জমজ বাচ্চার খেয়াল রাখবেন কীভাবে?

Posted By:
Subscribe to Boldsky

প্রকৃতির এক আজব খেলায় জন্ম নেয় জমজ বাচ্চারা। আর যার বাড়িতে এমন ঘটনা ঘটে তার জীবন যে দ্বীগুণ খুশিতে ভরে ওঠে তা কি আর বলার অপেক্ষা রাখে। তাই তো যাদের জমজ বাচ্চা হতে চলেছে তারা নিজেদের ভাগ্য়বান ভাবতেই পারেন। কারণ মুষ্টিমেয় সংখ্য়ক মানুষের জীবনেই এমন ঘটনা ঘটে।

বাচ্চা হতে চলেছে এটা শুনলেই অনেক বাবা-মা প্রথটায় হকচকিয়ে যান। তার উপর যদি জমজ বাচ্চা হয় তাহলে তো কথাই নেই। তাই তো আপনাদের জন্য় এই প্রবন্ধে এমন কিছু টিপস নিয়ে আলোচনা করা হল, যা মেনে চললে জমজ বাচ্চাদের বড় করতে আর কোনও অসুবিধাই হবে না।

প্রকৃতির এক আজব খেলায় জন্ম নেয় জমজ বাচ্চারা

১. প্রথমেই বলি দুজন বাচ্চাকে এক সঙ্গে বড় করা মোটেই সহজ কাজ নয়। তবু এই কাজটি করতে গিয়ে আপনি এতটাই আনন্দ পাবেন যে তা বলে বোঝানোর মতো নয়। তাছাড়া দুজন সন্তান হওয়ার কারণে খুব ছোট বেলা থেকেই তারা এক-অপরের সঙ্গী হয়ে উঠবে। ফলে আপনার বাচ্চা কোনও দিনই নিজেদের একা মনে করার সুযোগই পাবে না।

২. একটা ডায়েরিতে বাচ্চারা কখন ঘুমায়, কখন খাবার খায়, কখন জামা-কাপড় বদল করতে হয়, এগুলি লিখে রাখুন। এতে আপনি একজন বাচ্চার খেয়াল রাখতে গিয়ে অন্য় জনকে মিস করবেন না। সেই সঙ্গে নিজেকেও সময় দেওয়ার সুযোগ পাবেন।

৩. আপনার পক্ষে যদি সম্ভব হয় তাহলে একজন কাজের লোক রাখুন। আর যদি তেমনটা করতে না পারেন তাহলে পরিবারের অন্য়দের কাছ থেকে যা সাহায্য় আসছে তা গ্রহণ করুন। এতে আপনার খাটনি কিছুটা হলেও কমবে। ডয়া করে সুপার মম হওয়ার চেষ্টা করবেন না।

৪. ভালো মানের বেবি স্লিং ব্য়বহার করবেন। এমনটা করলে আপনি দুজনকে একসঙ্গে নিয়েই বাইরে বেরতে পারবেন।

৫. বাচ্চাদের খেয়াল রাখতে গিয়ে বাবা-মায়েরা নিজেদের খেয়াল রাখেত পারেন না। তাই আপনাদের কাছে অনুরোধ রাতের ঘুমটা যেন ভালো করে হয়। না হলে আপনারা খিটখিটে হয়ে যাবেন। ফলে দেখা দেবে নানা অসুবিধা। প্রয়োজনে আপনার বাচ্চা যখন ঘুমচ্ছে, তখন একটু ঘুমিয়ে নেবেন। তাহলেই দেখবেন অনেকটা চাঙ্গা লাগছে।

৬. রোজ বাচ্চাদের নিয়ে বাইরে বেরবেন। এই অভ্য়াস আপনাকে এবং আপনার বাচ্চাকে মানসিকভাবে ভালো রাখতে সাহয্য় করবে। ভুলে যাবেন না তাজা বাতাস যে কোনও ধরনের শারীরিক অসুবিদাকে অনেকটাই কমিয়ে দেয়। সেই সঙ্গে মনকেও চাঙ্গা রাখে।

৭. অনেক সময় দুজন বাচ্চাকে একসঙ্গে বড় করে তুলতে গিয়ে বাবা-মায়েরা মানসিক ভাবে খুব চাপে পড়ে যান। ফলে পরিস্থিতি আরও খারাপ হতে শুরু করে। তাই বাবা-মায়েদের কাছে অনুরোধ এমনটা হলে যথা সময়ে চিকিৎসকের পরামর্শ নেবেন। তাহলেই দেখবেন আর কোনও অসুবিধা হচ্ছে না।

English summary
Twins are fascinating miracles of nature. We all love to adore them, and they become the centre of attraction without putting in any special efforts, wherever they go. But not everyone is blessed with twins. Hence, consider yourself lucky if you are amongst the chosen few to have been blessed with them, or are expecting them.
Story first published: Thursday, January 19, 2017, 17:00 [IST]
Please Wait while comments are loading...