ব্রেকফাস্টে গ্রিন টি খাওয়া জরুরি কেন?

Subscribe to Boldsky

এখন তো অনেকেই জানেন যে গ্রিন টি পান শরীরের পক্ষে কতটা উপকারি। আর এই বিষয়ে অনেক গবেষণাও মান্য়তা দিয়েছে। একাধিক কেস স্টাডি করে দেখা গেছে সকালে এই চা পান করলে বাস্তবিকই শরীর ভালো থাকে। এখন প্রশ্ন হল, কী এমন আছে গ্রিন টি তে যে এত মানুষ এই চায়ের পিছনে দৌড়াচ্ছে?

গ্রিন টি তে ফ্লেভোনয়েডস বলে একটি উপাদান থাকে। অনেক গাছেও এই উপাদানটির উপস্থিতি পরিলক্ষিত হয়। ফ্লেভোনয়েডস আসলে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। আর একথা তো সবার জানা যে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট হল এমন একটি উপাদান যা সব দিক থেকে শরীরকে চাঙ্গা রাখে। তাই তো গ্রিন টি এর এত জনপ্রিয়তা। এছাড়াও কেটেচিন নামেও একটি উপদান থাকে এই চায়ে, যা ভিটামিন ই এবং সি-এর থেকেও বেশি শক্তিশালী।

চলুন এবার চোখ রাখা যাক গ্রিন টির কিছু উপকারিতার উপর।

১. চর্বি গলায়:

একাধিক গবেষণায় একথা প্রমাণিত হয়েছে যে এই চায়ে এমন কিছু উপাদান আছে যা হজম প্রক্রিয়াকে বাড়িয়ে শরীরের অতিরিক্ত মেদ কমিয়ে ফেলতে সাহায্য করে। প্রসঙ্গত, গ্রিন টিয়ে উপস্থিত কেটাচিন পেটের মেদ ঝড়াতে অগ্রগন্য় ভূমিকা পালন করে থাকে।

২. স্টেমিনা বাড়ায়:

প্রতিদিন সকালে গ্রিন টি খেলে দেখবেন স্টেমিনা কেমন তড়তড়িয়ে বেড়ে যাচ্ছে। তাই তো পুরো দিন ব্য়াপী চনমনে থাকতে, শুধু সকালে নয়, সারাদিনে বেশ কয়েকবার পান করুন এই হেল্থ ড্রিঙ্ক। ফল পাবেন হাতেনাতে।

৩. রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়:

যারা অ্যালার্জিতে খুব ভোগেন তাদের তো এই চাটি পান করা মাস্ট। কারণ শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে গ্রিন টির কোনও বিকল্প নেই। আর একথা তো সবারই জানা যে একবার যদি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ভালো হয়ে যায় তাহলে আর অ্যালার্জির মতো রোগ ধারে কাছেও ঘেঁষতে পারে না।

৪. ক্যান্সার রোগকে দূরে রাখে:

একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে গ্রিন টি তে উপস্থিত ইজিসিজ নাম উপাদানটি ক্যান্সার সেলকে ধ্বংস করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। সেই কারণেই তো বিশেষজ্ঞরা বলে থাকেন যে ক্যান্সারকে যদি দূরে রাখতে হয় তাহলে গ্রিন টির সঙ্গে বন্ধুত্ব পাতাতেই হবে।

৫. স্মৃতিশক্তি বাড়ায়:

শুনে আবাক লাগলেও গবেষণায় একথা প্রমাণিত হয়েছে যে স্মৃতিশক্তি বাড়াতে গ্রিন টি সাহায্য় করে। সেই সঙ্গে আমাদের অ্যালার্টনেসও বাড়ায়। তাই আজ থেকেই সকাল-বিকাল খাওয়া শুরু করুন এই চা।

৬. হার্ট অ্যাটাকের আশঙ্কা কমায়:

প্রতিদিন গ্রিন খেলে হার্ট কিন্তু খুব ভালো থাকে। একটি রিসার্চে দেখা গেছে যারা নিয়মিত গ্রিন টি খেয়ে থাকেন তাদের উচ্চ রক্ত চাপে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা ৪৬-৬৫ শতাংশ কমে যায়। আর একথা তো সকলেরই জানা যে উচ্চ রক্তাচাপের মতো রোগ না থাকলে কমে হার্ঠ অ্যাটাকের আশঙ্কাও। আসলে গ্রিন টির মধ্য়ে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এই কাজটি করে থাকে। এবার থেকে তাই আপনিও সকাল-বিকাল খাওয়া শুরু করুন গ্রিন টি। দেখবেন কেমন অল্প দিনেই চাঙ্গা হয়ে উঠছেন।

English summary
For numerous years now, many individuals have held the belief that green tea extract is beneficial for the body. With scientific research progressively verifying that longstanding concept, green tea extract has become increasingly more approved as an important part of the daily diet of several people.
Please Wait while comments are loading...