কলা ব্যবহারের দশটি উপায় আপনার নিত্য সৌন্দর্য চর্চায়

Posted By: Super Admin
Subscribe to Boldsky

আপনি কি জানেন কলার ব্যবহার আপনার নিত্য সৌন্দর্য চর্চায়?

এই ফলটি সহজলভ্য এবং এর বহুমুখীতার জন্য প্রত্যেক রান্নাঘরে পাওয়া যায়|

কলা শক্তির মহান উৎস এবংএটি সহজে নষ্ট হয় না|একটি কলা আপনাকে অনেক ঘন্টা অবধি কর্মশক্তি যোগায়|

এটি অত্যন্ত ভালো তাদের জন্য যারা সকালের জলখাবারের সময় পান না|সময়ের অভাবে জলখাবার বাদ না দিয়ে একটি কলা খেতে পারেন যদিও জলখাবার পরিত্যাগ করা বিচক্ষণতার কাজ নয়|

কলা সংরক্ষণ করা যায় ও সহজে নষ্ট হয় না|স্বাস্থকর খাদ্যের সাথে সাথে এটি আমাদের ত্বকেরও উপকার করে তাই চুল ও ত্বকের জন্য একে ব্যবহার করা যেতে পারে|

অনেক ঘরোয়া প্রতিকার এটির দ্বারা সম্ভব|এই ফলটির দ্বারা প্রাকৃতিক উপায়ে আপনি আপনার নিত্য সৌন্দর্য চর্চা করতে পারেন যা অন্য রাসায়নিক যুক্ত দ্রব্যে উপকৃত নাও হতে পারেন|

কলা, আর্দ্রতা, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ফটোকেমিক্যালস সমৃদ্ধ তাই ত্বক, শরীর এবং চুলের পুষ্টি প্রদান করার জন্য এটি একটি দুর্দান্ত ঘরোয়া প্রতিকার|

এছাড়াও কলা সস্তা বলে খুব সহজেই পাওয়া যায়|সুতরাং, এখানে, আপনার নিত্য সৌন্দর্য চর্চার মধ্যে কলা ব্যবহারের সবচেয়ে ভাল উপায়ের একটি তালিকা দেওয়া হল| এমনকি ফলের খোসা সৌন্দর্যের জন্য সুবিদিত|আসুন দেখে নেওয়া যাক|

1.ব্রণ জন্য :

1.ব্রণ জন্য :

কলার খোসা ব্রণর জন্য দায়ী রোগ জীবাণু (ব্যাকটেরিয়া) ধ্বংস করে ও জ্বালা কমাতে সাহায্য করে| শুধু ব্রণর ওপর কলার খোসার ভিতরের অংশটি ঘষুণ|নিত্য সৌন্দর্য্য চর্চায় এটি সর্বোত্তম উপায়|

2. বার্ধক্য হ্রাস করতে:

2. বার্ধক্য হ্রাস করতে:

কলা বলি রেখা কমাতে সাহায্য করে|প্রাকৃতিক উপায়ে সবচেয়ে শক্তিশালী বার্ধক্য নাসের প্যাকের জন্য কলা চটকে তার ভেতরে লেবুর রস ও দই মিশিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরী করুন| এখন, এটি একটি নিখুঁত ঘরোয়া প্রতিকার যা অনুসরণ যোগ্য|

3. আদ্রতা বজায় রাখতে:

3. আদ্রতা বজায় রাখতে:

পটাশিয়াম ও অন্যান্য খনিজ সমৃদ্ধ বলে কলা আদ্রতা ধরে রাখতে সক্ষম|কলা চটকে মুখে মেখে দশ মিনিট মিশ্রণটি বসতে দিন|এরপর নরম ও নমনীয় ত্বকের ছোঁয়া পেতে মুখ ধুয়ে ফেলুন|

4.তেল নিয়ন্ত্রণের জন্য:

4.তেল নিয়ন্ত্রণের জন্য:

নিত্য সৌন্দর্য্য চর্চার জন্য কলা ব্যবহারের উত্তম উপায় হল একটি মুখের প্যাক তৈরী করা|কলা, মধু ও লেবুর রস দিয়ে তৈরী মুখের প্যাক অত্যন্ত ফলপ্রদ মুখের শুষ্কতা বজায় রেখে তৈলাক্ততা দূর করতে|

5. নিস্তেজ ত্বকের জন্য:

5. নিস্তেজ ত্বকের জন্য:

কলার মধ্যে ভিটামিন সি একটি দুর্দান্ত উপায় যা ত্বক উজ্জ্বল করতে সাহায্য করে|এর জন্য, কলার সাথে লেবুর রস ও চন্দন মেশাতে হবে|

6. ফোলা চোখের জন্য:

6. ফোলা চোখের জন্য:

চোখের ফোলা কমাতে কলা চটকে মন্ড বানিয়ে ঘুম থেকে উঠে চোখের নিচে লাগান|এই ক্ষেত্রে ঠান্ডা কলা ব্যবহার করলে উপকৃত হবেন| এই প্রাকৃতিক প্রতিকার আপনার সকালের নিস্তেজতার সমাধান করতে পারে|

7. চোখের কোনে কালি:

7. চোখের কোনে কালি:

কলার খোসা চৌকো করে কেটে রেফ্রিজারেটরে ঠান্ডা করে চোখের নিচে রাখলে চোখের কোনের কালি দূর হবে|প্রতি সপ্তাহে অন্তত দুবার এই প্রতিকার করলে এক মাসের মধ্যে চোখের কোনের কালি থেকে উপকৃত হবেন|

8. শুষ্ক অথবা কোঁকড়ানো চুল নিয়ন্ত্রণ করার জন্য:

8. শুষ্ক অথবা কোঁকড়ানো চুল নিয়ন্ত্রণ করার জন্য:

কলা পটাসিয়াম এবং ভিটামিন 'এ' এর একটি বড় উৎস, যা চুলের পুষ্টি যোগায় ও সতেজতা বাড়াতে সাহায্য করে|কলা চটকে মধু মিশিয়ে নিস্তেজ চুলের জন্য একটি ময়শ্চারাইজিং হেয়ার কন্ডিশনার তৈরী করতে পারেন|

9. হলদেটে দাঁতের প্রতিকার:

9. হলদেটে দাঁতের প্রতিকার:

সাদা ঝকঝক দাঁতের জন্য কলার খোসার ভেতরের অংশ প্রতি রাতে হলদে দাঁতে ঘষুন| কলার ভেতরের পটাসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম এবং ম্যাঙ্গানিজ আপনার দাঁতের ভেতরে গিয়ে দাঁতকে সাদা করতে সাহায্য করে|

10. শুষ্ক নির্জীব ত্বকের আঁশ পরিষ্কারের জন্য(এক্সফোলিয়েশন):

10. শুষ্ক নির্জীব ত্বকের আঁশ পরিষ্কারের জন্য(এক্সফোলিয়েশন):

কলা শরীরের শুষ্ক নির্জীব ত্বক পরিষ্কার করতে একটি চমৎকার ব্রাশ হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে| মসৃন ত্বকের জন্য দুটি কলা একটু ব্রাউন সুগারের সাথে মিশিয়ে ত্বকের ওপর লাগান| আপনার মাধুর্য্য ধরে রাখতে এই ভাবে কলার শ্রেষ্ঠ ব্যবহার করা যেতে পারে|

English summary

কলা ব্যবহারের দশটি উপায় আপনার নিত্য সৌন্দর্য চর্চায়

Do you know of the best ways to use bananas in your beauty routine? This perfect fruit is available to everyone