ইউরিনারি ট্রাক্ট ইনফেকশন কমাতে ঘরোয়া চিকিৎসা!

Posted By:
Subscribe to Boldsky

গত এক দশকে সারা বিশ্বে যে যে রোগের প্রকোপ খুব বেড়েছে তার মধ্যে অন্যতম হল ইউরিনারি ট্রাক্ট ইনফেকশন। মূলত জীবনযাত্রার পরিবর্তন এবং পর্যাপ্ত হাইজিনের অভাবের কারণেই এমন রোগের প্রসার এত চোখে পরার মতো বৃদ্ধি পয়েছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। প্রসঙ্গত, একটি বিশেষ ধরনের ব্যাকটেরিয়ার কারণে এই ধরনের সংক্রমণ হয়ে থাকে। এই ব্যাকটেরিয়াটি যখন ব্লাডার এবং তার সংলগ্ন টিউবে আক্রমণ করে তখন ইউরিনারি ট্রাক্ট ইনফেকশনে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা বৃদ্ধি পায়।

অনেক কারণে এই ধরনের সংক্রমণ হতে পারে। তবে এক্ষেত্রে মূলত যে যে কারণগুলি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে, সেগুলি হল- অরক্ষিত শারীরিক সম্পর্ক, অনেক সময় ধরে প্রস্রাব চেপে থাকা, প্রেগন্যান্সি, মেনোপজ এবং ডায়াবেটিস। এক্ষেত্রে সাধারণত যে যে লক্ষণগুলির বহিঃপ্রাকাশ ঘটে থাকে, সেগুলি হল যথাক্রমে বারে বারে প্রস্রাব চাপা, অল্প পরিমাণ প্রস্রাব হওয়া, প্রস্রাবের সময় জ্বালা, ইউরিনের রং বদলে যাওয়া, পেটে ব্যথা, জ্বর, মাথা ঘোর, বমি হওয়া প্রভৃতি।

ইউরিনারি ট্রাক্টে সংক্রমণের প্রকোপ কমাতে আধুনিক চিকিৎসা দারুন কাজে এলেও বেশ কিছু ঘরোয় পদ্ধতি আছে, যা এই ধরনের ইনফেকশন সম্পর্কিত কষ্ট কমাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। তাই এবার থেকে এমন ধরনের রোগে আক্রান্ত হলে হাই ডোজের অ্যান্টিবায়োটিক না খেয়ে পরিবর্তে এই প্রবন্ধে আলোচিত ঘরোয়া চিকিৎসাগুলির সাহায্য নিতে পারেন, উপকার য়ে পাবেন সেকথা হলফ করে বলতে পারি।

এক্ষেত্রে যে যে ঘরোয়া পদ্ধতিগুলি দারুন কাজে আসে, সেগুলি হল...

১. অ্যাপেল সিডার ভিনিগার:

১. অ্যাপেল সিডার ভিনিগার:

এতে উপস্থিত বেশ কিছু এনজাইম, পটাশিয়াম এবং অন্যান্য খনিজ সংক্রমণের জন্য দায়ি ব্যাকটেরিয়াদের মেরে ফেলে। ফলে রোগের প্রকোপ কমতে শুরু করে। এক্ষেত্রে ১ গ্লাস জলে ২ চামচ অ্যাপেল সিডার ভিনগার, অল্প করে মধু এবং লেবুর রস মিশিয়ে একটা মিশ্রন বানিয়ে ফেলুন। এই মিশ্রনটি দিনে দুবার করে খাওয়া শুরু করুন। কয়েক দিন খেলেই দেখবেন সুফল পেতে শুরু করেছেন।

২. আমলকি:

২. আমলকি:

এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভাটামিন-সি, যা ব্যাকটেরিয়াদের বংশবৃদ্ধি আটকে দেওয়ার পাশাপাশি এই রোগের কারণগুলিকে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসতেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। তাই তো ইউরিনারি ট্রাক্ট ইনফেকশনের প্রকোপ কমাতে আমলকিকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে থাকেন বিশেষজ্ঞরা। এখন প্রশ্ন হল, সংক্রমণের কষ্ট কমাতে কীভাবে ব্যবহার করতে হবে আমলকিকে? প্রথম ১ কাপ জল নিন। তারপর তাতে ১ চামচ আমলকির পাউডার এবং ১ চামচ হলুদ গুঁড়ো মেশান। এবার জলটা ভাল করে ফুটিয়ে নিয়ে দিনে ৩ বার করে পান করুন। টানা ৩-৫ দিন এই পানীয়টি খেলেই দেখবেন রোগের প্রকোপ কমতে শুরু করে দিয়েছে।

৩. ক্র্যানবেরি জুস:

৩. ক্র্যানবেরি জুস:

ইউরিনারি ট্রাক্ট ইনফেকশনের প্রকোপ কমাতে প্রতিদিন ৩-৪ গ্লাস ক্র্যানবেরি জুস খাওয়া শুরু করুন। দেখবেন দারুন উপকার পাবেন। কারণ এতে উপস্থিত প্রঅ্যান্থোসায়ানিডিনস নামে একটি উপাদান ব্যাকটেরিয়াদের মেরে ফেলে রোগকে একেবারে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে চলে আসে। প্রসঙ্গত, বারে বারে যাতে এমন ধরনের সংক্রমণ না হয়, সেদিকেও খেয়াল রাখে ক্র্যানবেরিতে উপস্থিত এই উপাদানটি।

৪. খাবার সোডা:

৪. খাবার সোডা:

সংক্রমণের কারণে হওয়া যন্ত্রণা কমাতে এই ঘরোয়া উপাদানটি দারুন কাজে লাগে। শুধু তাই নয়, দ্রুত যাতে রোগ সেরে যায় সেদিকেও খেয়াল রাখে। এক্ষেত্রে ১ গ্লাস জলে ১ চামচ বেকিং সোডা মিশিয়ে সেই জল দিনে ২ বার করে খেলেই রোগের প্রকোপ কমতে শুরু করে দেয়।

৫. টি-ট্রি অয়েল:

৫. টি-ট্রি অয়েল:

এতে উপস্থিত অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল উপাদান ব্যাকটেরিয়াদের মেরে ফেলে অল্প দিনেই ইউ টি আই-এর প্রকোপ কমাতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। এক্ষেত্রে স্নান করার সময় এক বালতি জলে ১০ ফোঁটা টি ট্রি অয়েল মিশিয়ে সেই জল দিয়ে ভাল করে ইউরেথার পরিষ্কার করতে হবে। এমনটা কয়েকদিন করলেই দেখবেন রোগ সেরে যাবে।

৬. জাম:

৬. জাম:

প্রতিদিন ব্রেকফাস্টের সময় এক মুঠো করে জাম খাওয়া শুরু করুন। দেখবেন এমন ধরনের রোগের ফাঁদে আর কোনও দিন পরতে হবে। আর যদি পরেও যান, তাহলেও চিন্তা নেই। কারণ জামে উপস্থিত অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট প্রপাটিজ শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার উন্নতি ঘটানোর পাশাপাশি ইউরিনারি ট্রাক্ট ইনফেকশন কমাতেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

৭. আনারস:

৭. আনারস:

এতে রয়েছে ব্রমেলিন নামে একটি এনজাইম, যা ইউ টি আই-এর প্রকোপ কমাতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। এক্ষেত্রে প্রতিদিন ১ কাপ করে আনারস খেলেই দারুন উপকার পাওয়া যায়।

English summary
Urinary tract infections (UTIs) are a very common health problem. While both men and women get UTIs, women are more prone to them. UTI occurs when the bladder and its exit tubes are infected by bacteria. Some of the causes are sexual intercourse, waiting too long to urinate, pregnancy, menopause, and diabetes.
Please Wait while comments are loading...