অপরূপ সুন্দরি হয়ে উঠতে কাজে লাগান ফলের খোসাকে

Posted By:
Subscribe to Boldsky

এদের কেউ গুরুত্বই দেয় না। তাই তো এদের জায়গা হয়ে রাস্তার ধারে, নয়তো ডাস্টবিনে। কিন্তু আপনাদের কি জানা আছে, ফলের মতো তার খোসাও পুষ্টিগুণে ভরপুর হয়। তাই তো ফলের খোসাও আমাদের শরীরের গঠনে নানাভাবে সাহায্য করে। শুধু তাই নয়, ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধিতেও এদের ভূমিকাকে অস্বীকার করা যায় না। তাই তো আজ এই প্রবন্ধে ফলের খেসা কীভাবে আমাদের সৌন্দর্য বাড়াতে কাজে লাগতে পারে, সে সম্পর্কে আলোচনা করা হল।

পুষ্টিকর উপাদানের ভান্ডার হল ফলের খোসা। তাই তো ত্বকের স্বাস্থ্যের উন্নতিতে এগুলি এতটা কাজে লাগে। কোন কোন ফলের খোসা, কীভাবে ব্য়বহার করলে সুফল মিলবে? চলুন জেনে নেওয়া যাক সে সম্পর্কে।

১. কলার খোসা:

১. কলার খোসা:

এতে রয়েছে প্রচুর মাত্রায় ভিটামিন এবং প্রোটিন, যা ত্বককে ফর্সা করার পাশপাশি একাধিক ত্বকের রোগে প্রকোপ কমাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। কীভাবে ব্যবহার করবেন কলার খোসাকে? দিনে দুবার, কলার খোসা ভাল করে মুখে ঘষবেন। তাহলেই দেখবেন ত্বক উজ্জ্বল এবং সুন্দর হতে শুরু করেছে। আরেক ভাবে কলার খোসাকে কাজে লাগাতে পারেন। পরিমাণ মতো খোসা সংগ্রহ করে সেগুলিকে রোদে শুকিয়ে নিন। তারপর খোসাগুলিকে পিষে পাউডার বানিয়ে ফেলুন। সেই পাউডার দইয়ের সঙ্গে মিশিয়ে মুখে লাগান। প্রসঙ্গত, সপ্তাহে দুবার এইবাবে ত্বকের পরিচর্যা করলে সুফল পাবেন একেবারে হাতেনাতে।

২. বেদানার খোসা:

২. বেদানার খোসা:

এই ফলের খোসায় রয়েছে এমন কিছু উপাদান যা ত্বকের উপরি অংশে জমে থাকা মৃত কোষের স্থরকে সরিয়ে ফেলতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। শুধু তাই নয়, ত্বকের পি এইচ লেভেল ঠিক রাখার মধ্যে দিয়ে স্কিনের ঔজ্জ্বল্য বৃদ্ধিতেও বেদানার খোসা দারুন কাজে আসে।

এক্ষেত্রে বেদানার খোসা রোদে শুকিয়ে নিন প্রথমে। তারপর সেটি ব্লেন্ডারে গুঁড়ো করে পাউডার বানিয়ে ফেলুন। সেই পাউডার ২ চামচ নিয়ে, ১ চামচ লেবুর রসের সঙ্গে মিশিয়ে একটা পেস্ট বানিয়ে নিন। এই পেস্টটি মুখে লাগালে দারুন উপকার পাবেন।

৩. নাশপাতির খোসা:

৩. নাশপাতির খোসা:

আপনি কি অল্প দিনেই ফর্সা ত্বক পেতে চান? তাহলে কাজে লাগান নাশপাতির খোসাকে। কারণ এই ফলটির খোসায় রয়েছে প্রচুর মাত্রায় ফাইবার, যা কোলাজেনের মাত্রা বাড়িয়ে ত্বকের স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটায়। সেই সঙ্গে ব্রণ এবং আরও কিছু ত্বকের রোগের প্রকোপ কমাতেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।

