For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

মুখের পাশাপাশি হাত কোমল ও সুন্দর রাখবেন কীভাবে? দেখে নিন কিছু টিপস্

|

আমাদের শরীরের বিভিন্ন অংশের মধ্যে হাত যে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। কারণ, হাত ছাড়া আমরা আমাদের কোনও কাজই করতে পারব না। আমরা হাতেই সমস্ত কাজ করি, কিন্তু হাতের যত্ন নেওয়ার কথা আমাদের কারুরই খেয়ালে থাকে না।

নরম এবং সুন্দর হাত আমাদের সকলেরই পছন্দ। প্রতিদিনের কাজ, শীতের আবহাওয়া, খারাপ রাসায়নিকের সংস্পর্শ এবং সঠিক যত্নের অভাব আমাদের হাতকে শুষ্ক, রুক্ষ এবং ক্ষতিগ্রস্থ করে তুলতে পারে। তাই, আজ আমরা হাত সুন্দর রাখতে আপনাদের কাছে কিছু আশ্চর্যজনক টিপস্ এবং প্রতিকার নিয়ে এসেছি যা, আপনি অনুসরণ করতে পারেন এবং প্রাকৃতিকভাবে আপনার হাতকে নরম ও কেমল করে তুলতে পারেন। তাহলে আসুন দেখে নেওয়া যাক টিপস্গুলি -

১) হাতকে ময়েশ্চরাইজ রাখুন

১) হাতকে ময়েশ্চরাইজ রাখুন

শুষ্কতা আমাদের হাতকে রুক্ষ করে তোলে এবং হাতে ফাটল ধরায়। তাই, শুধুমাত্র মুখেই নয়, আমাদের হাতেও ময়েশ্চরাইজার লাগানো প্রয়োজন। হাতকে হাইড্রেট রাখলে সহজেই বাচ্চাদের মতো নরম হাত পাওয়া যায়। আপনি এর জন্য দোকান থেকে কেনা ময়েশ্চারাইজার বেছে নিতে পারেন বা নারকেল তেল, আমন্ড তেল এবং অলিভ অয়েলের মতো প্রাকৃতিক তেলগুলি ব্যবহার করতে পারেন, যা আপনার হাতকে নরম, কোমল এবং স্বাস্থ্যকর রাখবে।

২) হাতের জন্য ক্রিম কিনুন

২) হাতের জন্য ক্রিম কিনুন

আপনার হাতে পুষ্টি এবং ময়শ্চার উভয়েরই প্রয়োজন। আর, হাত নরম রাখতে হ্যান্ড ক্রিম সত্যই উপযুক্ত। এটি আপনার হাতের আর্দ্রতা হ্রাস প্রতিরোধ করে। সবসময় হাত ধোয়ার পরে, হাতে ক্রিম লাগিয়ে নিন। এতে এমন উপাদান রয়েছে যা, আপনার হাতকে নরম করে তুলবে।

৩) ঘন ঘন সাবান ব্যবহার করবেন না

৩) ঘন ঘন সাবান ব্যবহার করবেন না

ঘন ঘন হাত ধোয়া, আপনার হাত শুকিয়ে যেতে পারে যার ফলে হাত রুক্ষ হয়ে যায়। এর কারণ হল, হাত ধোয়ার জন্য আপনি যে সাবানটি ব্যবহার করছেন সেটা। আমাদের ত্বকের তুলনায় সাবানে উচ্চতর পিএইচ থাকে এবং এটি আমাদের ত্বকের পিএইচ ভারসাম্যকে ব্যাহত করে। সাবানে খারাপ রাসায়নিক রয়েছে যা, আপনার হাতের আর্দ্রতা হ্রাস করতে পারে। সাবানের পরিবর্তে, হাত ধোয়ার জন্য হ্যান্ড ওয়াশ ব্যবহার করুন।

