বেশি নুন খেলে মৃত্যু অবধারিত!

Subscribe to Boldsky

নুন ছাড়া কোনও খাবারই রান্না করা সম্ভব নয়। চিনি এবং নুনের হাত ধরেই তো খাবারে স্বাদ আসে। কিন্তু বেশি মাত্রায় নুন খাওয়াও একেবারে উচিত নয়। কারণ একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে নানা জটিল রোগে আক্রান্ত হওয়ার পিছনে নুনের একটা ভূমিকা রয়েছে। আবার শরীরে নুনের যোগান ঠিক মতো না হলেও বিপদ! নুন কমে গেলে রক্ত চলাচল স্বাভাবিক থাকে না। সেই সঙ্গে রক্তচাপ এবং হজম ক্ষমতাও ক্ষতিগ্রস্থ হয়। তাহলে উপায়?

অল্প করে নুন খাওয়া যেতেই পারে। রান্নার সময় প্রয়োজন মতো নুন দিন। কিন্তু কাঁচা নুন যতটা পারবেন, কম খাবেন। কারণ প্রটুর মাত্রায় কাঁচা নুন খেলে হার্ট অ্যাটাক, স্ট্রোক এবং উচ্চ রক্তচাপের মতো রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা বহু গুণে বৃদ্ধি পায়। প্রসঙ্গত, আজকাল চিকিৎসক মহল নুন খাওয়া নিয়ে বেজায় চিন্তিত। কারণ গত কয়েক বছরে আমাদের দেশের পাশাপাশি সারা বিশ্বেই নন-কমিউনিকেবল ডিজিজে আক্রান্তের সংখ্যা চোখে পরার মতো বেড়ে গেছে, আর তার পিছনে অন্যতম কারণ হল অতিরিক্ত মাত্রায় নুন খাওয়া। এমনকী বাচ্চাদের মধ্যেও অসুস্থতা বাড়ছে, বেশি মাত্রায় নুন খাওয়ার কারণে। তাই এই বিষয়টির দিকে যদি এখন থেকেই খেয়াল রাখা না যায়, তাহলে কিন্তু বিপদ!

চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক অতিরিক্ত নুন খাওয়ার কারণে কী কী শারীরিক সমস্যা হতে পারে, সে সম্পর্কে।

উচ্চ রক্তচাপ:

উচ্চ রক্তচাপ:

অতিরিক্ত পরিমাণে নুন খেলে রক্তচাপ আর স্বাভাবিক থাকে না, বাড়তে শুরু করে। আর যদি রক্তচাপকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে না পারা যায়, তাহলে কিন্তু আর্টারিরা ক্ষতিগ্রস্থ হয়। ফলে হার্ট অ্যাটাক হওয়ার আশঙ্কা বহু গুণে বেড়ে যায়। তাই তো অতিরিক্ত কাঁচা নুন খাওয়ার অভ্যাস ত্যাগ করুন। না হলে আসন্ন মৃত্যুর জন্য় তৈরি হন।

হার্টের রোগ:

হার্টের রোগ:

বেশি মাত্রায় নুন শরীরে প্রবেশ করলে হার্ট অ্যাটাক, হার্ট ফেলিওর সহ একাধিক হার্টের রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। সেই সঙ্গে হার্ট ফেলিওর হওয়ার আশঙ্কাও বৃদ্ধি পায়। তাই হার্টকে যদি বেশি দিন সুস্থ রাখতে চান, তাহলে নুন খাওয়ার পরিমাণ যে কমাতে হবে বন্ধুরা।

ক্যান্সার:

ক্যান্সার:

একেবারে ঠিক শুনেছেন। বেশি নুনু খেলে ক্যান্সারের মতো মারণ রোগেও আক্রান্ত হতে পারেন। একাধিক গবেষণায় একথা প্রমাণিত হয়েছে যে মাত্রাতিরিক্ত পরিমাণে নুন খেলে স্টমাক ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভবনা বৃদ্ধি পায়।

কিডনি খারাপ হতে শুরু করে:

কিডনি খারাপ হতে শুরু করে:

শরীরে ইলোকট্রোলাইটসের মাত্রা স্বাভাবিক রাখতে নুনের কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে। কিন্তু তাই বলে বেশি মাত্রায় নুন খাওয়া একেবারেই চলবে না। কারণ যত বেশি করে নুন আমাদের শরীরে প্রবেশ করবে, তত কিডনির কর্মক্ষমতা কমে যেতে শুরু করবে। সেই সঙ্গে বাড়বে রক্তচাপও, যা যে কোনও মানুষকে ধীরে ধীরে শেষ করে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট।

স্টমাক আলসার:

স্টমাক আলসার:

শরীরে বেশি মাত্রায় নুনের প্রবেশ ঘটলে স্টমাকের আবরণ ক্ষতিগ্রস্থ হয়, ফলে স্টমাক আলসারে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা বৃদ্ধি পায়। সেই সঙ্গে শরীরে জলের ভারসাম্য ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ার কারণে নানা রকমের জটিল রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কাও বৃদ্ধি পায়।

অস্টিপোরোসিস:

অস্টিপোরোসিস:

শরীরে নুনের মাত্রা যত বাড়বে, তত জল তেষ্টা পাবে। আর জল বেশি করে খেলে প্রস্রাবও বেশি করে হবে। ফলে শরীর থেকে ক্যালসিয়াম বেরিয়ে যেতে শুরু করবে মাত্রাতিরিক্ত পরিমাণে। আর এমনটা হলেই ধীরে ধীরে হাড় দুর্বল হয়ে গিয়ে দেখা দেবে অস্টিওপোরোসিসের মতো রোগ।

মস্তিষ্কের ক্ষমতা কমবে:

মস্তিষ্কের ক্ষমতা কমবে:

বেশি মাত্রায় নুন খেলে ধীরে ধীরে স্মৃতিশক্তি কমে যেতে শুরু করবে। সেই সঙ্গে ব্রেণ ফাংশম ক্ষতিগ্রস্থ হবে এবং কমবে মনোযোগও। আর এই লক্ষণগুলি দেখা গেলে দৈনন্দিন জীবন যে কতটা দুর্বিষহ হয়ে উঠবে, তা নিশ্চয় বলে দিতে হবে না।

তাই সব শেষে বলবো, নুন খান, কিন্তু বেশি মাত্রায় খাবেন না। তাহলেই দেখবেন সুস্থভাবে জীবনযাপন করতে পারছেন।

For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS
For Daily Alerts

    Read more about: নুন হার্ট
    English summary

    বেশি নুন খেলে মৃত্যু অবধারিত!

    Salt is an indispensable part of our cuisines, but effect of excessive intake of salt can be threatening. Yes, salt is the hidden reason for many of your health issues. Human body requires sodium to maintain blood flow, normal blood pressure and digestion.
    Story first published: Monday, March 20, 2017, 11:55 [IST]
    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Boldsky sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Boldsky website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more