ত্বকের জন্য জাদুকরী লালচে ভেষজের অভূতপূর্ব কিছু উপকারিতা

Written By: Super Admin
Subscribe to Boldsky

আপনি যদি কোনদিন জাদুকরী লালচে ভেষজের কথা না শুনে থাকেন, তাহলে এই প্রবন্ধটি শেষ অবধি অবশ্যই পড়ে দেখবেন। যাদুকরী লালচে (উইচ হ্যাজেল) পদার্থটি এক ওষধি ভেষজ থেকে বের করা হয়, যা বহুকাল ধরে ত্বকের সমস্যার সমাধান করে আসছে বলে জানা যায়। এই যাদুকরী লালচে পদার্থের কিছু ওষধি ক্ষমতা আছে, যার ফলে এটা অতি স্বাচ্ছন্দ্যের সাথে চুল বা ত্বকের ওপর ব্যবহার করা যেতে পারে। সাধারণ ভাবে একে অনেক নামে ডাকা হয়, যেমন ডোরাকাটা অলডার, ছোপকাটা অলডার বা শীতের ফলন। অনেক বছর ধরে এর গুণাবলী পরীক্ষিত। এই প্রবন্ধে সেরকমই কিছু সাধারণ উপকারের কথা বলা হল।

১. গর্ভপাতের পর পেটের প্রসারিত চামড়ার নিরাময়ে

১. গর্ভপাতের পর পেটের প্রসারিত চামড়ার নিরাময়ে

এই ভেষজ তেলটি দারুণ কাজ করে গর্ভপাতের পর হওয়া দাগ মেটানোর জন্য। চামড়ার প্রসারিত দাগের ওপর এটা নিয়মিত লাগালে, দাগ থেকে সম্পূর্ণ মুক্তি পাওয়া যায়। দাগের জায়গায় তেলটা লাগান এবং তার ওপর একটা উষ্ণ গরম জলে ভেজানো তোয়ালে রাখুন। কিছুক্ষণ রেখে উষ্ণ গরম জলে ধুয়ে ফেলুন।

২.শুকনো, রুক্ষ ত্বকের আরামে ব্যবহার করা যায়

২.শুকনো, রুক্ষ ত্বকের আরামে ব্যবহার করা যায়

আপনার যদি শুকনো ও রুক্ষ ত্বক হয়, তাহলে এই জাদুকরী লালচে ভেষজ আপনার সেরা বন্ধু হওয়া উচিত। চিকেনপক্স, একজিমা,পয়সন আইভি থেকে হওয়া চুলকানি বা পোকার কামড় - সবেতেই এর খুব উপকারিতা রয়েছে। ল্যাভেণ্ডার তেলে এই ভেষজটি মেশান ও আপনার ত্বকে লাগান। কিছুক্ষণ রেখে, হালকা গরম জলে ধুয়ে ফেলুন।

৩.ত্বকের কোষগুলো বড় হয়ে যাওয়া রোধ করে

৩.ত্বকের কোষগুলো বড় হয়ে যাওয়া রোধ করে

ভেষজটিতে কিছু এ্যাস্ট্রিন্জেন্টের গুণ থাকার জন্য এটা ত্বকের বড় হয়ে যাওয়া কোষ বা পোর বন্ধ করতে সাহায্য করে। যাদুকরী এই লাল ভেষজে থাকা ট্যানিনের জন্য এটাকে টোনার হিসেবেও ব্যবহার করা যায়। ত্বকে উপস্থিত ব্যাকটেরিয়া এবং বাড়তি তেল সরিয়ে দিয়ে এটা কোষগুলোকে ছোট করতে দারুণ কাজ করে।

৪.ব্রণ সারানো ত্বরান্বিত করে

৪.ব্রণ সারানো ত্বরান্বিত করে

যাদুকরী লালচে ভেষজের নিজস্ব কিছু ব্রণ প্রতিরোধে ক্ষমতা আছে। যার ফলে এটা ব্রণ সারাতে সাহায্য করে। ত্বকের ময়লা,আবর্জনা ও মৃত কোষ সরিয়ে এটা যেমন ব্রণ সারায়, তেমনি ব্রণর দাগও কমায়। এই ভেষজ তেলটি খুবই হালকা ও এ্যাস্ট্রিন্জেন্টর গুণ সমৃদ্ধ, যা মুখে জন্য খুব উপকারি। তেলটি ব্রণর ওপর লাগিয়ে কিছুক্ষণ শুকোতে দিন। তারপর জল দিয়ে ধুয়ে দিন।

