কলা ব্যবহারের দশটি উপায় আপনার নিত্য সৌন্দর্য চর্চায়

Posted By: Staff
Subscribe to Boldsky

আপনি কি জানেন কলার ব্যবহার আপনার নিত্য সৌন্দর্য চর্চায়?

এই ফলটি সহজলভ্য এবং এর বহুমুখীতার জন্য প্রত্যেক রান্নাঘরে পাওয়া যায়|

কলা শক্তির মহান উৎস এবংএটি সহজে নষ্ট হয় না|একটি কলা আপনাকে অনেক ঘন্টা অবধি কর্মশক্তি যোগায়|

এটি অত্যন্ত ভালো তাদের জন্য যারা সকালের জলখাবারের সময় পান না|সময়ের অভাবে জলখাবার বাদ না দিয়ে একটি কলা খেতে পারেন যদিও জলখাবার পরিত্যাগ করা বিচক্ষণতার কাজ নয়|

কলা সংরক্ষণ করা যায় ও সহজে নষ্ট হয় না|স্বাস্থকর খাদ্যের সাথে সাথে এটি আমাদের ত্বকেরও উপকার করে তাই চুল ও ত্বকের জন্য একে ব্যবহার করা যেতে পারে|

অনেক ঘরোয়া প্রতিকার এটির দ্বারা সম্ভব|এই ফলটির দ্বারা প্রাকৃতিক উপায়ে আপনি আপনার নিত্য সৌন্দর্য চর্চা করতে পারেন যা অন্য রাসায়নিক যুক্ত দ্রব্যে উপকৃত নাও হতে পারেন|

কলা, আর্দ্রতা, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ফটোকেমিক্যালস সমৃদ্ধ তাই ত্বক, শরীর এবং চুলের পুষ্টি প্রদান করার জন্য এটি একটি দুর্দান্ত ঘরোয়া প্রতিকার|

এছাড়াও কলা সস্তা বলে খুব সহজেই পাওয়া যায়|সুতরাং, এখানে, আপনার নিত্য সৌন্দর্য চর্চার মধ্যে কলা ব্যবহারের সবচেয়ে ভাল উপায়ের একটি তালিকা দেওয়া হল| এমনকি ফলের খোসা সৌন্দর্যের জন্য সুবিদিত|আসুন দেখে নেওয়া যাক|

1.ব্রণ জন্য :

1.ব্রণ জন্য :

কলার খোসা ব্রণর জন্য দায়ী রোগ জীবাণু (ব্যাকটেরিয়া) ধ্বংস করে ও জ্বালা কমাতে সাহায্য করে| শুধু ব্রণর ওপর কলার খোসার ভিতরের অংশটি ঘষুণ|নিত্য সৌন্দর্য্য চর্চায় এটি সর্বোত্তম উপায়|

2. বার্ধক্য হ্রাস করতে:

2. বার্ধক্য হ্রাস করতে:

কলা বলি রেখা কমাতে সাহায্য করে|প্রাকৃতিক উপায়ে সবচেয়ে শক্তিশালী বার্ধক্য নাসের প্যাকের জন্য কলা চটকে তার ভেতরে লেবুর রস ও দই মিশিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরী করুন| এখন, এটি একটি নিখুঁত ঘরোয়া প্রতিকার যা অনুসরণ যোগ্য|

3. আদ্রতা বজায় রাখতে:

3. আদ্রতা বজায় রাখতে:

পটাশিয়াম ও অন্যান্য খনিজ সমৃদ্ধ বলে কলা আদ্রতা ধরে রাখতে সক্ষম|কলা চটকে মুখে মেখে দশ মিনিট মিশ্রণটি বসতে দিন|এরপর নরম ও নমনীয় ত্বকের ছোঁয়া পেতে মুখ ধুয়ে ফেলুন|

4.তেল নিয়ন্ত্রণের জন্য:

4.তেল নিয়ন্ত্রণের জন্য:

নিত্য সৌন্দর্য্য চর্চার জন্য কলা ব্যবহারের উত্তম উপায় হল একটি মুখের প্যাক তৈরী করা|কলা, মধু ও লেবুর রস দিয়ে তৈরী মুখের প্যাক অত্যন্ত ফলপ্রদ মুখের শুষ্কতা বজায় রেখে তৈলাক্ততা দূর করতে|

5. নিস্তেজ ত্বকের জন্য:

5. নিস্তেজ ত্বকের জন্য:

কলার মধ্যে ভিটামিন সি একটি দুর্দান্ত উপায় যা ত্বক উজ্জ্বল করতে সাহায্য করে|এর জন্য, কলার সাথে লেবুর রস ও চন্দন মেশাতে হবে|

6. ফোলা চোখের জন্য:

6. ফোলা চোখের জন্য:

চোখের ফোলা কমাতে কলা চটকে মন্ড বানিয়ে ঘুম থেকে উঠে চোখের নিচে লাগান|এই ক্ষেত্রে ঠান্ডা কলা ব্যবহার করলে উপকৃত হবেন| এই প্রাকৃতিক প্রতিকার আপনার সকালের নিস্তেজতার সমাধান করতে পারে|

7. চোখের কোনে কালি:

7. চোখের কোনে কালি:

কলার খোসা চৌকো করে কেটে রেফ্রিজারেটরে ঠান্ডা করে চোখের নিচে রাখলে চোখের কোনের কালি দূর হবে|প্রতি সপ্তাহে অন্তত দুবার এই প্রতিকার করলে এক মাসের মধ্যে চোখের কোনের কালি থেকে উপকৃত হবেন|

8. শুষ্ক অথবা কোঁকড়ানো চুল নিয়ন্ত্রণ করার জন্য:

8. শুষ্ক অথবা কোঁকড়ানো চুল নিয়ন্ত্রণ করার জন্য:

কলা পটাসিয়াম এবং ভিটামিন 'এ' এর একটি বড় উৎস, যা চুলের পুষ্টি যোগায় ও সতেজতা বাড়াতে সাহায্য করে|কলা চটকে মধু মিশিয়ে নিস্তেজ চুলের জন্য একটি ময়শ্চারাইজিং হেয়ার কন্ডিশনার তৈরী করতে পারেন|

9. হলদেটে দাঁতের প্রতিকার:

9. হলদেটে দাঁতের প্রতিকার:

সাদা ঝকঝক দাঁতের জন্য কলার খোসার ভেতরের অংশ প্রতি রাতে হলদে দাঁতে ঘষুন| কলার ভেতরের পটাসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম এবং ম্যাঙ্গানিজ আপনার দাঁতের ভেতরে গিয়ে দাঁতকে সাদা করতে সাহায্য করে|

10. শুষ্ক নির্জীব ত্বকের আঁশ পরিষ্কারের জন্য(এক্সফোলিয়েশন):

10. শুষ্ক নির্জীব ত্বকের আঁশ পরিষ্কারের জন্য(এক্সফোলিয়েশন):

কলা শরীরের শুষ্ক নির্জীব ত্বক পরিষ্কার করতে একটি চমৎকার ব্রাশ হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে| মসৃন ত্বকের জন্য দুটি কলা একটু ব্রাউন সুগারের সাথে মিশিয়ে ত্বকের ওপর লাগান| আপনার মাধুর্য্য ধরে রাখতে এই ভাবে কলার শ্রেষ্ঠ ব্যবহার করা যেতে পারে|

English summary
Do you know of the best ways to use bananas in your beauty routine? This perfect fruit is available to everyone
Please Wait while comments are loading...