শিশুদের ঠোঁটে কিস্‌ করার বিপত্তি

By: Anindita Sinha
Subscribe to Boldsky

সদ্যজাত শিশুর ক্ষেত্রে, আপনার সমস্ত মনোযোগই তাদের স্বাস্থ্যের ওপরই থাকবে। আপনার সন্তানের সঠিক দেখাশুনার জন্য আপনি নিদ্রাহীন রাত কাটাতেও প্রস্তুত থাকবেন।

শিশুদের শরীর খারাপ হলে সকল মা-বাবাই ভেঙে পরেন। আপনি যখন আপনার শিশুকে এতোটাই ভালবাসেন, তখন মা-বাবা হিসাবে আরও একটি জিনিস আপনাকে জেনে রাখতে হবে। কখনোই আপনার শিশুকে ঠোঁটে কিস্‌ করবেন না বা অন্য কোন অতিথিকেও করতে দেবেন না।

এটা একেবারেই স্বাস্থ্যকর না যেহেতু, কিস্‌ এর মাধ্যমে নির্দিষ্ট কিছু ধরণের রোগ-জীবানু ছড়িয়ে পরতে পারে। মনে রাখবেন, একজন শিশুদের ইমিউনিটি সেই সবকিছুর মোকাবিলা করে উঠতে পারে না যা একজন প্রাপ্তবয়স্কের ইমিউনিটি পেরে থাকে।

আসুন এবার আমরা শিশুদের ঠোঁটে কিস্‌ করার বিপত্তিগুলি জেনে নি।

শিশুদের ঠোঁটে কিস্‌ করার বিপত্তি

তথ্য ১#

কিস্‌ করার সময় একজনের স্যালাইভা বা লালা আরেকজনে মধ্যে চলে যেতে পারে। আর এইভাবেই নির্দিষ্ট কিছু রোগ একজনের থেকে অন্যজনে ছড়িয়ে পরে। এবং একজন শিশুর ইমিউনিটি এর মোকাবিলা করতে না পারায়, বিপদ আরও ভয়ানক হতে পারে।

শিশুদের ঠোঁটে কিস্‌ করার বিপত্তি

তথ্য ২#

ই.বি.ভি. একধরণের হারপিস ভাইরাস, যা কিসের মাধ্যমে ছড়ায়। এই ভাইরাস সম্পর্কে সবথেকে চিন্তার কারণ হলো, এই ভাইরাস মানুষের শরীরের ভেতরে আজীবন থেকে যায়।

শিশুদের ঠোঁটে কিস্‌ করার বিপত্তি

তথ্য ৩#

কিস্‌ করার পর যদি শিশুটির জ্বর, গলা ব্যাথা, ক্লান্তি এবং দুর্বলতার মতো উপসর্গ দেখা দেয়, তাহলে হতে পারে এটা কিসের থেকে ছড়ানো কোন রোগের ফল। এক্ষেত্রে ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া অবশ্যই প্রয়োজন।

শিশুদের ঠোঁটে কিস্‌ করার বিপত্তি

তথ্য ৪#

এমনকি একটা সাধারণ কিস্‌ থেকেও বড়দের থেকে ছোটদের মধ্যে ইনফ্লুয়েঞ্জা ছড়িয়ে যেতে পারে। উপসর্গের মধ্যে গলাব্যাথা, জ্বর, মাথাব্যাথা এবং গা-হাত-পা ব্যাথা থাকে।

শিশুদের ঠোঁটে কিস্‌ করার বিপত্তি

তথ্য ৫#

ভাইরাল মেনিনজাইটিস একধরণের সংক্রামক রোগ এবং এটি শরীরের সব অংশে প্রভাব ফেলতে পারে। জ্বর, বমবমি ভাব, কাঁপুনি, বিভ্রান্তি, গলাব্যাথা ও মাথাব্যাথা এর কয়েকটি উপসর্গ। একটা কিস্‌ এই রোগ ছড়াতে পারে।

শিশুদের ঠোঁটে কিস্‌ করার বিপত্তি

তথ্য ৬#

সাইটোমেগালো ভাইরাস... ছোট করে বললে এই রোগকে সি.এম.ভি বলা হয়ে থাকে। স্যালাইভা বা লালার মাধ্যমে এই রোগ ছড়িয়ে থাকে এবং এটি সুপ্ত বা সক্রিয় অবস্থায় বহু বছর ধরে শরীরে রয়ে যেতে পারে।

English summary
When you have a new born baby, all your attention would be on his or her health. You would be ready to spend sleepless nights to ensure that your kid gets the right living conditions.
Please Wait while comments are loading...