৫.ছোটখাট কাটাছেড়ায় সাহায্য করে

৫.ছোটখাট কাটাছেড়ায় সাহায্য করে

যাদুকরী লালচে এই ভেষজের তেলটি খুব কাজে লাগে ত্বকের রক্তক্ষরণ রোধ করতে ও সেটাকে তাড়াতাড়ি সারাতে। এই ভেষজে থাকা এ্যালকোহল খুব কার্যকরী ছোটখাট কাটাকুটি বা ক্ষত সারাতে। মুখে যদি কোনও ছোট কাটাকুটি কিছু হয়, তাহলে একটা তুলোয় একটু এই তেল মাখিয়ে সোজা ক্ষতর জায়গায় লাগান। আস্তে করে একটু চাপ দিন যাতে রক্ত বেরোনোটা কমে।

৬.ত্বকের বার্ধক্য রোধ করে

৬.ত্বকের বার্ধক্য রোধ করে

এই ভেষজ তেলটিতে প্রচুর পরিমাণে এ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপস্থিত থাকায়, ত্বকের বার্ধক্য রোধ করে। এছাড়া, এতে থাকা ট্যানিন পরিবেশে উপস্থিত মুক্ত মৌলিক পদার্থগুলো শেষ করে, যেগুলো সাধারণ ভাবে ত্বকের বয়স বৃদ্ধি করে। সারাদিনের পর মুখের মেকআপটা তুলে জল দিয়ে মুখটা ধুয়ে নিন। তারপর কিছুটা ভেষজ তেল একটা তুলোয় মাখান এবং মুখে লাগান। কিছুক্ষণ পর সেটা ধুয়ে ফেলুন। আপনার প্রিয় ময়েশ্চারাইজারের সাথেও এই তেলটি মিশিয়ে ব্যবহার করতে পারেন। এটা ত্বকের বয়স বাড়ার প্রবণতা রোধ করে।

৭. রোদে পুড়ে যাওয়া উপষম করে

৭. রোদে পুড়ে যাওয়া উপষম করে

আপনার উজ্জ্বল সুন্দর চকচকে ত্বক, হঠাৎ ঔজ্জ্বল্য হারিয়ে বর্ণহীন হয়ে যাওয়ার চেয়ে খারাপ কিছু বোধহয় আর হতে পারে না। সূর্য্য যখন আপনার ত্বককে বিবর্ণ করে দেয়, তখন এই জাদুকরী লালচে ভেষজটিই আপনার সাহায্যে আসে। এ্যালো ভেরা জেলের সাথে এটা মিশিয়ে, রোদের পুড়ে যাওয়া ক্ষতিগ্রস্থ ত্বকে লাগান। এটা আপনার ত্বককে আরও পুড়ে যাওয়া হাত থেকে বাঁচায় ও ত্বককে মোলায়েম এবং উজ্জ্বল করে তোলে।

৮.সোরিয়াসিস সারাতে সাহায্য করে

৮.সোরিয়াসিস সারাতে সাহায্য করে

সোরিয়াসিস এমন এক অবস্থা যখন আপনার চামড়া খুব শুকনো, রুক্ষ ও খসখসে হয়ে যায়। এই জাদুকরী লালচে পদার্থটি আপনার এই ফুলে যাওয়া ত্বকের রক্ষায় সাহায্য করে। জাদুকরী লালচে ভেষজের তেল নিয়ে তাকে গ্লিসারিনের সাথে মেশান। এবার এটা মুখে অনেকক্ষণ ধরে ধীরে ধীরে ঘষুন। গ্লিসারিন স্বাভাবিক ভাবেই বাতাস থেকে আদ্রতা টেনে ত্বককে আদ্র রাখে। এতে ত্বক নরম ও আদ্র থাকে।

    English summary

    ত্বকের জন্য যাদুকরী লালচে ভেষজের অভূতপূর্ব কিছু উপকারিতা

    If you have never heard about the benefits of witch hazel on skin and hair, then you should seriously consider reading this article till the end.
    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Boldsky sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Boldsky website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more