পার্লার নয়, বাড়িতে বসেই করুন জেল ম্যানিকিওর

৪) গরম জল এড়িয়ে চলুন

৪) গরম জল এড়িয়ে চলুন

হাত ধোয়া বা স্নান করার সময় গরম জল ব্যবহার করা হাতের আর্দ্রতাকে হ্রাস করতে পারে এবং রুক্ষ করে তুলতে পারে। তাই, হাত পরিষ্কার করার জন্য গরম জল ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন। পরিবর্তে, ঠান্ডা জল বা একদম হালকা গরম জল ব্যবহার করুন।

৫) ঘরের কাজকর্ম করার সময় হাতে গ্লাভস পরুন

৫) ঘরের কাজকর্ম করার সময় হাতে গ্লাভস পরুন

গৃহস্থালির কাজ যেমন বাসন বা কাপড় ধোয়া আমাদের হাতের ক্ষতি করতে পারে এবং হাতকে শুষ্ক ও রুক্ষ করে তুলতে পারে। এই কাজগুলি করার জন্য আমরা যে ডিটারজেন্ট এবং সাবানগুলি ব্যবহার করি সেগুলি হল এর আসল কারণ। তাই, ঘরের কাজ করার সময় বিশেষত শীতকালে, রবারের গ্লাভস ব্যবহার করে হাতকে সুরক্ষিত রাখুন, যা আপনার হাতে জল বা ক্ষতিকর সাবান লাগতে দেয় না।

৬) হাতকে সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি এবং শীতল বাতাস থেকে রক্ষা করুন

৬) হাতকে সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি এবং শীতল বাতাস থেকে রক্ষা করুন

সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি আমাদের ত্বকের ক্ষতির মূল কারণ। যখন আমরা সূর্য থেকে বাঁচার কথা চিন্তা করি, তখন আমরা কেবল আমাদের মুখের কথা চিন্তা করি, হাতের নয়। কিন্তু, আপনার হাতগুলিও আপনার মুখের মতোই ক্ষতি হতে পারে। সুতরাং, যখন সানস্ক্রিন লাগাবেন, তখন নিজের হাতকেও সুরক্ষিত রাখুন।

রোদ্দুর ছাড়াও শীতেকালের বাতাসও আপনার হাতকে শুষ্ক এবং রুক্ষ করে তুলতে পারে। তাই, এর থেকে হাতকে রক্ষা করতে, আপনি যখনই বাইরে বেরোবেন তখনই গ্লাভস পরে নিন।

শীতকালে ত্বকের লালচে ভাব কমাবেন কীভাবে? সমস্যা সমাধানের জন্য রইল কয়েকটি টিপস্

৭) পুষ্টি বাড়ানোর জন্য ঘরোয়া উপায়

৭) পুষ্টি বাড়ানোর জন্য ঘরোয়া উপায়

উপরে বর্ণিত টিপসগুলি হল হাত কোমল ও সুন্দর করার জন্য প্রয়োজনীয় জীবনযাত্রার পরিবর্তনগুলি। তবে, হাত পুষ্টিযুক্ত রাখতে এবং আরও নরম করতে আপনি কিছু ব্যবস্থা নিতে পারেন।

১) অলিভ অয়েল এবং চিনি

১) অলিভ অয়েল এবং চিনি

অলিভ অয়েল হাতের আর্দ্রতা বজায় রাখে এবং চিনি হাতের রুক্ষতা থেকে মুক্তি দিতে ও আপনার হাতকে নরম, সুন্দর করে তুলতে ত্বককে এক্সফোলিয়েট করে।

উপাদান

ক) হাফ চা চামচ অলিভ অয়েল

খ) ১ চা চামচ চিনি

পদ্ধতি

ক) আপনার হাতের তালুতে চিনি নিন।

খ) এতে অলিভ অয়েল যুক্ত করুন এবং এটি দুই হাতে ঘষে আপনার হাতগুলি ভালভাবে স্ক্রাব করুন।

গ) ২-৩ মিনিট ধরে হাত ম্যাসাজ করুন।

ঘ) এটি আরও এক মিনিট রেখে দিন।

ঙ) পরে হালকা গরম জলে হাত ধুয়ে ফেলুন।

২) মাখন এবং আমন্ড অয়েল

২) মাখন এবং আমন্ড অয়েল

ভিটামিন এ এবং ফ্যাটি অ্যাসিড সমৃদ্ধ, মাখন আমাদের হাতকে পুষ্ট করে এবং প্রাকৃতিকভাবে উজ্জ্বল করে তোলে। আমন্ড অয়েলে চমৎকার ইমোলিয়েন্ট বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা, আমাদের হাতের গঠনকে উন্নত করে এবং নরম করে।

