(ছবি) স্ট্রোকের ঝুঁকি কমাতে এই খাবারগুলি ডায়েটে রাখুন

By: OneIndia Bengali Digital Desk
Subscribe to Boldsky

স্ট্রোক ও হার্ট অ্যাটাক এক জিনিস নয়। হৃদরোগ সম্পর্কিত সমস্যা হল হার্ট অ্যাটাক। আর স্ট্রোকে আক্রান্ত হয় মস্তিষ্ক। রক্ত সঞ্চালন মস্তিষ্কে বাধাপ্রাপ্ত হলে বা রক্ত জমাট বেঁধে গেলে এমন হতে পারে। [স্ট্রোকের ঝুঁকি কমাতে অবলম্বন করুন এই ৬ উপায় !]

মস্তিষ্কের অভ্যন্তরে রক্ত সরবরাহে ব্যঘাত ঘটার ফলে যে অব্যবস্থা দ্রুত জন্ম নেয় তাকে বলা হয় স্ট্রোক। মস্তিষ্ক কোষ অত্যন্ত সংবেদনশীল। এতে অক্সিজেন বা শর্করা সরবরাহে সমস্যা হলে দ্রুত এই কোষগুলি নষ্ট হয়ে যায়। কোষগুলি শরীরের যে অংশ নিয়ন্ত্রণ করে সেই অংশ স্ট্রোকের ফলে পক্ষাঘাতগ্রস্তও হয়ে যেতে পারে। [হৃদরোগ আটকাতে ডায়েটে রাখুন এই খাবারগুলি]

মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ অথবা আঞ্চলিকভাবে রক্ত চলাচল বন্ধ হওয়া, এই দুই অবস্থাকেই স্ট্রোক বলা যেতে পারে। রোগীরা দুটি ক্ষেত্রেই প্রায় একই ধরনের উপসর্গ বা লক্ষ্মণে ভুগতে পারেন। তবে রোগীর অবস্থা কতটা খারাপ তা নির্ভর করে মস্তিষ্কের কোন জায়গায় রক্ত চলাচলে ব্যাঘাত ঘটল তার উপরে। [কী কী কারণে বুকে ব্যথা হতে পারে তা জেনে নিন]

যদি আপনার পরিবারে আগে কারও স্ট্রোকের ইতিহাস থাকে তাহলে সাবধান হোন। যদি আপনার ওজন বেশি হয়, আপনি নিয়মিত ধূমপান বা মদ্যপান করেন বা ডায়বেটিসে আক্রান্ত হন তাহলে অবশ্যই আপনাকে সতর্ক থাকতে হবে। কোন খাবারগুলি ডায়েটে রাখলে স্ট্রোকের ঝুঁকি কমবে তা জেনে নিন নিচের স্লাইডে। [কোলেস্টেরল কমানোর সবচেয়ে সহজ উপায়]

আপেল

আপেল

আপেলের গুণ অগুনতি। নিয়মিত আপেল খেলে স্ট্রোকের ঝুঁকি অনেকটা কমে আসবে। এছাড়া ন্যাসপাতিও আপেলের মতোই স্ট্রোক নিয়ন্ত্রণে কার্যকর হতে পারে।

কফি

কফি

নিয়ন্ত্রিত হারে কফি খেতে পারলে তা স্ট্রোকের ঝুঁকি কমাতে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

ট্যোম্যাটো

ট্যোম্যাটো

ট্যোম্যাটোতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে লাইকোপেন। এই উপাদান স্ট্রোক কমাতে সাহায্য করে। এছাড়া ডায়েট ফুড হিসাবেও ট্যোম্যাটো দারুণ উপযোগী।

ডার্ক চকোলেট

ডার্ক চকোলেট

ডার্ক চকোলেট স্ট্রোকের ঝুঁকি কমাতে পারে। এমনি চকোলেটের চেয়ে ডার্ক চকোলেট বেশি উপযোগী বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

চেরি ফল

চেরি ফল

চেরি ফল স্ট্রোকের মাত্রা কমাতে বিশেষ ভূমিকা নেয় বলে জানা গিয়েছে। এছাড়া হার্টের নানা রোগ কমাতেও চেরি ফল উপযোগী।

পানীয় জল

পানীয় জল

জলের হাজারো গুণ রয়েছে। তার মধ্যে অন্যতম হল স্ট্রোক আটকানো। শরীরে জলের খামতি হলে রক্ত জমাট বেঁধে যায় এবং স্ট্রোকের ঝুঁকি বেড়ে যায়।

ধূমপান

ধূমপান

ধূমপান করলে স্ট্রোকের ঝুঁকি মাত্রাতিরিক্ত হারে বেড়ে যায়। ফলে স্ট্রোক কমাতে হলে ধূমপান করা বন্ধ করতে হবে।

নুন খাওয়া কমানো

নুন খাওয়া কমানো

মাত্রাতিরিক্ত হারে নুন খেলে রক্তচাপের মাত্রা বেড়ে যায়। যা স্ট্রোক হওয়ার ইন্ধন জোগায়। ফলে খাবারে মাত্রাতিরিক্ত নুন থাকলে তা এড়িয়ে যান।

English summary
Tips To Lower Stroke Risk
Story first published: Friday, August 5, 2016, 12:54 [IST]
Please Wait while comments are loading...