ত্বকের সৌন্দর্য বাড়াতে বিট-রুট ফেস মাস্ক

Posted By:
Subscribe to Boldsky

এতদিন জানতাম শরীর ভালো রাখতে বিট রুট দারুন কাজে আসে। কিন্তু ত্বকের সৌন্দর্য বাড়াতেও যে এটি বেশ কার্যকরি তা জানা ছিল না। তাই বলতেই হয়, খেতে সুস্বাদু না হলেও বিশ্বের প্রথম সারির স্বাস্থ্য়কর খাবার গুলির মধ্য়ে বিটকে রাখাই যায়।

এতে রয়েছে প্রচুর মাত্রায় ভিটামিন, প্রোটিন, ফাইবার এবং অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, যা ত্বকের ঔজ্জ্বল্য় বাড়ানোর পাশাপাশি সার্বিকভাবে ত্বককে ভালো রাখতে সাহায্য় করে।

বিটের রস দিয়ে বানানো নানা ধরনের ফেস মাস্ক সম্পর্কে এই প্রবন্ধে আলোচনা করা হবে। এই ফেস মাস্কগুলি ত্বকে পুষ্টি জোগাতে বিশেষ ভূমিকা নেয়। শুধু তাই নয়, যে কোনও ধরনের ত্বকের রোগ কমাতেও বিটের কোনও বিকল্প নেই। তাই সৌন্দর্যতা বৃদ্ধির পাশাপাশি যদি ত্বকে ভালো রাখতে চান, তাহলে এক্ষুনি পড়ে ফেলুন এই প্রবন্ধটি।

বিটরুট এবং মেয়োনিজ ফেস মাস্ক:

বিটরুট এবং মেয়োনিজ ফেস মাস্ক:

ড্রাই স্কিন আপনার? চিন্তা নেই। আজ থেকেই এই ফেস মাস্কটি মুখে লাগাতে শুরু করুন। অল্প দিনেই দেখবেন ত্বক কেমন তুলতুলে মসৃণ হয়ে গেছে। আসলে বিট এবং মেয়োনিজ ত্বককে ভেতর থেকে পুষ্টি জোগায়। ফলে স্কিনে জলের পরিমাণ বেড়ে গিয়ে ত্বক নিজের আদ্রতা ফিরে পায়। কীভাবে বানাবেন এই ফেস মাস্ক? খুব সহজ! হাফ কাপ মেয়োনিজের সঙ্গে পরিমাণ মতো বিটরুট জুস দিয়ে ভালো করে মেশান। তারপর সেই মিশ্রন মুখে লাগান।

বিটরুট এবং বাদাম তেল:

বিটরুট এবং বাদাম তেল:

কয়েকটা বিট রুটের টুকরো নিয়ে ভালো করে পিষে নিন। তারপর তাতে ৩-৪ ড্রপ বাদাম তেল এবং ১-২ ড্রপ অলিভ অয়েল মিশিয়ে একটা পেস্ট বানিয়ে ফেলুন। এই পেস্টটি মুখে লাগালে ত্বকের পুষ্টি বৃদ্ধি পায়। ফলে স্কিন উজ্জ্বল হয়ে ওঠে।

বিটরুট এবং মুলতানি মাটি:

বিটরুট এবং মুলতানি মাটি:

এই পেস্টটি বানাতে বিটরুটের সঙ্গে দু চামচ মুলতানি মাটি মেশান। তারপর তাতে এক চামচ লেবুর রস মিশিয়ে তিনটি উপকরণ ভালো করে মেশান। এমনটা করলে দেখবেন একটা পেস্ট তৈরি হয়ে যাবে। এই পেস্ট মুখে লাগিয়ে ১৫ মিনিট রাখুন। তারপর ঠান্ডা জল দিয়ে ভাল করে মুখটা ধুয়ে ফেলুন। ত্বকের ক্ষত সারানোর পাশাপাশি ব্রণ এবং নানা রকমের দাগ কমাতে এই মাস্কটি দারুন কাজে আসে।

বিটরুট এবং দই:

বিটরুট এবং দই:

ত্বকে বয়সের ছাপ কমানোই এই ফেস মাস্কটির কাজ। সেই সঙ্গে ত্বককে নরম এবং আদ্র রাখতেও এটি বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। হাফ কাপ দইয়ের সঙ্গে বিটরুটের জুস এবং এক চিমটে হলুদ মিশিয়ে একটা পেস্ট বানিয়ে ফেলুন। তারপর সেটি এক মিনিট ধরে মুখে লাগান। ১০ মিনিট রেখে ঠান্ডা জল দিয়ে মুখটা ধুয়ে ফেলুন।

বিটরুট এবং কমলা লেবুর রস দিয়ে বানেনা ফেস মাস্ক:

বিটরুট এবং কমলা লেবুর রস দিয়ে বানেনা ফেস মাস্ক:

কমলা লেবুর রসের সঙ্গে পরিমাণ মতো বিট রুটের রস মিশিয়ে মুখে লাগান। এটি প্রাকৃতিক সানস স্ক্রিন হিসাবে কাজ করবে। ফলে সূর্যের ক্ষতিকর অতি বেগুনি রশ্মি আপনার ত্বকের কোনও ক্ষতিই করতেই পারবে না।

বিটরুট এবং লেবুর ফেস মাস্ক:

বিটরুট এবং লেবুর ফেস মাস্ক:

দু চামচ বিটের রসের সঙ্গে দু চামচ লেবুর রস মেশান। প্রয়োজন মনে হলে এই মিশ্রনে দু চামচ গোলাপ জলও মেশাতে পারেন। এই তিনটি উপাদান ভালো করে মিশিয়ে মুখে লাগান। লেবুর রস ত্বকের কালো ভাব কমাবে, যেখানে বিটরুট ত্বককে উজ্জ্বল করবে। আর গোলাপ জলের কাজ হবে ত্বককে নরম করা।

বিট রুট এবং ছোলার ময়দার মাস্ক:

বিট রুট এবং ছোলার ময়দার মাস্ক:

কয়েক চামচ ছোলার ময়দার সঙ্গে এক কাপ দুধের স্বর এবং বিট রুটের পেস্ট মিশিয়ে একটা মিশ্রন বানিয়ে ফেলুন। তারপর সেটি মুখে লাগিয়ে কিছুক্ষণ রেখে দিন। যখন দেখবেন মাস্কটা শুকিয়ে গেছে, তখন ঠান্ডা জল দিয়ে মুখটা ভালো করে ধুয়ে নেবেন।

বিটরুট এবং হলুদ:

বিটরুট এবং হলুদ:

ত্বককে উজ্জ্বল করার পাশাপাশি ভিতর থেকে ত্বককে সুন্দর করতে এই মাস্কটি দারুন কাজে আসে। কীভাবে বানাতে হবে এটি? প্রথমে কয়েকটি বিটরুট ভালো করে পিষে নিন। তারপর সেটির সঙ্গে পরিমাণ মতো হলুদ এবং দুধ মিশিয়ে একটা পেস্ট বানিয়ে ফেলুন। এই ফেস মাস্কটি কিছুক্ষণ মুখে লাগিয়ে রেখে হালকা গরম জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

English summary
Although, beetroot is known to be extremely beneficial for health, it is also known for its beauty benefit when used on the skin. Beetroot may not be good to taste, but it is one among the healthiest foods in the world.
Story first published: Friday, February 10, 2017, 11:30 [IST]
Please Wait while comments are loading...