তাপ প্রবাহের হাত থেকে ত্বককে বাঁচাতে এই নিয়মগুলি মেনে চলাটা জরুরি

Posted By:
Subscribe to Boldsky

বছরের এই একটা সময়ে পরিবেশ যেন ত্বকের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করে। তাই তো এই সময় স্কিনের বিশেষভাবে খেয়াল রাখাটা একান্ত প্রয়োজন। আর এক্ষেত্রে আপনাকে সাহায্য করতে পারে এই প্রবন্ধটি। কীভাবে? এই লেখায় এমন কিছু নিয়ম সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে, যা মেনে চললে ৪০ ডিগ্রিতেও আপনাক ত্বক সুন্দর এবং উজ্জ্বল থাকবে।

গরম কালে প্রথম যে বিষযটা মাথায় রাখতে হয়, তা হল এই সময় তাপ প্রবাহ বেড়ে যাওয়ার কারণে ত্বকের উপর অতি বেগুনি রশ্মির ক্ষতিকর প্রভাব বেশি মাত্রায় পরে। তাই এ বিষয়ে সাবধান থাকাটা জরুরি। সেই সঙ্গে চামড়া পুড়ে যাওয়ার সমস্যা তো আছেই। এসবের থেকে দূরে থাকতে এই প্রবন্ধে আলোচিত নিয়মগুলি দারুন কাজে আসতে পারে। তাই আর সময় নষ্ট না করে এক্ষুনি চোখ রাখুন বাকি লেখায়।

১. টিস্যু পেপার:

১. টিস্যু পেপার:

বছরের এই একটা সময়ে প্রচন্ড ঘাম হয়। আর সেই কারণে অনেকেরই মুখ খুব তেলতেলে হয়ে যায়। তাই তো ব্যাগে সব সময় ভেজা টিস্যু পেপার রাখাটা জরুরি। যখনই দেখবেন খুব ঘাম হচ্ছে, তখনই মুখটা আলতো করে মুছে নেবেন। এমনটা করলে মুখ পরিষ্কার থাকবে, সেই সঙ্গে ক্লান্তিও দূর হবে।

২. সান গ্লাস:

২. সান গ্লাস:

গরমের সময় সান গ্লাস না নিয়ে বাড়ি থেকে বেরনোই চলবে না। কারণ যেমনটা আগেও বলেছি, বছরের এই একটা সময়ে সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি খুব সক্রিয় হয়ে ওঠে। যে কারণে চোখের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা থাকে। তাই সান গ্লাস ব্যবহার মাস্ট! প্রসঙ্গত, অনেকেই কম দামি সান গ্লাস ব্যবহার করেন। এমনটা একেবারেই করবেন না। কারণ এই সব সান গ্লাস চোখকে তো বাঁচাই না, উল্টে মারাত্মক ক্ষতি করে দেয়। তাই সব সময় ব্রন্ডেড চমশা কিনবেন। তাতে চোখের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা কমবে।

৩. এস পি এফ রয়েছে এমন লিপ বাম:

৩. এস পি এফ রয়েছে এমন লিপ বাম:

অনেকে মনে করেন কেবল শীতকালে ঠোঁট ফাটে। এমন ধরণা একবারেই ঠিক নয়। গরমের সময়ও একই ধরনের সমস্যা দেখা দেয়। তাই তো সঙ্গে সব সময় লিপ বাম রাখবেন। আর যেহেতু গরমকালের কথা আলোচনা করা হচ্ছে তাই অতিবেগুনি রশ্মির হাত থেকে বাঁচাবে এমন লিপ বাম ব্যবহার করাই শ্রেয়। প্রসঙ্গত, আমাদের শরীরের মধ্যে সবথেকে স্পর্শকাতর জায়গা হল ঠোঁট। তাই তো তাপ প্রবাহের কারণে একেবারে প্রথমেই ক্ষতি হয় ঠোঁটের। সাই জন্যই গরম কালেও ঠোঁটের বিশেষ ভাবে যত্ন নেওয়া জরুরি।

