ডিমের খোসায় লুকিয়ে রয়েছে ত্বকের সৌন্দর্যের চাবিকাঠি!

Posted By:
Subscribe to Boldsky

একেবারে ঠিক শুনেছেন! বাস্তবিকই ডিমের খোসাকে কাজে লাগিয়ে ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করা সম্ভব। সম্প্রতি প্রকাশিত এক গবেষণা পত্র অনুসারে, ডিমের খোসায় এমন কিছু উপাদান রয়েছে, যা স্কিনকে তরতাজা এবং প্রাণবন্ত করে তুলতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।

ডিমের খোসায় রয়েছে কিছু প্রাকৃতিক অ্যাসিড, যা ত্বককে পরিষ্কার করে তার ঔজ্জ্বল্য় বৃদ্ধি করে। তাই এবার থেকে ডিম খাওয়ার পর আর খোসাটা ফেলবেন না। বরং সেগুলি কাজে লাগিয়ে হয়ে উঠবেন অপরূপ সুন্দরি।

আর কী কী ভাবে ডিমের খোসা সাহায্য করতে পারে? চলুন জেনে নেওয়া যাক সে সম্পর্কে।

১. ত্বকের ছিদ্রগুলিকে পরিষ্কার করে:

১. ত্বকের ছিদ্রগুলিকে পরিষ্কার করে:

পরিমাণ মতো ডিমের খোসা নিয়ে প্রথমে সেগুলিকে গুঁড়ো করে পাউডার বানিয়ে ফেলুন। তারপর সেই পাউডারের সঙ্গে লেবুর রস এবং মধু মিশিয়ে একটা পেস্ট বানিয়ে নিন। তারপর সেই পেস্টটি ভাল করে মুখে লাগিয়ে কিছুক্ষণ রেখে দিন। সময় হয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন। প্রসঙ্গত, এই মিশ্রনটি ত্বকের ছিদ্রয় জমে থাকা ময়লা টেনে বার করে আনে। ফলে স্কিন উজ্জ্বল এবং সুন্দর হয়ে ওঠে।

২. ত্বকের ঔজ্জ্বল্য বৃদ্ধি করে:

২. ত্বকের ঔজ্জ্বল্য বৃদ্ধি করে:

ডিমের খোসায় মজুত থাকে প্রচুর মাত্রায় প্রোটিন এবং ভিটামিন, যা বলিরেখা কমানোর সঙ্গে সঙ্গে ত্বকের বয়স কমাতেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। এক্ষেত্রে কীভাবে ব্যবহার করতে হবে ডিমের খোসাকে? ২ চামচ ডিমের খোসার পাউজার নিন। তারপর তাতে একে একে মধু এবং ময়দা মিশিয়ে সেই মিশ্রনটি মুখে লাগিয়ে কম করে ১৫ মিনিট রেখে দিন। সময় হয়ে গেলে মুখটা ধুয়ে নিন। সপ্তাহে ২-৩ বার এই ফেস প্যাকটি মুখে লাগালে অল্প দিনেই সৌন্দর্য বৃদ্ধি পায়।

৩. ত্বকের বয়স কমায়:

৩. ত্বকের বয়স কমায়:

বয়স ৩০ পেরতে না পেরতেই ত্বকের উপর বয়সের ছাপ পরতে শুরু করে দেয়। তাই তো এই সময় ডিমের খোসাকে আরও বেশি করে কাজে লাগানো উচিত। এমনটা করলে ত্বক টানটান হয়, সেই সঙ্গে স্কিনের বয়সও কমতে শুরু করে। এক্ষেত্রে ৩-৪ চামচ ডিমের খোসার গুঁড়ো নিয়ে তার সঙ্গে পরিমাণ মতো দই এবং কয়েক চিমটে হলুদ গুঁড়ো মিশিয়ে একটা ফেস প্যাক বানিয়ে ফেলুন। তারপর সেটি মুখে লাগিয়ে ২০ মিনিট রেখে দিন। সময় হয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন। প্রসঙ্গত, এই পেস্টটি বলিরেখা কমিয়ে ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে দারুন কাজে আসে।

৪. ত্বকের আদ্রতা বজায় রাখে:

৪. ত্বকের আদ্রতা বজায় রাখে:

আপনি কি শুষ্ক ত্বকের সমস্যায় ভুগছেন? তাহলে আজ থেকেই কাজে লাগাতে শুরু করুন ডিমের খোসাকে। কারণ এতে এমন কিছু উপাদান রয়েছে, যা ত্বকের হারিয়ে যাওয়া আদ্রাতা ফিরিয়ে দিতে সাহায্য করে।

