Tap to Read ➤

তামার পাত্রে জল পান করার উপকারিতা

প্রাচীন কাল থেকেই তামার পাত্রে জল খাওয়ার রীতি প্রচলিত। কিন্তু সময়ের সাথে সাথে এই অভ্যাস অনেকটাই ফিকে হয়ে এসেছে। তবে এই অভ্যাস আবার ফিরিয়ে আনতে পারলে অবশ্যই উপকার পাবেন।
তামার মধ্যে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট গুণ থাকে, যা ক্যান্সারের বিরুদ্ধে লড়াই করতে সাহায্য করে।
গবেষণা অনুযায়ী, তামার পাত্রে জল খেলে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে। কোলেস্টেরলের মাত্রা হ্রাস করে ও হৃদরোগের সমস্যাকেও দূরে রাখে।
থাইরয়েড গ্রন্থির কাজে ভারসাম্য বজায় রাখে তামা এবং থাইরয়েড গ্রন্থি থেকে অতিরিক্ত হরমোন নিঃসরণও আটকাতে পারে।
তামা হিমোগ্লোবিন তৈরিতে সাহায্য করে এবং শরীরকে আয়রন শোষণ করতেও সহায়তা করে। তাই, তামার ঘাটতি হলে রক্তাল্পতা দেখা দেয়।
তামা শরীরের অতিরিক্ত চর্বিকে দ্রবীভূত করে এবং ওজন কমাতে সহায়তা করে।
তামার পাত্রে জল খেলে হজম শক্তি ভাল হয়। কোষ্ঠকাঠিন্য, গ্যাস, অ্যাসিডিটির সমস্যা দূর হয়। পাকস্থলীর ক্ষতিকারক ব্যাকটেরিয়া মেরে ফেলে তামা।
তামায় অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি গুণ বর্তমান, ফলে গাঁটে ব্যথা বা আর্থ্রারাইটিসের সমস্যা কমাতেও সাহায্য করে।
তামায় অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টি-ভাইরাল গুণ আছে। তামা দ্রুত ক্ষত নিরাময়ের পাশাপাশি, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে শক্তিশালী করে তুলতেও সহায়তা করে।
তামা ত্বকে বলিরেখা পড়তে দেয় না এবং ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ায়। ত্বকে কালো দাগ-ছোপ দেখা দিলে সেটাও কমাতে সাহায্য করে তামা।