For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

বাচ্চাদের পেটে ব্যথার জন্য প্রতিকার

By Anindita Sinha
|

আপনার শিশু কি খুবই খামখেয়ালী আর কিছুই খেতে বা জল পান করতে চায় না? বেশ! এর কারণ অনেকগুলিই হতে পারে; যদিও হঠাৎ করে তার এই সবকিছুর প্রতি খিটখিটে স্বভাবের একটা সাধারণ কারণ হতে পারে, পেটে ব্যথা।

বাচ্চাদের মধ্যে পেটে ব্যথা খুবই সাধারণ এবং বিশেষত যেসব শিশুরা ৪ থেকে ৮ বছর বয়সের মধ্যে পরে তাদের এই অবস্থা দ্বারা বেশি প্রভাবিত হতে দেখা যায়।

পেটে ব্যথা নানান কারণে হতে পারে যেমন, খাদ্যে বিষক্রিয়া, কোষ্ঠকাঠিন্য, পাকস্থলীর সংক্রমণ ইত্যাদি। আপনার বাচ্চার পেটে ব্যথার কারণ যাই হোক না কেন, এর জন্য প্রথমেই আপনার যেই জিনিসটার দিকে হাত বাড়ানো উচিৎ তা হল প্রাকৃতিক প্রতিকার, যেগুলি আপনি ঘরেই সহজে পেয়ে যাবেন।

প্রাকৃতিক প্রতিকারগুলি সহজলভ্য ও আপনার বাচ্চাকে আরাম দিতে আপনি এগুলি বিনা দ্বিধায় ট্রাই করতে পারেন।

আদা

আদাতে শক্তিশালী অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট “জিঞ্জেরল” (Gingerol) আছে, এটি শরীরে ফ্রি র্যাডিকেলের বেড়ে ওঠা কমায় ও এগুলির দ্বারা সৃষ্ট ক্ষতিকে সারাতে সাহায্য করে। আদা অস্বস্তি ও বমিবমি ভাবও কমায়। উপরন্তু, আদায় উপস্থিত প্রদাহ দূরকারী বৈশিষ্ট্য পাচক রসের উৎপাদন উন্নত করে ও পাকস্থলীর অ্যাসিডগুলিকে নিবারিত করে। বাচ্চাদের পেটে ব্যথা হলে তাদের ঘরে তৈরি আদা চা দেওয়ার চেষ্টা করুন আর দেখুন সে কতোটা আরাম অনুভব করে।

তাপের ব্যবহার করুন

বাচ্চারা যখন বসে বা শুয়ে আছে তখন তাদের পেটের ওপর একটা হিটিং প্যাড বা হট ওয়াটার ব্যাগ রাখুন, এটা একটা সীমা পর্যন্ত ব্যথাকে প্রশমিত করবে। যখনই আপনি তাপের প্রয়োগ করেন তখন তা ত্বকের উপরিতলে রক্তের সংবহন বাড়িয়ে তোলে, যা পেটের থেকে উদ্ভূত ব্যথা অনুভূত হওয়া কমিয়ে দেয়।

সহজপাচ্য খাবার দিন

পেটে ব্যথা সত্ত্বেও যদি আপনার শিশু খিদে অনুভব করে তবে তাকে একটু একটু করে খাওয়ার জন্য কম পরিমাণে সহজপাচ্য খাবার যেমন দই, টোস্ট, ভাত, ওটমিল ইত্যাদি দিন। তেল- মশলাদার খাবার এড়িয়ে যান কারণ এগুলি হজম করা মুশকিল। সহজপাচ্য খাবার বমির উদ্রেক করে না; এগুলি আপনার পেটে কোন বিরক্তির সৃষ্টি করে না ও সহজেই হজম হয়ে যায়। তাছাড়াও, সহজপাচ্য খাবার আপনার শিশুর গ্যাস্ট্রোইনটেস্টিনাল ট্র্যাক্টকে তার স্বাভাবিক কার্যক্ষমতায় দ্রুত ফিরিয়ে আনতে সাহায্য করে।