৪. সানস্ক্রিন:

৪. সানস্ক্রিন:

ঠোঁটের ক্ষেত্রে যেমন লিপ বাম, তেমনি ত্বকের ক্ষেত্রে সান স্ক্রিন সমান ভাবে জরুরি। এক্ষেত্রে একটি বিষয় মাথায় রাখবেন, সূর্যালোকের হাত থেকে ত্বককে বাঁচাতে সাধারণ সান স্ক্রিন তেমন কাজেই আসে না। তাই এই সময় এস পি এফ সমৃদ্ধ সান স্ক্রিন লোশন ব্যবহার করবেন। সেই সঙ্গে খেয়াল রাখবেন লোশনটা খুব বেশি থকথকে কিনা। যদি তেমন হয়, তাহলে ব্যবহার করবেন না। কারণ থকথকে লোশন ত্বকের ছিদ্রগুলিকে বন্ধ করে দেয়। ফলে নানা ধরনের ত্বকের রোগ হওয়ার আশঙ্কা বৃদ্ধি পায়। তাহলে কেমন সান স্ক্রিন ব্যবহার করতে হবে? যে লোশনটি হলকা এবং এস পি এফ রয়েছে এমন সান স্ক্রিন মুখে লাগানোই শ্রেয়।

৫. বেবি পাউডার:

৫. বেবি পাউডার:

আপনি কী খুব ঘামেন? তাহলে সঙ্গে সব সময় বেবি পাউডার রাখবেন। কী কাজে লাগে এই প্রসাধনিটি? শরীরে যে যে জায়গায় বেসি মাত্রায় ঘাম হয়, সেখানে সেখানে অল্প করে বেবি পাউডার লাগিয়ে দিলেই দেখবেন ঘাম হওয়া একেবারে কমে গেছে। সেই সঙ্গে ঘামের দুর্গন্ধের হাত থেকেও রক্ষা পাওয়া যায়। প্রসঙ্গত, গরমকালে যাদের হাতের তালু খুব ঘামে, তারা বেবি পাউডার ব্যবহার করলে দারুন উপকার পাবেন।

৬. ফেসিয়াল মিস্ট:

৬. ফেসিয়াল মিস্ট:

গরমের সময় ত্বককে প্রাণবন্ত এবং সুন্দর রাখতে ফেসিয়াল মিস্ট ব্য়বহার করা জরুরি। তাছাড়া এ সময় ত্বকে তার প্রয়োজনীয় আদ্রতা হারিয়ে ফেলে। এক্ষেত্রেও ফেসিয়াল মিস্ট দারুন কাজে আসে। সেই সঙ্গে ক্লান্তি দূর করতেও সাহায্য় করে। তবে কোনও ফেসিয়াল মিস্টটি আপনার ত্বকের প্রকৃতির সঙ্গে খাপ খাবে, সে সম্পর্কে জেনে নেওয়া জরুরি। না হলে কিন্তু সেভাবে সুফল পাবেন না।

৭. জলের বতল:

৭. জলের বতল:

বছরের এই একটা সময় প্রচন্ড ঘাম হয়। যে কারণে শরীর থেকে জল এবং খনিজ সব বেরিয়ে যায়। ফলে ডিহাইড্রেশন হওয়ার আশঙ্কা বৃদ্ধি পায়। এই সময় পর্যাপ্ত পরিমাণে জল খাওয়া জরুরি। না হলে শরীর খারাপ তো হয়ই, সেই সঙ্গে ত্বকের সৌন্দর্যও হ্রাস পায়। তাই গরমকালে বাড়ির বাইরে বরলে সব সময় সঙ্গে জলের বোতল সঙ্গে রাখাটা জরুরি।

Read more about: গরমকাল
English summary
Summer is almost here and we can feel the dent right on our faces, isn't it? So, girls, you must make sure you carry summer essentials in your bags at all times during the summer season.
Please Wait while comments are loading...