আপনি কি জানেন বাঁধাকপির একাধিক স্বাস্থ্যসম্বন্ধীয় উপকার রয়েছে?

Posted By: Super Admin
Subscribe to Boldsky

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা বাঁধাকপি খেতে পছন্দ করেন না, বড়োজোর আমরা এই সব্জিটির স্বাদ বাড়াতে রান্নার সময় নানারকম মশলা দিয়ে থাকি। এটির স্বাদগন্ধহীণতার জন্য এটিকে ফেলে দিতেও মানুষে দুইবার ভাবেন না।

যদিও বাঁধাকপির অফুরান উপকারগুলির সম্পর্কে জানলে আপনি অবাক হয়ে যাবেন এবং এই প্রতিবেদনটি পড়ার পর আপনি হয়তো ধীরে ধীরে বাঁধাকপিকে আপনার খাদ্যতালিকায় যোগ করবেন।

সবথেকে ভাল ব্যাপার হল, বাঁধাকপিকে আপনি যে কোন ভাবেই ব্যবহার করতে পারেন। উদাহরণ স্বরূপ, তরকারিতে, স্যালাডে, বেক করে, রোস্ট করে এবং অবশ্যই নিঃসন্দেহে, আপনি এর সাথে আরো অনেক এক্সপেরিমেন্ট করতে পারেন!!

বাঁধাকপির স্বাস্থ্যসম্বন্ধীয় উপকার ও কেন আপনাকে নিয়মিত এই সব্জিটি খেতে হবে, তার সম্পর্কে নিচে আলোচনা করা হল। আসুন দেখে নেওয়া যাক।

ভিটামিন-সি সমৃদ্ধঃ

ভিটামিন-সি সমৃদ্ধঃ

ভিটামিন-সি এর অভাবে ইমিউনিটি সিস্টেম দুর্বল হয়ে পরে বা মারি ফুলে ওঠে রক্তপাত হতে থাকে একে স্কার্ভি রোগ বলা হয়। ভিটামিন-সি এর একটি অসামান্য উৎস হল, বাঁধাকপি, যেটিকে স্কার্ভি রোগের সাথে লড়ার জন্য সেরা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট হিসাবে গণ্য করা হয়।

স্টমাক আলসারের উপশমে সাহায্য করেঃ

স্টমাক আলসারের উপশমে সাহায্য করেঃ

আলসারের চিকিৎসায়, কিছু নির্দিষ্ট ক্যান্সারের প্রাথমিক স্টেজে, ইমিউনিটি ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে, নির্দিষ্ট কিছু টিসুকে মেরামত করতে ও অ্যালঝাইমার রোগ প্রতিরোধে বাঁধাকপি সাহায্য করে। মানবদেহের তন্ত্রগুলির জন্য রাফেজ (Roughage) একটি অপরিহার্য উপাদান, এটি দেহকে কোষ্ঠকাঠিন্য, স্টমাক আলাসার (পাকিস্থলির ঘা), গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল ক্যানসার এবং ক্ষুধামান্দ্য রোগ থেকে রক্ষা করে। একজিমা নামে পরিচিত চর্মরোগ এবং অকালবার্ধক্যের মতো রোগও রয়েছে। বাঁধাকপি ফাইবারে সমৃদ্ধ, এটি দীর্ঘক্ষণ যাবৎ শরীরকে জল ধরে রাখতে সাহায্য করে এবং আপনাকে এই সব সমস্যা থেকে দুরে রাখে।

সংক্রমণ থেকে লড়তে সাহায্য করেঃ

সংক্রমণ থেকে লড়তে সাহায্য করেঃ

সালফার সংক্রমণের সাথে লড়তে সাহায্য করে এবং এর অভাবে, ক্ষত বা ঘা সারতে সাংঘাতিক পরিমাণে ঘাটতি দেখা যায়। বাঁধাকপি সালফারে সমৃদ্ধ হওয়ায়, এই ক্ষেত্রেও সাহায্য করে।

