেক অনেক টাকার মালিক হয়ে ওঠার স্বপ্ন যেমন পূরণ হয়, তেমনি কর্মজীবনে উন্নতি লাভের পথও প্রশস্ত হয়। সেই সঙ্গে সামাজিক সম্মান বৃদ্ধির সম্ভাবনাও যায় বেড়ে। তাই তো বলি বন্ধু এই মানব জীবনকে যদি সব দিক থেকে সার্থক বানাতে হয়, তাহলে এই টোটকাটিকে কাজে লাগাতে ভুলবেন না যেন!

৬. বন্ধু হয়ে যাওয়া ঘড়ি:

৬. বন্ধু হয়ে যাওয়া ঘড়ি:

খেয়াল করে দেখবেন অনেকের বাড়িতেই বন্ধ হয়ে যাওয়া ঘড়ি সো-পিসের মতো থেকে যায়। এমনটা করলে বাড়ির সৌন্দর্য কতটা বাড়ে, তা যদিও জানা নেই। কিন্তু বন্ধ ঘড়ি যে নেগেটিভ শক্তির মাত্রাকে বাড়িয়ে তোলে, সে বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই! আর গৃহস্থের অন্দরে খারাপ শক্তির মাত্রা বাড়তে থাকলে কী কী ক্ষতি হতে পারে, তা নিশ্চয় আর বলে দিতে হবে না।

৭. বাঁশ গাছের মহিমা:

৭. বাঁশ গাছের মহিমা:

কথ্য ভাষায় আমরা বাঁশ গাছকে যদিও ভাল অর্থে ব্যবহার করি না। কিন্তু মজার বিষয় কি জানেন, ফেংশুই শাস্ত্রে বাঁশ গাছকে শুভ শক্তির প্রতীক হিসেবে বিবেচিত করা হয়ে থাকে। শুধু তাই নয়, এমনটা বিশ্বাস করা হয় যে বাড়িতে একটি বাঁশ গাছ রাখলে গুড লাক রোজের সঙ্গী হয়ে ওঠে। ফলে চরম সফলতার স্বাদ পেতে সময় লাগে না।

For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS
For Daily Alerts

    Read more about: বিশ্ব
    English summary

    Feng Shui Remedies to be Happy and Rich

    BIG QUESTION is how to amass so much money and wealth that lets you live the way you want to? Of course, you may need to work (either for someone else or for your own), you may need luck and last but not the least, you – definitely – need help from the energies that surround you; and that’s where feng shui wealth comes into picture.
    Story first published: Thursday, May 31, 2018, 15:27 [IST]
    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Boldsky sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Boldsky website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more