আজকের পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণের সময় কী কী করবেন আর কী কী করবেন না সে সম্পর্কে জানা আছে কি?

Written By:
Subscribe to Boldsky

প্রায় ১৫০ বছর পর এমন চন্দ্র গ্রহণের সাক্ষী থাকতে চলেছে ভারতবর্ষ। বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন এবারের গ্রহণ সব দিক থেকেই অভিনব! কারণ আজ সন্ধ্যার সময় চাঁদের অবস্থান এমন হবে যে পৃথিবীর ছায়া তাকে পুরো মাত্রায় গ্রাস করবে, শুধু তাই নয়, এই বিশেয সময়ে চাঁদের রং বদলে হয়ে যাবে একেবারে লাল রঙের। আর এমন দৃশ্য় মহাকাশ প্রেমীরা দেখতে পারবেন কমবেশি প্রায় ১ ঘন্টা।

ভারতের আকাশে প্রকৃতির এমন অভিনব খেলা যখন চলবে, তখন শরীরকে সুস্থ রাখতে কতগুলি নিয়ম মেনে চলা জরুরি। না হলে কিন্তু বেজায় বিপদ! বিশেষজ্ঞদের মতে গ্রহণের সময় পরিবেশে নানা পরিবর্তন আসতে শুরু করে, তাই তো শরীরকে এইসব নেতিবাচক প্রভাবের হাত থেকে বাঁচাতে এই প্রবন্ধে আলোচিত বিষয়গুলি মেনে চলতেই হবে।

এখন প্রশ্ন হল এক্ষেত্রে কী কী বিষয় মাথায় রাখা জরুরি। প্রসঙ্গত, গ্রহণ চলাকালীন যে যে কাজগুলি করতেই হবে, সেগুলি হল...

১.তুলতি পাতা এবং খাবার:

১.তুলতি পাতা এবং খাবার:

গ্রহণের আগে মনে করে সব খাবার, তা কাঁচা হোক কী রান্না করা, তাতে তুলসি পাতা বা দুর্বা ঘাস দিয়ে দিতে ভুলবেন না। কেন এমনটা করতে হবে জানেন? কারণ হিন্দু শাস্ত্র মতে তুলসি এবং দুর্বা ঘাসে ব্রহ্মা, বিষ্ণু এবং মহেশ্বরের অধিষ্টান। তাই তো গ্রহণের সময় এই দুটি প্রকৃতিক উপাদানকে খাবারে সঙ্গে রাখলে কোনও ধরনের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা কমে যায়।

২. মন্ত্রোচ্চারণ জরুরি:

২. মন্ত্রোচ্চারণ জরুরি:

একাধিক প্রাচীন গ্রন্থে এমন উল্লেখ পাওয়া যায় যে গ্রহণের সময় কৃষ্ণ মন্ত্র জপ করলে কোনও ধরনের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা একেবারে কমে যায়। আসলে এক সময় এমনটা বিশ্বাস করা হত যে গ্রহণ, মানব জাতীর পক্ষে একেবারেই শুভ নয়, তাই তো এই সময় কৃষ্ণের নাম নিলে ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা কমে। প্রসঙ্গত, কোন মন্ত্রটিকে কষ্ণ মন্ত্র বলা হয় জানা আছ? "হরে রাম হরে রাম, রাম রাম হরে হরে, হরে কৃষ্ণ হরে কৃষ্ণ, কৃষ্ণ কৃষ্ণ হরে হরে।" এই মন্ত্রটি বলা হল কৃষ্ণ মন্ত্র। এটি গ্রহণের সময় জপ করতে ভুলবেন না যেন!

