ঘরেই ত্বক টানটান করুন, এই তেলগুলির সাহায্যে!

By: ANINDITA SINHA
Subscribe to Boldsky

প্রত্যেকেই তাদের শরীরে দৃঢ়, টানটানে ত্বক চান। কিন্তু স্বভাবতই, বাস্তবে ত্রুটিহীন হওয়া সম্ভব না। ধারনাটা হল, ত্রুটিহীন হওয়া না বরং যেভাবে রয়েছে সেইভাবেই সেই খুঁতগুলিকে মেনে নেওয়া এবং ত্বক যেন সুস্থ থাকে তা সুনিশ্চিত করা।

আর টানটানে ত্বক স্বভাবতই, সুস্থ দেখায়। তাই, যেই তেলগুলির ব্যবহারে আপনার ত্বককে ঘরেই টানটান করে তুলতে পারবেন, সেই তেলগুলির একটি লিস্ট এখানে আমরা শেয়ার করতে চলেছি।

টানটানে দৃঢ় ত্বক আমরা সকলেই চাই। মোটের ওপর, ঢিলা ত্বক মোটেই আরামদায়ক নয় এবং দেখতেও প্রীতিকর নয়। আনন্দের বিষয় এই যে, এই ঘরোয়া প্রতিকারগুলি আপনি আপনার ঢিলা ত্বককে ঠিক করতে ব্যবহার করতে পারবেন।

এই প্রতিকারগুলি কিছুটা সময় নেবে, কিন্তু শেষমেশ এটি আপনার ত্বককে সামগ্রিকভাবে সুস্থ হওয়ার দিকে নিয়ে যাবে। এটি শুধু আপনার ত্বককে টানটানই করবে না বরং আপনার ত্বককে মসৃণ, কোমল ও উজ্জ্বল করে তুলবে।

এখন, একসাথে এতোগুলি উপকার কে বা না চাইবে? তাই, এগুলি ব্যবহার করুন ও ধৈর্যশীল হওয়ার কথা মনে রাখুন, কারণ কোন ঘরোয়া প্রতিকারই রাতারাতি ম্যাজিক করতে পারে না। এর সময় ও ধৈর্যের প্রয়োজন। এবং কোন কিছু যদি আপনি প্রথমবার ব্যবহার করতে যান তবে প্যাচ টেস্ট করে নেওয়ার কথা মনে রাখবেন।

১. তিলের তেল:

১. তিলের তেল:

তিলের তেল জিঙ্কে সমৃদ্ধ, যা কোলাজেনের (collagen) উৎপাদনে জন্য অপরিহার্য। এটি ত্বককে টানটান করতে সাহায্য করে। ঢিলে ত্বকের থেকে নিস্তার পেতে এই তেলকে শরীরে ও মুখের জন্য ব্যবহার করা যায়।

২. নারকেলের তেল:

২. নারকেলের তেল:

এমন একটা ত্বকের সমস্যা নেই যা কিনা নারকেলের তেল সমাধান করতে পারে না। টানটানে ত্বক পেতে পুরো শরীরে নারকেলের তেল মালিশ করুন। ভাল ফল পাওয়ার জন্য দিনে দুইবার এই প্রক্রিয়াটি অনুসরণ করুন।

৩. ক্যাস্টর অয়েল:

৩. ক্যাস্টর অয়েল:

ক্যাস্টর অয়েল স্বাস্থ্যকর ফ্যাটি অ্যাসিডে পরিপূর্ণ যা কোলাজেন তৈরিতে সত্যিই সাহায্যকর। এটি একটি কার্যকর উপায় যার সাহায্যে আপনি ত্বককে টানটান করতে পারবেন।

৪. অলিভ অয়েল:

৪. অলিভ অয়েল:

অলিভ অয়েল ভিটামিন-ই তে সমৃদ্ধ, যা সুস্থ ত্বকের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ বিল্ডিং ব্লক। সেরা ফলাফলের জন্য প্রতিদিন অন্তত একবার করে আপনার ত্বক অলিভ অয়েল দিয়ে মাসাজ করুন।

৫. কফি:

৫. কফি:

কফিতে উপস্থিত ক্যাফেইন, ত্বকের গঠনবিন্যাসকে উন্নত করে ও নবীন দেখাবে এমন টানটানে ত্বক সুনিশ্চিত করে।

৬. আমন্ড অয়েল:

৬. আমন্ড অয়েল:

আমন্ড অয়েল আরেকটি তেল, যা ভিটামিন-ই তে সমৃদ্ধ। এর মধ্যে থাকা অ্যান্টি-অক্সিডেন্টে, যা ত্বকীয় টিস্যুকে সারাই করে, ঢিলে ও ঝুলে পড়া ত্বককে মেরামত করতে সাহায্য করে।

৭. নেরোলি অয়েল:

৭. নেরোলি অয়েল:

এটি পরিণত ঝুলে পড়া ত্বকের জন্য সবথেকে সেরা। এটি ঢিলে ও ঝুলে পরা ত্বক থেকে নিস্তার পেতে সাহায্য করে এবং এমনকি সূক্ষ্ম লাইন ও বলিরেখাকে মসৃণ করতেও সাহায্য করে।

৮. ফ্র্যাংকিনসেন্স অয়েল:

৮. ফ্র্যাংকিনসেন্স অয়েল:

এই তেলটির অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল বৈশিষ্ট্য রয়েছে এবং এটি ব্রণ-প্রবণ ত্বকের জন্য ভাল হিসাবে পরিচিত, কিন্তু এটি ঢিলা ত্বকের উপাচারেও ব্যবহার করা যেতে পারে।

English summary
Everyone wants firmer skin on their bodies. But, of course, it isn't really possible to be flawless. The idea is not to be flawless, but to accept the imperfections the way they are, and to ensure that the skin remains healthy.
Story first published: Sunday, December 4, 2016, 10:00 [IST]
Please Wait while comments are loading...