এই ৭ টা আজব বিষয় লক্ষ করে ডেলিভারির আগেই জেনে যেতে পারবেন আপনার ছেলে সন্তান হতে চলেছে কিনা!

Posted By:
Subscribe to Boldsky

বিজ্ঞানের অগ্রগতির দিকে যদি একবার নজর ফেরান তাহলে বাস্তবিকই চোখ কপালে উঠে যাবে। প্রতিদিন কিছু না কিছু আজব বিষয়কে সামনে নিয়ে আসছে চিকিৎসা বিজ্ঞান। কিছু দিন আগেই বেশ কয়েকটি গবেষণা জানান দিল যে এমন কিছু লক্ষণ আছে যা দেখে ডেলিভারির আগে জেনে যাওয়া সম্ভব ছেলে সন্তান হতে চলেছে কিনা। সে বিষয়ে বোল্ডস্কাই বাংলায় লেখাও হল। এদিকে আজই জানা গেলে এই সব লক্ষণের বাইরেও আরও বেশ কিছু ফ্যাক্টর আছে যা দেখে ভাবি মা সহজেই জেনে যেতে পারবেন তিনি ছেলে সন্তানের জন্ম দিতে চলেছেন কিনা। তাহলে আর অপেক্ষা কেন, ভাবি মায়ের এই লেখার সঙ্গী হন আর জেনে নিন সেই সব আজব লক্ষণগুলি সম্পর্কে, যা জানান দেয় আপনি ছেলে সন্তানের জন্ম দিতে চলেছেন কিনা।

যে যে বিষয এক্ষেত্রে গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করতে হবে, সেগুলি হল...

১. ত্বকের পরিবর্তন:

১. ত্বকের পরিবর্তন:

গর্ভাবস্থায় ত্বকের প্রকৃতিতে আনেক পরিবর্তন আসে। এই বদল অনেকাংশেই স্বাভাবিক। কিন্তু যদি দেখেন আপনার ত্বক খুব তেলতেলা হয়ে গেছে, তাহলে বুঝে যাবেন আপনি মেয়ের জন্ম দিতে চলেছেন। আর যদি লক্ষ করেন যে প্রসবের তারিখ এগিয়ে আসার সঙ্গে সঙ্গে ত্বক রুক্ষ হয়ে উঠছে, তাহলে জানবেন ছেলে সন্তান হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

২. মুখ উজ্জ্বল হয়ে উঠবে:

২. মুখ উজ্জ্বল হয়ে উঠবে:

প্রসবের সময় যত এগিয়ে আসছে তত মুখের উজ্জলতা কি বাড়ছে? এমনটা যদি হয়ে থাকে ,তাহলে নিশ্চিত হওয়া যেতে পারে যে আপনি ছেলে সন্তান প্রসব করতে চলেছেন। এক সময় মনে করা হত প্রেগন্যান্সির কারণেই ত্বক সুন্দর এবং উজ্জ্বল হয়ে ওটে। পরে একাধিক কেস স্টাডি করে বিশেষজ্ঞরা জানতে পারেন যে এই সৌন্দর্য় বৃদ্ধির সঙ্গে প্রেগন্যান্সির নয়, বরং ছেলে সন্তান হওয়ার সরাসরি যোগ রয়েছে।

৩. লাইনে নিগারা:

৩. লাইনে নিগারা:

অনেক মায়েরই গর্ভাবস্থায় পেটে, বিশেষত নাভির কাছাকাছি এক ধরনের কালো দাগ দেখা যায়। অনেক গবেষক এই দাগকে "লাইনে নিগারা" নামে ডেকে থাকেন। মনে করা এই দাগ যদি নাভির নিচে গিয়ে শেষ হয়ে যায়, তাহলে মেয়ে সন্তান হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। আর যদি নাভির উপর অবধি যায়, তাহলে অনেকাংশেই নিশ্চত হওয়া যায় যে ছেলে সন্তান জন্ম নিতে চলেছে।