৩. গর্ভবতীদের জন্য়:

৩. গর্ভবতীদের জন্য়:

এই সময় ভাবী মায়েদের অতিরিক্ত সাবধনতা অবলম্বন করতে হবে। তাই তো গ্রহণের কোনও খারাপ প্রভাব যাতে নিজের এবং বাচ্চার শারীরের উপর না পরে, তা সুনিশ্চিত করতে এই এক ঘন্টা "ওম দেবকি সুধা গোভিন্দা বাসুদেব জগতপাতে ধিমেতানে কৃষ্ণ তাওমেয়াম শ্রীনাম গাথা", এই মন্ত্রটি জপ করতে হবে। এমনটা করলে দেখবেন কোনও ধরনের খারাপ কিছুই আপনার ধারে কাছেও ঘেঁষতে পারবে না।

৪. খাবার খাওয়ার নিয়ম:

৪. খাবার খাওয়ার নিয়ম:

গ্রহণের আগে রান্না করে রাখা খাবার না খাওয়াই উচিত। শাস্ত্র মতে গ্রহণ যেহেতু শুভ ঘটনা নয়, তাই এর সংস্পর্শে আসা কোনও কিছুই শুভ থাকে না। তাই গ্রহণের আগে রান্না করা খাবার মোটেও মুখে তুলবেন না। বরং নতুন করে রান্না করে সেই খাবার গরম গরম খাওয়ার চেষ্টা করবেন।

৫. স্নান করা জরুরি:

৫. স্নান করা জরুরি:

গ্রহনের পর মনে করে স্নান করতে ভুলবেন না। এমনটা করলে যা কিছু অশুভ, তা ধুয়ে যাবে। ফলে মানসিক এবং শারীরিক ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা যাবে কমে।

৬. সর্প দোষ:

৬. সর্প দোষ:

আপনার কুষ্টিতে যদি কাল শর্প দোষের যোগ থাকে, তাহলে গ্রহনের সময় মহা মৃত্যুঞ্জয় মন্ত্র জপ করতে ভুলবেন না যেন! এমনটা করলে ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা একেবারে কমে যাবে।

এবার জেনে নেওয়া যাক গ্রহনের সময় কী কী কাজ ভুলেও করা উচিত নয়...

১.গ্রহণ চলাকীলান ভুলেও প্রস্রাব করবেন না।

২. যতই ঘুম পাক এই সময় চোখের পাতা বন্ধ হতে দেবেন না।

৩.গ্রহনের সময় খাবার খাবেন না।

৪. যতটা সম্ভব এই সময় গাড়ি বা বাইক চালানো থেকে বিরত থাকবেন। যদি সম্ভব হয় গ্রহনের সময় বাড়ি বা অফিসে থাকার চেষ্টা করবেন।

৫. গর্ভবতী মহিলারা এই সময় ভুলেও সবজি কাটবেন না। আর যতই প্রয়োজন হোক না কেন ছুরির থেকে দূরে থাকবেন।

এই নিয়মগুলি মেনে চললে দেখবেন গ্রহনের কারণে কোনও খারাপ প্রভাবই পরবে না আপনার কুষ্টির উপর। ফলে বাকি বছরটা সুখে, শান্তিতে এবং আনন্দেই কেটে যাবে। প্রসঙ্গত, এই প্রবন্ধটি যদি আপনাদের ভাল লেগে থাকে, তাহলে পরিচিতদের মাঝে এই লেখাটির লিঙ্ক শেয়ার করতে ভুলবেন না যেন!

Read more about: বিশ্ব
English summary
lunar eclipse is regarded as a bad omen by many cultures of the world and India is not an exception to that. Scientifically, there has been no evidence to prove that eclipse can be harmful during pregnancy, but many consider it as a bad omen for pregnant women. The superstitions also go to the extent of asserting that moving out during the eclipse or watching it may cause one to give birth to a deformed baby. Therefore, the pregnant women are not allowed to leave their rooms during the eclipse and the curtains are drawn so that the Moon does not pose a threat. Absurd, right? Well, it is totally up to you whether you want to believe or not. But, when it comes to the welfare of the child, mothers leave no stones unturned to ensure that.