For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

চা-কফি খেতে গিয়ে জিভে ছ্যাঁকা? ঘরোয়া এই টোটকায় নিমেষেই জ্বালা কমবে!

|

চা কিংবা কফিতে চুমুক দিতে গিয়ে অসাবধানে জিভ পুড়ে যাওয়ার ঘটনা খুব স্বাভাবিক। চা-কফির আমেজ তো চলে গেলই, সেইসঙ্গে উপরি পাওনা দিনভরের অস্বস্তি। জিভ পুড়ে গেলে কোনও খাবারের স্বাদ পাওয়া যায় না। সারাক্ষণ পোড়া জিভের দিকেই মন পড়ে থাকে। প্রায় সবারই কোনও না কোনও সময় গরম খেতে গিয়ে জিভ পুড়েছে। কিন্তু এই পরিস্থিতিতে কী করা দরকার, সেটা বোধহয় আমরা কেউই জানি না।

কিছু ঘরোয়া পদ্ধতি প্রয়োগ করে আপনি নিমেষেই এই জ্বালা-পোড়া থেকে মুক্তি পেতে পারেন এবং মুখের স্বাদ ফিরিয়ে আনতে পারেন। কিন্তু কীভাবে, জানার জন্য পড়ুন এই আর্টিকেলটি।

১) ঠাণ্ডা জল খান

১) ঠাণ্ডা জল খান

জিভের পোড়া যদি সামান্য হয় তাহলে ঠাণ্ডা জলেই জ্বালা মিটবে। জিভ পুড়ে যাওয়ার পর এক গ্লাস ঠাণ্ডা জল খান। ঠাণ্ডা জল জিভের তাপমাত্রাকে কমাবে এবং মুখকে হাইড্রেট রাখবে। জিভের জ্বালা ঠিক না হওয়া পর্যন্ত গরম কোনও খাবার খাবেন না।

২) নুন জল দিয়ে কুলকুচি করুন

২) নুন জল দিয়ে কুলকুচি করুন

হালকা গরম নুন জলে কুলকুচি করুন। এক গ্লাস হালকা গরম জলে একটি চিমটে নুন দিন। ভালো করে কুলকুচি করে মুখের জলটা ফেলে দিন। নুন অ্যান্টি-সেপটিক হিসেবে কাজ করে। বেশি পুড়ে গেলে ব্যথা হয়, ফুলে যায় অনেক সময়। নুন জল ক্ষত সারাতে সাহায্য করে।

৩) অ্যালোভেরা

৩) অ্যালোভেরা

বিভিন্ন ধরনের পোড়া ও ক্ষত সারাতে অ্যালোভেরার জুড়ি মেলা ভার। তাই আপনার জিহ্বায় খাঁটি অ্যালোভেরা জেল লাগান, দেখবেন ব্যথা কমে যাবে। অ্যালোভেরা জেল ক্ষতিগ্রস্থ কোষগুলিকে ঠিক করে এবং ব্যথা কমায়।

৪) চিনি

৪) চিনি

সামান্য ব্যথা উপশমে কাজ দেয় চিনি। তাই জিভের যে জায়গাটা পুড়ে গেছে সেখানে চিনি দিয়ে রাখুন। চিনি ধীরে ধীরে গলতে শুরু করলে ব্যথাও কমতে থাকবে। এটি আপনার মুখের স্বাদও বাড়িয়ে তুলবে।

৫) হলুদ

৫) হলুদ

হলুদে থাকে অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি উপাদান, যা ক্ষত সারাতে সাহায্য করে। আগেকার দিনে কেটে-ছড়ে গেলে বড়রা হলুদ বেটে লাগিয়ে দিতেন। জিভ বেশি পুড়ে গেলে হলুদ দেওয়া দুধ খান, জ্বালা কমাতে সাহায্য করে হলুদ। এক গ্লাস গরম দুধে এক চা চামচ হলুদ মেশান। হলুদ দেওয়া দুধ খেলে পোড়া ভালো হয়ে যাবে। হলুদের পেস্টও লাগাতে পারেন। সেক্ষেত্রে গুঁড়ো হলুদের সঙ্গে একটু মধু ও ২ চামচ দুধ মিশিয়ে পেস্ট বানান। সেটি পোড়া জায়গায় লাগালে কাজ হবে।

দাঁতের যন্ত্রণায় ছটফট করেন? জানুন এর থেকে মুক্তি পাওয়ার কিছু ঘরোয়া টোটকা

৬) তুলসি পাতা

৬) তুলসি পাতা

তুলসি পাতার স্বাস্থ্যগুণ আমাদের সবার জানা। ৫-৬ টি তুলসি পাতা নিয়ে ভাল করে ধুয়ে চিবিয়ে নিলেই কাজ হবে। এক সপ্তাহ চেবালেই জিভের পোড়া ভালো হয়ে যাবে।

৭) লবঙ্গ তেল

৭) লবঙ্গ তেল

দাঁতের ব্যথা কমানোর পাশাপাশি পোড়া জিভের জ্বালাও কমায় লবঙ্গ তেল। হালকা গরম জলে কয়েক ফোঁটা লবঙ্গ তেল মেশান। ওই জল দিয়ে ভালো করে কুলকুচি করুন, আরাম পাবেন। প্রতিদিন ৩-৪ বার করুন এটি।

৮) বরফ

৮) বরফ

পোড়া জায়গায় বরফ লাগালেও আরাম পাবেন। বরফ জল দিয়ে ঘনঘন মুখ ধুতে পারেন, তবে ভুলেও বরফ জল সরাসরি খেয়ে ফেলবেন না। এছাড়াও, বরফের কিউব নিয়ে জিভের ওই পোড়া অংশে চেপে রাখতে পারেন।

৯) দই

৯) দই

অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল উপাদান রয়েছে টক দই-তে। এটি জ্বালা, ব্যথা কমাতে সাহায্য করে। তাই চা-কফি খেতে গিয়ে জিভ পুড়ে গেলে দই খান। তবে দই অবশ্যই ঠান্ডা হতে হবে।

English summary

Simple Home Remedies To Soothe And Heal Burning Tongue

Have you accidentally burnt your tongue and are now struggling with blisters? Read on to know effective home remedies to deal with it!
X