৭ টি টিপস: যা মানলে ডায়াবেটিক হওয়া সত্ত্বেও সুস্থ থাকবেন ভাবী মায়েরা

Posted By:
Subscribe to Boldsky

যেমনটা আমাদের সরলেরই জানা আছে যে আমাদের দেশে কয়েক লক্ষ মানুষ ডায়াবেটিসে আক্রান্ত। আর এই রোগকে শরীরে নিয়ে বাঁচা মোটেই সহজ কাজ নয়। বিশেষত যখন আপনি সবেমাত্র বাচ্চার জন্ম দিয়েছেন।

ডায়াবেটিস হল এক ধরনের মেটাবলিক ডিজঅর্ডার। এই রোগে আক্রান্ত হলে রক্তে সুগারের মাত্রা খুব বেড়ে যায়। ফলে শরীরের নানা অঙ্গ-প্রত্য়ঙ্গ ধীরে ধীরে ক্ষতিগ্রস্থ হতে শুরু করে।

শরীরে যখন ইনসুলিনের মাত্রা ঠিক থাকে না, তখনই রক্তে গ্লোকোজ বা শর্করার পরিমাণ বেড়ে গিয়ে ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা বাড়িয়ে দেয়।

এই রোগে সাধারণত ৪০ বছরের উপরে যারা তাদের আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। যদিও এই কয়েক বছরে এই ধারণার অনেক পরিবর্তন ঘটেছে। কারণ আজকাল কম বয়সিরাও ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হচ্ছেন, যা আমাদের দেশের পক্ষে মোটেই ভালো খবর নয়।

তাই আপনি যদি ডায়াবেটিক হন এবং সবেমাত্র বাচ্চার জন্ম দিয়ে থাকেন, তাহেল একথা বলে দিতে হবে না যে আপনি, আপনার বাচ্চাকে নিয়ে বেজায় চিন্তিত। একথা মানতেই হবে যে ডায়াবেটিক মায়েদের ক্ষেত্রে নবজাতকদের সামলানো মোটেই সহজ কাজ নয়। কারণ মাকে নিজের শরীর ঠিক রাখার দিকেও তো নজর দিতে হয়!

এই প্রবন্ধে আলোচিত বিষয়গুলি মেনে চলুন। তাহলেই দেখবেন ডায়াবেটিক হওয়া সত্ত্বেও বাচ্চাকে বড় করে তুলতে আপনার আর কোনও কষ্টই হবে না।

টিপ: ১

টিপ: ১

প্রথমেই একথা মাথায় নিয়ে নেবেন যে আপনি একই সঙ্গে বাচ্চা এবং নিজের খেয়াল রাখতে সক্ষম। এমনটা করলে দেখবেন আপনার আত্মবিশ্বাস বাড়বে, যা আপনার চলার পথকে অনেক মসৃণ করবে।

টিপ: ২

টিপ: ২

প্রসবের পরে শরীরে নানা পরিবর্তন আসার কারণে আপনি অনেক দুর্বল হয়ে যাবেন। তাই এই সময় চিকিৎসকের সঙ্গে আলোচনা করে এমন একটা ডায়েট চার্ট বানাবেন যা শরীরে শর্করার মাত্রা না বাড়িয়েও আপনাকে চাঙ্গা করে তুলবে।

টিপ: ৩

টিপ: ৩

রক্তে সুগারের মাত্রা ঠিক আছে কিনা জানতে প্রতিদিন ব্লাড সুগার মাপবেন। কারণ প্রসবের পরে শরীরে হরমোনের পরিবর্তনের কারণে অনেক সময়ই ব্লাড সুগার লেভেল বেড়ে যায়। তাই সেদিকে খেয়াল রাখাটা খুব জরুরি।

টিপ: ৪

টিপ: ৪

গর্ভবতি থাকাকলীন ওজন খুব বেড়ে যায়। আর সুগার রোগীদের জন্য় ওজন বাড়া খুব বিপজ্জনক। তাই অতিরিক্ত ওজন কমিয়ে ফেলতে প্রসবের পর থেকেই প্রতিদিন শরীরচর্চা করা শুরু করাটা খুব দরকার।

টিপ: ৫

টিপ: ৫

বাচ্চার খেয়াল রাখার সঙ্গে সঙ্গে নিজের খেয়াল রাখেতও ভুলবেন না। কারণ ডায়াবেটিসের একটি লক্ষণই হল ক্লান্তি। তাই নিজের এই অতিরিক্ত ক্লান্তির সঙ্গে লড়াই করার রাস্তা আপনাকেই খুঁজে নিতে হবে।

টিপ: ৬

টিপ: ৬

ডায়াবেটিক বলে বাচ্চাকে মাতৃদুগ্ধ খাওয়াতে পারবেন না, এই ধরণা একেবারে ভুল। তবে একবার এই বিষয়ে চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করে নিতে ভুলবেন না।

টিপ: ৭

টিপ: ৭

ডায়াবেটিকদের হঠাৎ করে রক্ত চাপ কমে যাওয়ার মতো সমস্য়া হতে পারে। তাই নতুন মায়েদের কাছে অনুরোধ ঠিক সময়ে খাবার খাবেন। এমনটা না করলে কিন্তু বিপদ!

English summary
As we all know, diabetes is a terrible disease that has affected millions and living with diabetes can be rather difficult, especially when you have just given birth to a child, as diabetes has no cure.
Please Wait while comments are loading...