এই সেল্ফিগুলো দেখার পর হার্ট অ্যাটাক হতে বাধ্য! তাই সাবধান!

Posted By:
Subscribe to Boldsky

নিজেই নিজের ছবি তুলবো। আর লাগাবো সেটা ফেসবুক, নয়তো ইনস্টাগ্রামে। আর লাইক তো তাতে চাইই চাই। না হলে আরও দুঃসাহস দেখাবো। হয় ৩২ তলার সিলিং-এ উঠে ডান্স নয়তো সিংহের সঙ্গে লড়াই। কোনও কিছুই বাদ দেবো না। কিন্তু আমার হাজার লাইক চাইই চাই।

এমন উদ্ভট ভাবনার মানুষের সংখ্যা ক্রমাগত বাড়ছে। তাই তো অনেক দেশে সেল্ফি তোলার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে সেখানকার সরকার। তবু যে পাগলামো থেমে নেই, তা নিচের ছবিগুলি দেখলেই প্রমাণ হয়ে যাবে। তবে সাবধান! আপনার হার্ট যদি দুর্বল হয়, তাহলে ভুলেও বাকি প্রবন্ধে চোখ রাখবেন না যেন!

এই লেখায় যে ছবিগুলো শেয়ার করা হয়েছে তা সবই ইন্টারনেট থেকে নেওয়া। তাই ইচ্ছা হলে নিজেরাও একবার চেক করে দেখতে পারেন। কোনওটাই কিন্তু ফেক নয়! তাহলে আর অপেক্ষা কেন, হাতের কাছে কোনও হাসপাতালের ইমার্জেন্সি নাম্বারটা রেখে দেখতে শুরু করে দিন ছবিগুলো।

সেল্ফি ১:

সেল্ফি ১:

লোকটি হাই স্পিডে প্লেন চালাতে চালাতে এই ছবিটি নিয়েছিলেন। একবার ভাবুন তো সেল্ফিটা নেওয়ার সময় যদি কোনও কারণে তিনি কন্ট্রোল হারিয়ে ফেলতেন তাহলে কী হত!

সেল্ফি ২:

সেল্ফি ২:

কেউ মরতে চাইলেই হয়তো এমন দুঃসাহস দেখাবেন। নয়তো সুস্থ মস্তিষ্কের কেউ কি হাইওয়েতে গাড়ি চালাতে চালাতে এমন পাগলামো করবেন? মনে তো হয় না!

সেল্ফি ৩:

সেল্ফি ৩:

ছবিটায় দেখুন মেয়েটি কোনও সাপোর্ট ছাড়াই এত উচ্চতায় দাঁড়য়ে ছবি তুলছে। বাস্তবিকই সেল্ফির নেশায় মানুষ যে কী কী করতে পারে তার আন্দাজ লাগানো বেজায় কঠিন কাজ।

সেল্ফি ৪:

সেল্ফি ৪:

এই ছবিটি অসাধারণ। তাই না! সার্ফিং বোর্ডের উপর দাড়িয়ে ডেউয়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে সেল্ফি তোলা কিন্তু মোটেও সহজ কাজ নয়।

সেল্ফি ৫:

সেল্ফি ৫:

ইন্দোনেশিয়ার ব্রমো আগ্নেয়গীরীর সামনে দাঁড়িয়ে এই সেল্ফিটি তোলা। লক্ষ করুন ছবিটি তোলার সময় আগ্নেয়গীরীটা অ্যাকটিভ ছিল। তাই তো কেমন ধোঁয়া বেরচ্ছে দেখুন।

সেল্ফি ৬:

সেল্ফি ৬:

আর একটু হলেই কিন্তু লেগে যেত, তাই না। সেল্ফিটি তোলার সময় ছেলেটা ফোকাস নিয়ে এতটাই মগ্ন ছিল যে খেয়ালই করেনি ষাড়টা একেবারে তার শরীরের কাছাকাছি চলে এসেছে। আচ্ছা ছেলেটার কিছু হয় নি তো? সে উত্তর যদিও অজানা।

সেল্ফি ৭:

সেল্ফি ৭:

এই ছেলেটি ভিয়েনার ভোটিভ চার্চের চূড়ায় উঠে ছবিটি তুলেছেন।

সেল্ফি ৮:

সেল্ফি ৮:

কথায় বলে সেল্ফি তোলার নাকি কোনও সময় হয় না। তাই বলে প্ল্যান ক্রেশের সময় এমন ছবি তোলা পাগলামো ছাড়া আর কিছই নয়। দেখুন ছেলেটার পিছনে ক্র্যাশ হয়ে যাওয়া প্ল্যানের টেলটা দেখতে পাওয়া যাচ্ছে।

সেল্ফি ৯:

সেল্ফি ৯:

রিও ডি জেনেরো শহরের ঠিক মাঝ বরাবর, পাহাড়ার চূড়ায় সুবিশাল একটা যিশুর স্ট্যাচু রয়েছে। সেই স্ট্যাচুর উপরে উঠে এই সেল্ফিটি নেওয়া।

সেল্ফি ১০:

সেল্ফি ১০:

সেল্ফির ঠেলায় উঁটের কামড় কেমন হয়, তা নিশ্চয় জেনে গেছেন এই মহিলা।

সেল্ফি ১১:

সেল্ফি ১১:

হে ভগবান! ছেলেটা এই উচ্চতায় ঝুলতে ঝুলতে ছবিটি তুলেছে। কীভাবে করল সে এটা!

সেল্ফি ১২:

সেল্ফি ১২:

এই ছবিটা তো আরও ভয়ঙ্কর! ভাল করে লক্ষ করলে বুঝতে পারবেন ছেলেটি নিজের গায়ে আগুন লাগিয়ে ছবিটি তুলেছে।

সেল্ফি ১৩:

সেল্ফি ১৩:

সিংহের সঙ্গে খলতে খেলতে এই ছিবিটি তোলা হয়েছে। কী সুন্দর সেল্ফিটা, তাই না!

সেল্ফি ১৪:

সেল্ফি ১৪:

না না ভয় পাবেন না! ছবিটি দেখে আসল মনে হলেও একেবারেই আসল নয়। এটি সম্পূর্ণরূপে ফটোএডিটিং-এর কারসাজি।

Read more about: জীবন, বিশ্ব
English summary
People generally do not think twice before getting a crazy selfie clicked. For those who are crazy about selfies, they can go up to any extent to capture that perfect shot! For some it is almost like an achievement to get a perfect selfie.
Story first published: Thursday, June 22, 2017, 17:02 [IST]
Please Wait while comments are loading...