ক্যানসারের চিকিৎসায় সাহায্য করেঃ

ক্যানসারের চিকিৎসায় সাহায্য করেঃ

আজকাল, প্রতি চার জনে একজন, যে কোন এক রকমের ক্যানসারের সাথে ভুগছে। বাঁধাকপিতে নির্দিষ্ট কয়েকটি অ্যান্টি-ক্যানসারাস উপাদান যেমন, লুপিওল, সিনিগ্রিন এবং সালফোরাপ্রেন রয়েছে, যা উতসেচক বা এনজাইমের কার্যকারীতাকে উদ্দীপিত করে টিউমারের বৃদ্ধি বন্ধ করে।

গাঁটের ব্যাথা নিরাময়ে সাহায্য করেঃ

গাঁটের ব্যাথা নিরাময়ে সাহায্য করেঃ

বাঁধাকপির পাতায় গ্লুটামিন পাওয়া যায়, যা একটি শক্তিশালী প্রদাহ দূরকারী উপাদান। এটি শরীরকে জালাপোড়া, গাঁটের ব্যাথা, নির্দিষ্ট কিছু চর্মোরোগ ও আরো অনেক রোগ থেকে রক্ষা করে।

চোখকে রক্ষা করেঃ

চোখকে রক্ষা করেঃ

বাঁধাকপিতে বিটা-ক্যারোটিন পাওয়া যায়, যা চোখকে বিভিন্ন রকম চোখ সম্বন্ধীয় রোগের থেকে রক্ষা করে এবং ছানি পড়ার প্রক্রিয়াকেও দেরি করায়।

মানসিক ক্রিয়াকলাপ বজায় রাখতে সাহায্য করেঃ

মানসিক ক্রিয়াকলাপ বজায় রাখতে সাহায্য করেঃ

বাঁধাকপিতে ভিটামিন-কে ও অ্যান্থোসায়ানিন থাকে, যা মানসিক ক্রিয়াকলাপ ও একাগ্রতা বজায় রাখতে সাহায্য করে। এই উপাদানগুলি সাধারণত লাল বাঁধাকপিতে পাওয়া যায়। এই দুই উপাদান একসাথে স্নায়ু তন্ত্রকে ক্ষয়-ক্ষতি থেকে রক্ষা করে।

রক্তের পরিশোধনে সাহায্য করেঃ

রক্তের পরিশোধনে সাহায্য করেঃ

বাঁধাকপিকে একটি চমৎকার ডিটক্সিফায়ার হিসাবে দেখা হয়, যা রক্ত পরিশোধন করে ও আপনাকে রিউমাটিসম, আরথ্রাইটিস ও গাউটের থেকে দূর রাখে।

মস্তিষ্কের ক্রিয়াকলাপে সাহায্য করেঃ

মস্তিষ্কের ক্রিয়াকলাপে সাহায্য করেঃ

বাঁধাকপি আয়োডিন-এরো একটি ভাল উৎস। যা মস্তিষ্ক ও স্নায়ুতন্ত্রের সঠিক ক্রিয়াকলাপে সাহায্য করে। এটি এন্ডোক্রাইন গ্রন্থির সঠিক ক্রিয়াকলাপেও সাহায্য করে।

ভিটামিনে সমৃদ্ধঃ

ভিটামিনে সমৃদ্ধঃ

বাঁধাকপিতে ভাল মাত্রায় মিনারেলস যেমন, ক্যালসিয়াম, পটাসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম ইত্যাদি এবং অন্য পরিপোষক পদার্থ যেমন আয়োডিন, ভিটামিন-ই ও অবশ্যই ভিটামিন-সি থাকে। স্যালাডের মধ্যে কাঁচা অবস্থায় বাঁধাকপি খাওয়াই সবথেকে ভাল উপায়।

    English summary

    বাঁধাকপির স্বাস্থ্যসম্বন্ধীয় উপকার। কেন আপনি বাঁধাকপি খাবেন? বাঁধাকপি খাওয়ার উপকারিতা।

    Many of us may not like eating a cabbage, or if at all we do, we may like adding a lot of spices to pep up its taste. People don't really mind throwing it off too due to its blandness.
    Story first published: Friday, November 4, 2016, 10:02 [IST]
    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Boldsky sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Boldsky website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more