For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

রমজান ২০২১ : রোজা রাখছেন? রইল রোজা রাখার স্বাস্থ্য উপকারিতা ও ঝুঁকি

|

আজ থেকে শুরু রমজান মাস। বিশ্বব্যাপী মুসলিম ধর্মাবলম্বীরা এই পবিত্র মাসে রোজা রাখার জন্য প্রস্তুতি শুরু করেছে। রমজানের সময়, ইসলাম অনুগামীরা সূর্যোদয় থেকে সূর্যাস্ত অবধি কোনও খাবার এবং জল ছাড়াই থাকে। এই মাসে খাওয়া-দাওয়া, জল পান করার সময় পুরোপুরিভাবে বদলে যাওয়ার জন্য শরীর অন্য পর্যায়ে চালিত হয়।

উপবাসের সময় শরীরে বিভিন্নরকম সমস্যা দেখা দিতে পারে, যেমন - অম্বল, ডিহাইড্রেশন এবং শারীরিক অস্বস্তি, ইত্যাদি। এছাড়াও, ওজন হ্রাস, উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ, ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ, পেশী শক্তি সংরক্ষণ ইত্যাদিও দেখা যায়। আজ এই নিবন্ধে, আমরা রমজানের সময় রোজা রাখার ঝুঁকি এবং উপকারিতা সম্পর্কে বলব।

তাহলে আসুন জেনে নেওয়া যাক রমজান মাসে উপবাস করার স্বাস্থ্য উপকারিতা এবং ঝুঁকি সম্পর্কে।

স্বাস্থ্য উপকারিতা

১) ওজন কমানোর জন্য দুর্দান্ত

২) ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণ করে

৩) উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে

৪) পেশী শক্তি সংরক্ষণ করে

৫) রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা উন্নত করে

৬) এটি প্রদাহজনক প্রতিক্রিয়া সমাধান করে

৭) মস্তিষ্কের কার্যকারিতা উন্নত করে

৮) মানসিক স্বচ্ছতা দেয়

আরও পড়ুন : ইমিউনিটি বাড়াতে আয়ুষ মন্ত্রকের নির্দেশিকা

১) ওজন কমানোর জন্য দুর্দান্ত

অতিরিক্ত ওজনযুক্ত ব্যক্তিরা এইসময়ে বিশেষভাবে উপকৃত হয়। তবে এমন নয় যে ওজন কমানোর জন্য রমজান অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। কিন্তু, যেহেতু এইসময় মানুষ নির্দিষ্ট নিয়ম মেনে চলে, সকাল এবং সন্ধ্যেয় স্বাস্থ্যকর ডায়েট অনুসরণ করে, যেমন - স্যুপ, রুটি, খেজুর এবং অন্যান্য ফল, যা দ্রুত ওজন হ্রাস করতে সহায়তা করে।

চিনি এবং চর্বিযুক্ত খাবার এড়ানো হয় বদলে তাজা ফল, তাজা শাকসবজি এবং জল গ্রহণের পরিমাণ বৃদ্ধি পায়। এর ফলে ওজন হ্রাস হয়।

২) ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণ করে

রমজানে রোজা রাখার অন্যতম সুবিধা হল এটি আপনার রক্তে শর্করাকে নিয়ন্ত্রণ করতে সহায়তা করে। রোজা আপনার গ্লুকোজকে ভেঙে দেয় যাতে শরীর শক্তি পেতে পারে যা ইনসুলিনের উৎপাদন হ্রাস করে।

৩) এটি উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে

উপবাস এথেরোস্ক্লেরোসিসের ঝুঁকি হ্রাস করতে সাহায্য করতে পারে। দেহ খাদ্য এবং জল থেকে বঞ্চিত হওয়ার পরেও শরীরে সঞ্চিত ফ্যাট শক্তি হিসেবে ব্যবহৃত হয়। উপবাসের সময় বিপাকের হারও হ্রাস পায়।

অ্যাড্রিনালিন এবং ননঅ্যাড্রিনালিন হরমোনগুলির ক্ষরণও হ্রাস পায়; এটি বিপাকের হারকে স্থিতিশীল রাখতে সহায়তা করে, যার ফলে উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে।