শারীরিক সক্রিয়তা আবশ্যক

যদি আপনার বাচ্চা বিছানায় শুয়ে থাকে তবে তাকে ঘরের বাইরে গিয়ে খেলাধুলা করার জন্য উৎসাহিত করুন, কারণ বিছানায় শুয়ে থাকা তার পেটে ব্যথা কমাতে সাহায্য করবে না। গবেষণায় বলা হয়েছে যে, শারীরিক ভাবে সক্রিয় থাকলে তা গ্যাস্ট্রোইন্টেস্টিনাল ট্র্যাক্টের মধ্যে সচলতায় সাহায্য করে যেখানে একটানা বিছানায় শুয়ে থাকা কোষ্ঠকাঠিন্যের সৃষ্টি করতে পারে। বাইরে খেলাধুলা করা, দৌড়ানো, হাঁটা ইত্যাদি এক্ষেত্রে সাহায্যকর। আপনার উচিৎ বাচ্চাদের সেই সব ক্রিয়াকলাপের জন্য উৎসাহিত করা যেগুলিতে পেটের ওপর মোচড় পরে যেমন, কার্টহুইলস, মাংকি বার, টুইরলিং ইত্যাদি।

ক্যামোমাইল চা

ক্যামোমাইল চা-তে ব্যথা কমানোর ও প্রদাহ দূরকারী বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা পেটের অস্বস্তি কমাতে সাহায্য করে। পেটে ব্যথা থেকে আরাম পেতে, এক কাপ ক্যামোমাইল চা বানান এবং তা আপনার বাচ্চাকে নিয়মিত বিরতিতে চুমুক দিয়ে পান করতে দিন। ক্যামোমাইল পরিপাক নালীর উপরাংশের পেশীকে আরাম দেয়, যা ঘুরে সেই সংকোচনকে কমায় যা পাকস্থলী থেকে ক্ষুদ্রান্ত পর্যন্ত খাদ্যকে ঠেলে নিয়ে যায়। পরিশেষে, এটি সংকোচন ও পেটের খিচুনির উপশম করে।

দই

বদহজমের জন্য দইকে সবথেকে সেরা প্রতিকার হিসাবে গণ্য করা হয়। প্রতিদিন আপনার বাচ্চাকে এক বাটি দই খাওয়ানোর একটা অভ্যাস তৈরি করে নিন। দই-এ আপনার অন্ত্রের জন্য ভাল ব্যাকটেরিয়া থাকে যা হজমে সাহায্য করে। নিয়মিত দই খেলে তা আপনার শিশুকে তার স্বাভাবিক ছন্দে ফিরে আসতে সাহায্য করতে পারে।

মেন্থলের চা

মেন্থলের পাতার এই রিফ্রেশিং চা আপনার শিশুর পেটে ব্যথার উপশম করতে পারে। গবেষণায় প্রকাশিত যে, আপনার পেটের পেশীর ওপর পিপারমেন্ট বা মেন্থলের একটা আরামদায়ী প্রভাব আছে। মেন্থলে, পিত্তরসের প্রবাহকে উন্নত করার ক্ষমতা থাকে, যা আপনার শরীর, খাবারকে পরিপাক করার জন্য ব্যবহার করে।

English summary

বাচ্চাদের পেটে ব্যথার জন্য প্রতিকার। বাচ্চাদের পেটে ব্যথার চিকিৎসা। কিভাবে বাচ্চাদের পেটে ব্যথার নিরাময় করবেন।

বাচ্চাদের মধ্যে পেটে ব্যথা খুবই সাধারণ এবং বিশেষত যেসব শিশুরা ৪ থেকে ৮ বছর বয়সের মধ্যে পরে তাদের এই অবস্থা দ্বারা বেশি প্রভাবিত হতে দেখা যায়। বেশ! এখানে রইল বাচ্চাদের পেটে ব্যথার জন্য কিছু প্রতিকার...
Story first published: Friday, November 25, 2016, 15:10 [IST]
X