৪. বেকিং সোডা টেস্ট:

৪. বেকিং সোডা টেস্ট:

এটা বড়ই আজব ধরনের একটা টেস্ট, তবে বেশ কার্যকরি বটে। একাধিক কেস স্টাডি করে দেখা গেছে প্রায় ৮০ শতাংশ ক্ষেত্রে এই টেস্টের ফলাফল একেবারে সঠিক বেরয়। কী এই টেস্ট? বিশেষজ্ঞদের মতে ভাবি মায়েরা প্রস্রাব করার পর তাতে ২ চামচ খাবার সোডা মিশিয়ে যদি দেখেন প্রস্রাবে বুদবুদের মতো সৃষ্ট হচ্ছে, তাহলে বুঝবেন ছেলে সন্তানের জন্ম হতে চলেছে।

৫. পায়ের মাপ:

৫. পায়ের মাপ:

গর্ভাবস্থায় পায়ের পাতার পরিবর্তন হওয়াটা খুবই স্বাভাবিক একটা ঘটনা। এই সময় কারও কারও পা ফুলে যায়, তো কারও মাপের মাপে পরিবর্তন আসে। যদি দেখেন প্রেগন্যান্সির সময় পায়ের মাপ বেড়ে গেছে, তাহলে বুঝবেন আপনি ছেলে সন্তান ধারণ করেছেন। প্রসঙ্গত, অনেক সময় পা ফুলে যাওয়ার কারণেও ভাবি ময়েদের জুতো পরতে কষ্ট হয়। তাই বাস্তবিকই পায়ের মাপ বেড়েছে, নাকি পা ফুলে যাওয়ার কারণে পুরনো জুতো পরতে পারছেন না, সেদিকে খেয়াল রাখবেন।

৬. বাবার শরীর কি ফুলে গেছে:

৬. বাবার শরীর কি ফুলে গেছে:

বাচ্চার জন্মের আগে মায়ের শরীরে যেমন অনেক পরিবর্তন আসে, তেমনি ভাবি বাবাদেরও দেহের গঠনও এক থাকে না। সম্প্রতি প্রকাশিত এক গবেষণা পত্র অনুসারে মায়ের সঙ্গে সঙ্গে বাবাও যদি মোটা হতে শুরু করেন, তাহলে বুঝতে হবে মেয়ে সন্তান জন্ম নিতে চলেছে। আর যদি উল্টো ঘটনা ঘটে, মানে বাবার শরীর যদি গর্ভাবস্থার আগে যেমন ছিল তেমনিই থেকে যায়, তাহলে জানবেন ৯ মাসের শেষে ছেলে সন্তান জন্ম নিচ্ছে।

৭. মাথা যন্ত্রণা:

৭. মাথা যন্ত্রণা:

আপনার কী খুব মাথা যন্ত্রণা করছে? মাঝে মাঝে এমন পরিস্থিত হচ্ছে যে কষ্ট সহ্য করতে না পেরে পেন কিলার খেতে হচ্ছে? তাহলে তো বলতে হয় আপনি ছেলে সন্তানের মা হতে চলেছেন। মানে! মানে হল, একাধিক গবেষণা প্রমাণ করেছে যে এমন লক্ষণের সঙ্গে সন্তানের লিঙ্গের সরাসরি যোগ থাকে।

For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS
For Daily Alerts

    Read more about: লক্ষণ
    English summary

    এই ৭ টা আজব বিষয় লক্ষ করে ডেলিভারির আগেই জেনে যেতে পারবেন আপনার ছেলে সন্তান হতে চলেছে কিনা!

    One of the most exciting parts of the pregnancy process is learning the gender of your baby.Whether you wait for the doctor to tell you when you’re giving birth or if you find out during an ultrasound, it’s amazing to learn the gender of your little one.Read on to learn some more of these incredible gender predictor tests!
    Story first published: Saturday, May 27, 2017, 13:08 [IST]
    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Boldsky sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Boldsky website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more