গরমকালে এই নিয়মগুলি মেনে না চললে কিন্তু বিপদ!

Posted By:
Subscribe to Boldsky

বছরের এই একটা সময়ে শরীরকে ঠিক রাখাটা সত্য়িই কঠিন হেয় দাঁড়ায়। কারণ গরম কাল মানে শুধু তাপ প্রবাহ নয়, আরও অনেক কিছু! তাই তো এই সময় শরীর নানা কারণে ভাঙতে শুরু করে, যাকে সামাল দিতে গেলে কতগুলি নিয়ম মেনে চলা একান্ত প্রয়োজন। না হলে কিন্তু বিপদ!

ঠান্ডার পরে হঠাৎ করে গরম এসে যাওয়ার কারণে অনেকেরই শরীর খারাপ হতে শুরু করে। এমনটা হওয়া কোনও অস্বাভাবিক ঘটনা নয়। কারণ শরীরের পক্ষে হঠাৎ করেই আবহাওয়ার এই পরিবর্তন মেনে নেওয়া একেবারেই সহজ কাজ হয় না। তাই তো সিজিন চেঞ্জের সময় অতিরিক্ত সাবধানতা অবলম্বন করার পরামর্শ দেন চিকিৎসকেরা। বিশেষত এই সময় বাচ্চাদের সুস্থ রাখাটা প্রতিটি বাবা-মায়ের কাছেই একটা চ্য়ালেঞ্জ হয়ে দাঁড়ায়।

শীতকালে ঠান্ডার হাত থেকে বাঁচতে আমরা যেমন নানা ধরনের সাবধনতা নিয়ে থাকি, তেমনি গরম কালেও প্রকৃতির মার থেকে নিজেদের বাঁচাতে তেমনিই কিছু সাবধনতা অবলম্বন করে চলা উচিত, যদি সুস্থ থাকার ইচ্ছা হয় তো! কীভাবে গরমের সময় বাঁচাবেন নিজেকে? চলুন জেনে নেওয়া যাক সে সম্পর্কে।

টিপ ১:

টিপ ১:

এই সময় সান স্ক্রিন ব্যবহার করতেই হবে। কারণ গরম কালে সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মির হাত থেকে নিজেকে বাঁচাতে না পারলে সান বার্ন এবং নানাবিধ ত্বকের রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা বহু গুণে বৃদ্ধি পায়। এমনকী একাধিক গবেষণায় এও প্রমাণিত হয়েছে যে, অতিরিক্ত মাত্রায় অতিবেগুনি রশ্মি যদি ত্বকের সংস্পর্শে আসে তাহলে স্কিন ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পায়।

টিপ ২:

টিপ ২:

অতিরিক্ত গরমের কারণে শরীর থেকে প্রচুর মাত্রায় জল বেরিয়ে যায়, যা একেবারেই শরীরের পক্ষে ভাল নয়। তাই জলের এই ঘাটতি মেটাতে গরম কালে প্রতিদিন কম করে ৩ লিটার জল খেতেই হবে।

টিপ ৩:

টিপ ৩:

রোজের ডায়েটে ফল এবং সবুজ শাক-সবজি রাখাটা আবশ্যিক। প্রসঙ্গত, এই সময় দিনে একবার হলেও স্যালাড খাওয়ার চেষ্টা করবেন। কারণ একাধিক কেস স্টাডি করে দেখে গেছে, গরমের হাত থেকে বাঁচাতে স্যালাডের কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে।

টিপ ৪:

টিপ ৪:

গরম কালে যতটা পারবেন ঝাল-মশলা দেওয়া খাবার এড়িয়ে চলবেন। পরিবর্তে হালকা খাবার বেশি করে খাবেন। আসলে এই সময় হজম ক্ষমতা খুব কমে যায়। তাই স্পাইসি খাবার খেলে বদহজম হওয়ার আশঙ্কা বৃদ্ধি পায়। সেই সঙ্গে শরীরের তাপমাত্রা বেড়ে গিয়ে দেখা দিতে পারে আরও কিছু সমস্যা।

টিপ ৫:

টিপ ৫:

ব্রেকফাস্ট না খাওয়া একেবারেই চলবে না, বিশেষত গরমের সময়। কারণ প্রাতঃরাশ শুধু এনার্জি বাড়ায় না, সেই সঙ্গে হিট স্ট্রোকে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভবনাও কমায়।

টিপ ৬:

টিপ ৬:

বছরের এই একটা সময়ে যতটা পারবেন অ্যালকোহল কম খাবেন। কারণ এই জাতীয় পানীয় শরীরের তাপমাত্রা খুব বাড়িয়ে দেয়, যা গরমের সময় প্রাণঘাতি প্রমাণিত হতে পারে।

টিপ ৭:

টিপ ৭:

গরম কালে যখনই সুযোগ পাবেন ইলোকট্রোলাইট সমৃদ্ধ পানীয়, যেমন লেবুর রস এবং ও আর এস বেশি করে খাবেন। এমনটা করলে শরীরে জলের অভাব হবে না, ফলে ডিহাইড্রেশন হওয়ার আশঙ্কা কমবে।

English summary
Want to avoid getting sick this summer? Then follow these tips!
Please Wait while comments are loading...