৪) পেশী শক্তি সংরক্ষণ করে

আপনার পেশীগুলিতে সঞ্চিত ফ্যাট ব্যবহৃত হবে। আপনি যখনই কার্বোহাইড্রেট গ্রহণ করেন, তখন গ্লাইকোজেন (ফ্যাট সেল) যুক্ত হয়, যা ওজন বাড়িয়ে তোলে। তবে, রমজানের রোজার সময়, ফ্যাট কোষগুলি শক্তির উৎস হিসেবে ব্যবহৃত হয়।

৫) রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা উন্নত করে

রমজানে রোজার সময় মানুষ সাধারণত উপবাসের মাঝে স্বাস্থ্যকর খাবার খায়। এটি অনাক্রম্যতা বাড়াতে, টক্সিন নির্মূল করতে এবং চর্বি হ্রাস করতে সহায়তা করে। রোজা ভাঙার জন্য যখন খেজুর এবং ফল খাওয়া হয় তখন এগুলি শরীরের প্রয়োজনীয় ভিটামিন এবং খনিজগুলির সঞ্চয় বাড়ায়।

ভিটামিন এ এবং ভিটামিন ই সমস্ত ফলের মধ্যে উপস্থিত, যা আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সহায়তা করে।

৬) এটি প্রদাহজনক প্রতিক্রিয়া সমাধান করে

রমজানে রোজা রাখার আরেকটি শারীরিক সুবিধা হল এটি প্রদাহজনিত রোগ এবং অ্যালার্জির সারাতে সহায়তা করে। প্রদাহজনিত রোগের কয়েকটি উদাহরণ হল - আর্থারাইটিস এবং ত্বকের রোগ যেমন সোরিয়াসিস। বিশেষজ্ঞরা বলেছেন যে, উপবাসের ফলে আলসারেটিভ কোলাইটিসের মতো প্রদাহজনক পেটের রোগ নিরাময়ের উন্নতি হতে পারে।

আরও পড়ুন : হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন কী? এতেই কোভিড-১৯ চিকিৎসার দাবি আমেরিকার

৭) মস্তিষ্কের কার্যকারিতা উন্নত করে

অনেক গবেষণায় দেখা গেছে যে, রোজা কিছু নির্দিষ্ট প্রোটিনের উৎপাদন বাড়িয়ে তুলতে পারে, যা মস্তিষ্কের ক্রিয়াকলাপের জন্য উপকারি। এই প্রোটিনগুলি মস্তিষ্কের স্টেম সেলগুলি সক্রিয় করতে সহায়তা করবে যাতে তারা ভালভাবে কাজ করতে পারে। এই কারণেই আপনি যখন উপবাস করেন তখন আপনার মস্তিষ্ক সজাগ হয়ে যায়।

৮) মানসিক স্বচ্ছতা দেয়

রমজানের সময় রোজার আরেকটি মানসিক সুবিধা হল এটি আপনার শরীরকে খাদ্য এবং পানীয়ের প্রতি কীভাবে আপনার আকাঙ্ক্ষাগুলি নিয়ন্ত্রণ করবেন তা শেখার জন্য প্রস্তুত করে। এই প্রক্রিয়াতে, মস্তিষ্ক সেই অবস্থার সাথে মানিয়ে নেয় এবং কীভাবে আরও ধৈর্যশীল হতে হয় তা শেখায়।

রমজানে রোজা করার উপকারিতার পাশাপাশি কিছু ঝুঁকিও রয়েছে, সেগুলি হল -

ক) রমজানের সময় ক্যাফিনেটেড পানীয়গুলি বা অন্যান্য কার্বনেটেড পানীয়ও এড়ানো উচিত যেগুলি অ্যাসিডিটির কারণ হতে পারে।

খ) সূর্যের সংস্পর্শ এড়ানোর চেষ্টা করুন এবং রোজা শুরুর আগে প্রচুর পরিমাণে জল পান করুন, নাহলে বাইরের উচ্চ তাপমাত্রার কারণে আপনার ডিহাইড্রেশন হতে পারে যার ফলে আপনি চেতনা হারাতে পারেন।

গ) দীর্ঘস্থায়ী কিডনিতে আক্রান্ত ব্যক্তিদের উপবাসের ক্ষেত্রে সমস্যা হতে পারে।

English summary

Ramadan 2021 : Health Benefits And Risks Of Fasting During Ramadan

Let's have a look at the health benefits and risks of fasting during Ramadan.
X