পরিমাণ মতো নাশপাতির খোসা সংগ্রহ করে সেগুলি জলে ফুটিয়ে নিন কিছুক্ষণ। তারপর জলটা ঠান্ডা করে মুখে লাগান। এমনটা করলে ত্বকের হাইপারপিগমেন্টটেশন হ্রাস পায়। আরেকভাবে নাশপাতির খোসাকে কাজে লাগাতে পারেন। অল্প পরিমাণ দুধে খোসাটা কম করে ২ ঘন্টা চুবিয়ে রাখার পর সেগুলিকে পিষে একটা পেস্ট বানিয়ে ফেলুন। তারপর সেই পেস্টের সঙ্গে ১ চামচ মধু এবং ১ চামচ লেবুর রস মিশিয়ে মুখে লাগান। অল্প সময় রেখে ভাল করে মুখটা ধুয়ে ফেলুন।

৪. কমলা লেবুর খোসা:

৪. কমলা লেবুর খোসা:

নানাবিধ ত্বকের রোগ সারাতে কমলা লেবুর খোসা দারুন কাজে লাগে। আসলে এতে রয়েছে এমন কিছু প্রাকৃতিক উপাদান, যা ত্বকের রং ফেরাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। মুখে লেবুর খোসা লাগাবেন কীভাবে? কমলা লেবুর খোসাকে শুকিয়ে পাউডার বানিয়ে ফেলুন। তারপর সেই পাউডারের সঙ্গে দই মিশিয়ে সারা মুখে ভাল করে লাগিয়ে মাসাজ করুন। এমনটা করলে বলিরেখা হ্রাস পায়। সেই সঙ্গে কমে ত্বকের বয়সও।

৫. আপেলের খোসা:

৫. আপেলের খোসা:

এতে এমন কিছু উপাদান রয়েছে যা ত্বকের ঔজ্জ্বল্য বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। সেই সঙ্গে এতে উপস্থিত অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, ত্বকের স্বাস্থ্যের উন্নতিতেও বিশেষ কাজে আসে। এক্ষেত্রে অল্প করে অপেলের খোসা নিয়ে জলে একটু ফুটিয়ে নিন। তারপর সেই জল টোনারের মতো মুখে লাগান। দেখবেন ভাল ফল পাবেন।

৬. লেবুর খোসা:

৬. লেবুর খোসা:

একটা লেবুর খোসা নিয়ে ভাল করে মুখে ঘষে নিন। এমনটা করলে ত্বকের উপরিঅংশে জমে থাকা ময়লা এবং মৃত কোষের আবরণ সরে য়ায়। ফলে ত্বক উজ্জ্বল হতে শুরু করে। সেই সঙ্গে এতে উপস্থিত অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট প্রপাটিজ ব্রণর প্রকোপ কমাতেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। প্রসঙ্গত, অল্প করে লেবুর খোসার পাউডার নিয়ে তার সঙ্গে ২ চামচ বেদানার খোসার পাউডার, ১ চামচ দারচিনির পাইডার এবং অল্প করে দুধ মিশিয়ে মুখে লাগান। অল্প সময় রেখে ধুয়ে ফেলুন। এমন ভাবেও লেবুর খোসাকে কাজে লাগিয়ে ত্বককে সুন্দর করে তুলতে পারেন।

৭. পেঁপের খোসা:

৭. পেঁপের খোসা:

শুধু শরীরের জন্য নয়, ত্বকের স্বাস্থ্যের উন্নতিতেও পেঁপের খোসা দারুন কাজে আসে। আসলে এতে উপস্থিত বিশেষ কিছু উপাদান কোলাজেনের উৎপাদন বাড়িয়ে দেয়। ফলে ত্বক উজ্জ্বল হতে শুরু করে। এক্ষেত্রে পরিমাণ মতো পেঁপের খোসা নিয়ে ভাল করে মুখে ঘুষে নিন। এমনটা করলে দারুন উপকার পাবেন। আরেকভাবে পেঁপের খোসার সুফল পেতে পারেন। কীভাবে? পেঁপের খোসা নিয়ে ভাল করে পিষে একটা পেস্ট বানিয়ে ফেলুন। তারপর সেই পেস্টের সঙ্গে অ্যালো ভেরা জেল মিশিয়ে মুখে লাগান। অল্প সময় রেখে মুখটা ধুয়ে নিন।

Read more about: স্কিন
English summary
Fruit peel is a source of proteins and vitamins that benefit your skin in several ways. It helps to give you a radiant as well as glowing complexion easily. With fruit peels being so beneficial, you could also use the same in preparing different fruit peel masks for skin.
Story first published: Friday, April 14, 2017, 18:08 [IST]
Please Wait while comments are loading...