উপাদান

ক) ১ চা চামচ মাখন

খ) ১ চা চামচ আমন্ড অয়েল

পদ্ধতি

ক) একটি পাত্রে দুটি উপাদান ভাল করে মেশান।

খ) মিশ্রণটি আপনার হাতে নিয়ে প্রায় এক মিনিট ধরে হাত ভালভাবে স্ক্রাব করুন।

গ) মিশ্রণটি আরও এক মিনিট আপনার ত্বকে রেখে দিন।

ঘ) পরে হালকা গরম জলে হাত ধুয়ে ফেলুন এবং শুকিয়ে ফেলুন।

দাড়ির যত্ন নেবেন কীভাবে? দেখে নিন কিছু গুরুত্বপূর্ণ টিপস্

৩) গ্লিসারিন, লেবু এবং গোলাপ জল

৩) গ্লিসারিন, লেবু এবং গোলাপ জল

ত্বকে আর্দ্রতা ফেরাতে গ্লিসারিন একটি দুর্দান্ত উপাদান। ভিটামিন সি সমৃদ্ধ, লেবু কেবল আপনার হাতকেই উজ্জ্বল করে না, এটি সূর্য থেকে সুরক্ষিত করে এবং ত্বকে বার্ধক্যতার ছাপ পড়তে দেয় না। গোলাপ জল ত্বকের পিএইচ ভারসাম্য বজায় রাখতে এবং হাত নরম ও কোমল রাখতে সহায়তা করে।

উপাদান

ক) ১ চা চামচ গ্লিসারিন

খ) ১ চা চামচ লেবুর রস

গ) ১ চা চামচ গোলাপ জল

পদ্ধতি

ক) একটি পাত্রে সবকটি উপাদান মিশ্রিত করুন।

খ) এরপর, ১-২ মিনিট ধরে মিশ্রণটি দিয়ে ধীরে ধীরে আপনার হাতগুলি ভালভাবে স্ক্রাব করুন।

গ) আরও ৩০ মিনিট এটি আপনার হাতে রাখুন পুষ্ট করার জন্য।

ঘ) পরে হাত ভালভাবে ধুয়ে ফেলুন।

৪) বেকিং সোডা, মধু এবং লেবু

৪) বেকিং সোডা, মধু এবং লেবু

বেকিং সোডা একটি অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল এজেন্ট যা, আপনার হাতগুলি পরিষ্কার এবং স্বাস্থ্যবান রাখতে সহায়তা করে। লেবু হাতের গঠন উন্নত করে এবং মধু ত্বকে আর্দ্রতা বজায় রাখে নরম, কোমল এবং সুন্দর হাত দেওয়ার জন্য।

উপাদান

ক) ২ চা চামচ বেকিং সোডা

খ) ২ চা চামচ মধু

গ) ২ চা চামচ লেবু

২০২০ সালের জন্য রইল কিছু মেক-আপ ট্রেন্ডস্, যা আপনাকে আকর্ষণীয় করে তুলবে

পদ্ধতি

ক) একটি পাত্রে সবকটি উপাদান মিশ্রিত করুন।

খ) মিশ্রণটি হাতে লাগান এবং ধীরে ধীরে হাত স্ক্রাব করুন।

গ) আপনার আঙুলের মাঝে এবং নখের চারপাশেও স্ক্রাব করুন।

ঘ) একবার হয়ে গেলে, এটি আরও পাঁচ মিনিট আপনার ত্বকে রেখে দিন।

ঙ) পরে ভালভাবে ধুয়ে ফেলুন।

Read more about: hands skin beauty হাত tips
English summary

How To Make Your Hands Soft

Today, we are here to share with you some amazing tips and remedies that you can follow and make your hands soft naturally. Let's begin.
X