প্রেগনেন্সিতে পা ফোলা কমাতে কিছু টিপস্‌

By: Anindita Sinha
Subscribe to Boldsky

প্রেগনেন্সি বা গর্ভাবস্থায় অনেকগুলি ঘটনার মধ্যে একটি সবথেকে অপ্রীতিকর ঘটনা হল পা ফোলা। এটি শুধু যন্ত্রণাদায়কই নয়, এমন কিছু অতি সাধারণ কাজ যেমন হাঁটাচলাকে পর্যন্ত একটা সাংঘাতিক কাজে পরিনিত করে।

সৌভাগ্যক্রমে প্রেগনেন্সিতে এই পা ফোলা প্রতিরোধ করতে ও কমাতে কিছু বিকল্প অষুধ দেওয়া যেতে পারে।

গর্ভাবস্থায় মহিলাদের দিনে ৬-৮ গ্লাস জল খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়ে থাকে। পা ফোলা কমাতে এটিই সবথেকে ন্যাচারাল চিকিৎসা। গর্ভাবস্থায় বেশি পরিমান জল খেলে তা শরীর থেকে সব টক্সিন পদার্থ বের করে দিতে সাহায্য করে।

প্রেগনেন্সিতে পা ফোলা কমাতে কিছু টিপস্‌

এটি বাথরুম যাওয়ার পরিমান বাড়িয়ে দেয়, ফলে শরীর থেকে অতিরিক্ত জলও নিষ্কেশিত হয়ে যায়। এরফলে শুধু পা-ই নয় শরীরের বিভিন্ন অংশ যেমন মুখের ফোলাভাবও করে যায়, যা প্রেগ্নেন্সিতে ফুলে ওঠে।

একই অবস্থানে একইভাবে অনেকসময় ধরে দাঁড়িয়ে থাকা এড়িয়ে চলতে হবে, কারণ এরফলে, শরীরের নিচের দিকে জলীয় অংশ প্রবাহিত বেশি হতে থাকে, যার ফলে পা ফুলে ওঠে।

প্রেগনেন্সিতে পা ফোলা কমাতে কিছু টিপস্‌

গর্ভাবস্থায় পা ফোলা থেকে রেহাই পেতে আরেকটি প্রতিকার হল, লবন খাওয়ার পরিমান কমিয়ে দেওয়া। গর্ভাবস্থায় পা ফোলার একটি অন্যতম কারণ হল লবন, যেহেতু লবন শরীরে জল ধরে রাখাতে সাহায্য করে।

অনেকে রকম যে তারা এইসময়ে লবন ব্যাবহার না করে এর প্রতিক্রিয়া একেবারে কমিয়ে ফেলবেন। কিন্তু এইটি করা কখনই উচিৎ না।

আমাদের শরীরের সঠিকরূপে চালনা করতে লবণের একটি নির্দিষ্ট পরিমান প্রয়োজনীয়। অতঃপর, প্রেগনেন্সিতে, সঠিক পরিমানে লবনের ব্যাবহার যেমন প্রয়োজন তেমনই পা ফোলা কমাতে লবনের অতিরিক্ত ব্যবহার কমাতে হবে।

প্রেগনেন্সিতে পা ফোলা কমাতে কিছু টিপস্‌

গর্ভাবস্থায় সুষম খাদ্যও পা ফোলা কমাতে সাহায্য করে। এটি এমন একটি বিষয়, যা শুধু প্রেগন্যান্ট নয় সকলকেই মেনে চলা উচিৎ।

জিন্স বা ট্রাউজার্স মত টাইট পোষাক পায়ের উপর চাপ বৃদ্ধি করে, এটি ঘুরেফিরে ফের সেই পা ফোলায়। অত: পর, টাইট পোষাক পরা এড়িয়ে চলা উচিত।

প্রেগনেন্সিতে পা ফোলা কমাতে কিছু টিপস্‌

আরেকটি ছোট কৌশল হল, খেয়াল রাখতে হবে যেন গর্ভাবস্থায় কেউ একই জায়গায় একইভাবে অনেক সময় ধরে শুয়ে না থাকে। তাহলে শরীরের একটি নির্দিষ্ট অংশে জল জমে সেই অংশটা ফুলিয়ে দিতে পারবে না। একই ভাবে শুয়ে বা বসে না থেকে মাঝেমাঝে স্থান পরিবর্তন করা উচিৎ।

প্রেগনেন্সিতে শরীর বিশেষ করে পা ফুলে গেলে, তা ভারিভাব, অনাকার্ষনীয় এবং কর্মশক্তি কমে যাওয়ার কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

তাই, গর্ভাবস্থায় ফোলা পা এড়াতে উপরোক্ত টিপসগুলি অনুসরণ করা উচিত।

Read more about: ফোলা
English summary
Published: Thursday, June 9, 2016, 22:30 [IST] Out of the many issues that one faces during pregnancy, the worst has to be swollen feet. This can not only be painful, but also make simple things like walking around an absolute chore.
Story first published: Monday, October 17, 2016, 19:00 [IST]
Please Wait while comments are loading...