২-৪ চামচ ডিমের খোসার পাউডার নিয়ে তার সঙ্গে পরিমাণ মতো মধু মেশান। ভাল করে দুটি উপকরণ মিশিয়ে একটা পেস্ট বানিয়ে ফেলুন। সেটি মুখে লাগিয়ে কিছুক্ষণ মাসাজ করে ধুয়ে ফেলুন। প্রসঙ্গত, এই ফেস মাস্কটি প্রতিদিন রাতে শুতে যাওয়ার আগে মুখে লাগালে ত্বকের আদ্রতা বজায় থাকে। ফলে চামড়া কুঁচকে গিয়ে সৌন্দর্য কমে যাওয়ার সম্ভাবনাও হ্রাস পায়।

৫. ত্বকের প্রদাহ কমায়:

৫. ত্বকের প্রদাহ কমায়:

নানা কারণে ফুসকুরি এবং ত্বকের প্রদাহ তো লেগেই থাকে। এই ধরনের সমস্যার সমাধানে ডিমের খোসা দারুন কাজে আসতে পারে। কীভাবে? ১ কাপ অ্যাপেল সিডার ভিনিগারের সঙ্গে ডিমের খোসা মিশিয়ে নিন। মিশ্রনটি কম করে ১০ মিনিট রেখে দিয়ে মুখে লাগান। দেখবেন প্রদাহ তো কমবেই, সেই সঙ্গে ত্বকের স্বাস্থ্যেরও উন্নতি ঘটবে।

৬. ত্বককে আরও চকচকে করে তোলে:

৬. ত্বককে আরও চকচকে করে তোলে:

অ্যালো ভেরা জেলের সঙ্গে পরিমাণ মতো ডিমের খোসার পাউডার মিশিয়ে সেই মিশ্রনটি মুখে লাগালে অল্প দিনেই ত্বক আরও চকচকে এবং উজ্জ্বল হয়ে ওঠে। তবে দিনে দুবার এই ফেস প্যাকটি মুখে লাগাতে হবে। তবেই উপকার পাবেন।

৭. ত্বককে ভেতর থেকে পরিষ্কার করে:

৭. ত্বককে ভেতর থেকে পরিষ্কার করে:

ডিমের খোসার পাউডার দিয়ে বানানো ফেস মাস্ক ত্বককে পরিষ্কার করার পাশপাশি, সার্বিকভাবে ত্বককে সুন্দর এবং নরম রাখতে সাহায্য করে। তাই তো গবেষণা পত্রটি প্রকাশিত হওয়ার পর থেকে এটির ব্যবহার এতে চোখে পরার মতো বেড়েছে। আপনিও বা পিছিয়ে থাকবেন কেন, যদি অপরূপ সুন্দরি হয়ে উঠতে চান না কি?

৮. ত্বককে দীর্ঘ সময় তরতাজা রাখে:

৮. ত্বককে দীর্ঘ সময় তরতাজা রাখে:

একদিকে পরিবেশ দূষণ তো অন্য দিকে আমাদের অস্বাস্থ্যকর জীবনযাত্রা, নানা কারণে অল্প বয়সেই ত্বক সৌন্দর্য হারাতে শুরু করে। সেই সঙ্গে বলিরেখায় ভরে গিয়ে ত্বকের বয়সও যায় বেড়ে! তাই তো সময় থাকতে থাকতে ডিমের খোসার সাহায্য ত্বকের পরিচর্যা করুন। দেখবেন ভাল ফল পাবেন। এক্ষেত্রে পরিমাণ মতো ডিমের খোসার পাউডারের সঙ্গে অল্প করে লেবুর রস এবং চারকোল পাউডার মিশিয়ে একটা পেস্ট বানিয়ে ফেলুন। তারপর সেই মিশ্রনটি ৩০ মিনিট মুখে লাগিয়ে রেখে ধুয়ে ফেলুন। প্রসঙ্গত, এই ফেস মাস্কটি বানাতে যে যে উপকরণগুলি ব্যবহার করা হয়েছে, তাতে রয়েছে ব্লিচিং প্রপাটিজ। তাই তো এই পেস্টটি মুখে লাগালে ত্বক এত প্রাণবন্ত হয়ে ওঠে।

Read more about: ফেস মাস্ক
English summary
Yes, you heard it right, we are actually talking about the shells of an egg! According to the latest study, it is said that egg shells are extremely beneficial for your skin.
Story first published: Thursday, April 6, 2017, 17:39 [IST]
Please Wait while comments are loading...